টেস্ট ক্রিকেটে আর থাকছে না টস?

0
4166

ক্রিকেটের একটা অবিচ্ছেদ্য অংশ ‘টস’। সব ফরম্যাটেই টসের পরে ম্যাচের সূচনা হয়। তবে ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় ফরম্যাট- টেস্টে ভবিষ্যতে টস না থাকার সম্ভাবনা তৈরী হয়েছে।

Image result for bangladesh vs australia test toss

Advertisment

পাঁচ দিনের খেলা টেস্টে স্বাগতিকরা নিজেদের ইচ্ছেমতো পিচ বানিয়ে সুবিধা নিয়ে থাকে। অস্ট্রেলিয়া,ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকায় যেমন পেসার সহায়ক উইকেট বানানো হয় তেমনি উপমহাদেশে প্রেক্ষাপট উল্টো। বাংলাদেশ, ভারত, শ্রীলঙ্কায় সাধারণত সুবিধা পান স্পিনাররা। অন্যদিকে স্বাগতিক দল টসে জিতলে ম্যাচের ভাগ্য অনেক ক্ষেত্রেই টসের মাধ্যমেই নির্ধারণ হয়ে যায়। টেস্টে আরও ভারসাম্য আনতে টস প্রথা তুলে নেবার কথা ভাবছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।

চলতি মাসের শেষে ভারতের মুম্বাইয়ে হবে আইসিসির বৈঠক। এতে টেস্টে টস প্রথা নিয়ে বিষদ আলোচনা হবে। যদি টস প্রথা উঠে যায়, তাহলে টেস্টে সফরকারী দল আগে বোলিং কিংবা ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিতে পারবে। আগামী বছর শুরু হবে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। টেস্টের এই বড় আয়োজনে টস প্রথা না থাকার সম্ভাবনা আছে। এমনকি আগামী বছরের অ্যাশেজেও টস বাতিল করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

সম্প্রতি ক্রিকইনফো এই প্রসঙ্গে লিখেছে,  ‘টেস্টে এখন স্বাগতিক দলগুলো উইকেট যেভাবে বানায়, তা উদ্বেগজনক। কমিটির একাধিক সদস্য বিশ্বাস করেন, প্রতিটি টেস্টেই টসের সিদ্ধান্ত সহজাতভাবেই সফরকারী দলকে উপহার দেওয়া উচিত; যদিও কমিটিতে এর দ্বিমত পোষণকারীরাও রয়েছেন।’

[আরও পড়ুনঃ যে কারণে বিশ্ব একাদশের হয়ে খেলছেন না সাকিব

চলতি মাসের ৩১ তারিখ লর্ডসে হবে বিশ্ব একাদশ বনাম উইন্ডিজের মধ্যকার চ্যারিটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। সেই ম্যাচের জন্য বিশ্ব একাদশের দলে ছিলেন বাংলাদেশের দুই ক্রিকেটার- সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল। কিন্তু গতকাল (১৬ মে) হঠাতই এই চ্যারিটি ম্যাচ না খেলার সিদ্ধান্ত নেন সাকিব।  ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) বিষয়টি নিশ্চিত করলেও সেটার কোনও কারণ উল্লেখ করে নি। তবে জানা গেছে, টানা ম্যাচ খেলার ধকল কাটাতেই এই ম্যাচ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন সাকিব। বাকি অংশ…।]