SCORE

টেস্ট দিয়ে শুরু উইন্ডিজ সফর

চার জুলাই বুধবার অ্যান্টিগায় শুরু হচ্ছে উইন্ডিজ বাংলাদেশ সিরিজ। লম্বা সিরিজের শুরুটা হচ্ছে টেস্ট দিয়ে। ফর্মে না থাকা বাংলাদেশ এই সিরিজ দিয়েই চাইবে ফর্মে ফিরতে। উইন্ডিজ সিরিজ দিয়েই ২য় মেয়াদে টেস্ট কাপ্তান হিসেবে অভিষেক হচ্ছে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের।

বাংলাদেশের-উইকেট-উদযাপন

 

Also Read - সৌম্য-সাব্বির-মোসাদ্দেকের জন্য সাকিবের পরামর্শ

বাংলাদেশ সর্বশেষ টেস্ট খেলেছে ঘরের মাঠে ফেব্রুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। দুই টেস্টের সিরিজ হেরেছে ০-১ ব্যবধানে। ঘরের মাঠে সেটা দুই বছর পর বাংলাদেশ দলের টেস্ট সিরিজ হার।

সেই সিরিজ থেকেই শুরু হয় বাজে ফর্মের। এরপর নিদাহাস ট্রফিতে কিছুটা আশা জাগালেও আফগানদের সাথে সিরিজে ধবলধোলাই হয়ে লজ্জায় ডুবেছে টাইগাররা। সেইসব পেছনে ফেলে দিতেই পারফর্ম করতে হবে উইন্ডিজ সফরে।

উইন্ডিজ সফরে অবশ্যই বারবার ফিরে আসবে ২০০৯ এর ঘটনা। ৯ বছর আগে যেখানে উত্থান হয়েছিলো নতুন এক বাংলাদেশের। প্রথমবারের মত দেশের বাইরে টেস্ট সিরিজ জয়ের স্মৃতি আবার ফিরিয়ে আনতে চাইবেন সাকিব, তামিম, মুশফিকরা।

অ্যান্টিগার পিচ বরাবরই পেসারদের সহায়তা করে থাকে। গত জুলাইয়ে ভারতের সাথে ম্যাচে হালকা ঘাস ছিল পিচে। সেই টেস্ট ইনিংস ব্যবধানে হারে উইন্ডিজরা। কিন্তু সে টেস্টে পেসার শামি আর যাদবকে ছাপিয়ে ম্যান অফ দি ম্যাচ হন রবিচন্দ্রন আশ্বিন। তাই স্পিন বোলারদের সুযোগ থাকবে না এমনটা বলা যাচ্ছে না। বুধবার আকাশে রোদ থাকার সম্ভাবনাই বেশি। প্রথম দিকে ব্যাটসম্যানদেরই সুবিধা পাওয়ার কথা। তাই টস জিতে যে কোনো দলই চাইবে ব্যাটিং নিতে।

বাংলাদেশের একাদশে দেখা যেতে পারে তিন পেসারের আবির্ভাব। সেটা অবস্থা বুঝে চারজনও হতে পারে। চার পেসার নিয়ে খেললে পেস বোলিং ইউনিট সামাল দেবেন রুবেল, রাহী ,শফিউল ও আবু হায়দার রনি। স্পিন বোলিং ইউনিটের দায়িত্বে বরাবরের মতই থাকবেন কাপ্তান সাকিব আল হাসান। দুই পেসার নিয়ে খেললে দলে জায়গা পেতে পারেন মিরাজ কিংবা তাইজুলের যে কেউ। তবে সে সম্ভাবনা খুবই কম।

অন্যদিকে উইন্ডিজ দল সর্বশেষ টেস্ট খেলেছে সদ্য শেষ হওয়া জুন মাসে। তাই সিরিজে টেস্ট মেজাজের অভ্যাসটা নিয়েই নামবে স্বাগতিকরা। যেখানে বাংলাদেশ নামছে টি-টোয়েন্টি মেজাজ নিয়ে। লঙ্কানদের সাথে সেই সিরিজ ১-১ ব্যবধানে শেষ করে তারা। উইন্ডিজদের হয়ে ফর্মে আছেন বেশ কয়েকজন বোলার ও ব্যাটসম্যান।

বাংলাদেশ দলের মধ্যে অবশ্যই চোখ থাকবে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের উপর। এছাড়া অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুমিনুল ও প্রস্তুতি ম্যাচে ভালো খেলা তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের উপর ভরসা করতে চাইবে টাইগার ভক্তরা। এই টেস্ট সিরিজ থেকে ভালো কিছু করতে চাইলে অবশ্যই উইন্ডিজদের বোলিং ইউনিটের সামনে ভালো করতে হবে ব্যাটসম্যানদের।

উইন্ডিজদের হয়ে চমৎকার ফর্মে আছেন শেনন গ্যাব্রিয়েল আর শেনন ডাওরিচ। দুইজনই শ্রীলঙ্কা সফরে উজ্জ্বল পারফর্ম করেছেন। আর বাংলাদেশ দলের বাড়তি ভয় অবশ্যই দেবেন্দ্র বিশু। লেগ স্পিনের বিপক্ষে এর আগে খুব ভালো অভিজ্ঞতা হয়নি। এছাড়া ২০০৯ সালে একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে পাঁচ উইকেট নেয়া কেমার রোচও আছেন দলে।

ঐবারের সুপার হিরো সাকিব নাকি নতুন কেউ হিরো হয়ে দেখান এই সিরিজে সেটাই দেখার বিষয় বাংলাদেশের জন্য। উল্লেখ্য, দু’দলের মধ্যকার সিরিজের প্রথম টেস্টটি স্যার ভিভিয়ান রিচার্ড স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময়ানুযায়ী বুধবার রাত আটটা থেকে মাঠে গড়াবে।

সম্ভাব্য একাদশঃ

বাংলাদেশঃ তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, সাকিব আল হাসান ( অধিনায়ক ) , মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন কুমার দাস, রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম/ আবু জায়েদ রাহী, কামরুল ইসলাম রাব্বি।

উইন্ডিজঃ ক্রেইগ ব্রাথওয়েট, ডেভন স্মিথ, কাইরন পাওয়েল, শাই হোপ, রস্টন চেইজ, শেন ডাওরিচ, জেসন হোল্ডার (অধিনায়ক ), দেবেন্দ্র বিশু, কেমার রোচ, মিগুয়েল কামিন্স, শেনন গ্যাব্রিয়েল।

১২ জুলাই থেকে জ্যামাইকায় হবে ২য় টেস্ট। ২২ জুলাই থেকে শুরু হবে ওয়ানডে সিরিজ আর আগস্টের এক তারিখ শুরু হয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে সফর শেষ হবে ছয় আগস্ট।

আরো পড়ুনঃ ‘এবারের চ্যালেঞ্জটা আগের তুলনায় সহজ’

Related Articles

সিপিএলে ত্রিনবাগোর টানা দ্বিতীয় শিরোপা

বাদ পড়লেন স্মিথ-কামিন্স

বোলিংয়ের অনুমতি পেলেন বিটন

দুই ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরলো বাংলাদেশ

বাংলাদেশকে কৃতিত্ব দিতে কার্পণ্য নেই ব্র্যাথওয়েটের কণ্ঠে