Scores

ডিপিএলের তিন ম্যাচেই বোলাররা সেরা

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের সপ্তম রাউন্ডের খেলায় শুক্রবার (২৯ মার্চ) মাঠে গড়ায় তিনটি ম্যাচ। মিরপুরে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ মুখোমুখি হয়ে প্রাইম দোলেশ্বরের। বিকেএসপিতে আবাহনী লিমিটেডের প্রতিপক্ষ ছিল গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। আর ফতুল্লায় খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতির প্রতিপক্ষ ছিল শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব।

ডিপিএলের তিন ম্যাচেই বোলাররা সেরা

মিরপুরে প্রাইম দোলেশ্বরকে ৭২ রানে হারায় রূপগঞ্জ। বিকেএসপির ৪ নম্বর মাঠে আবাহনী গাজী গ্রুপকে হারায় ২৯ রানের ব্যবধানে। ফতুল্লায় খেলাঘরের বিপক্ষে ৫ উইকেটে জয়লাভ করে শেখ জামাল।

Also Read - “যখন স্বাভাবিক জীবনে ফেরার চেষ্টা করছি, তখনই অগ্নিকান্ড”


 

বিচিত্র ব্যাপার, তিনটি দলের জয়েই এদিন মুখ্য ভূমিকা রেখেছিলেন বোলাররা!

একনজরে দেখে নেওয়া যাক তিন ম্যাচের সেরাদের পারফরম্যান্স।

মোহাম্মদ শহীদ (রূপগঞ্জ-দোলেশ্বর)

রূপগঞ্জের ছুঁড়ে দেওয়া ২৬৬ রানের লক্ষ্যে খেলতে নামা দোলেশ্বর শুরুতে সাইফ হাসানকে হারানোর পরও প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল। তবে শেষপর্যন্ত দলটিকে জয়ের মুখ দেখতে দেননি জাতীয় দলে খেলা পেসার মোহাম্মদ শহীদ। ডানহাতি পেসারের বোলিং তোপে এদিন ফর্মে থাকা দোলেশ্বর গুটিয়ে যায় ১৯৩ রানে। দলকে ৭২ রানের জয় এনে দেওয়ার দিনে ৯ ওভার বল করে শহীদ ৪টি উইকেট তুলে নেন মাত্র ২৩ রানের খরচায়। কে জানে, আরও একটি ওভার করলে হয়ত সাফল্য পেতেন আরও! সেই সুযোগ অবশ্য পাননি। কেননা দোলেশ্বরের ব্যাটসম্যানরা ৪৬ ওভার ব্যাট করেই হারিয়েছেন সবকটি উইকেট।

মাশরাফি বিন মুর্তজা (আবাহনী-গাজী গ্রুপ)

‘অগ্নিঝরা বোলিং’ কাকে বলে, তা-ই যেন মনে করিয়ে দিয়েছেন জাতীয় দলের অধিনায়ক। একাধারে সংসদ সদস্য, নিজ জেলা নড়াইলে একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠানও পরিচালনা করছেন। বয়সও তো কম হল না। তাতে কী! ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ এর পারফরম্যান্সে যে মরচে ধরেনি এতটুকুও! ১০ ওভার বল করে ৪৬ রানের খরচায় মাশরাফি এদিন শিকার করেছেন ৬টি উইকেট। তার এমন দানবীয় বোলিংয়ের সামনে ইমরুল কায়েসের শতকও বৃথা গেছে। ২৮৭ রানের লক্ষ্যে খেলতে নামা গাজী গ্রুপ গুটিয়ে গেছে ২৫৭ রানেই।

 

 

তাইজুল ইসলাম (শেখ জামাল-খেলাঘর)

খেলাঘরকে ১৮৩ রানে আটকে দিয়েও জয় তুলে নিতে কষ্ট হয়েছে শেখ জামালের। তাইজুল না থাকলে হয়ত কষ্টটা হতো আরও বেশি, অথবা হাতছাড়া হয়ে যেত জয়ই! ১০ ওভারে ৩৯ রানের খরচায় ৩ উইকেট শিকার করে প্রতিপক্ষের ব্যাটিংয়ের মেরুদণ্ড তথা টপ অর্ডার ভেঙে দিয়েছিলেন তিনিই। এরপর দ্রুত উইকেট পতনের চাপ সামলে করেছেন গুরুত্বপূর্ণ ১৫ রান, যখন রান তোলার চেয়ে উইকেট না হারানোই ছিল বেশি কার্যকরী। ব্যাটে-বলে দারুণ একটি দিন কাটানোর পর তাইজুল পেয়েছেন ম্যাচ সেরার খেতাব, দলও জিতেছে ৫ উইকেটে।

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

উপেক্ষিত থাকছেন না ডিপিএলের পারফর্মাররা

সৌম্যকে যেভাবে সাহায্য করেছেন জাফর

ওয়াসিম জাফরের পরামর্শ কাজে লাগানোর প্রত্যাশা

তাণ্ডবের আগে ‘নার্ভাস’ ছিলেন সৌম্য

গর্বিত ‘অধিনায়ক মোসাদ্দেক’, কৃতিত্ব মাশরাফিকে