ডিপিএল টি-টোয়েন্টির শীর্ষ ‘১০’ রান সংগ্রাহক

0
913

পর্দা নেমেছে ডিপিএল টি-টোয়েন্টির ২০১৯-২০ মৌসুমের আসর। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের এই ডিপিএলে ব্যাট হাতে রান পেয়েছেন অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী দলের ক্রিকেটার মাহমুদুল হাসান জয় সহ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান নুরুল হাসানও।

ফিঞ্চের বিশ্বরেকর্ডকেও ছাড়িয়ে গেলেন মিজানুর

Advertisment

দেড় বছর বিরতির পর শুরু হওয়া ডিপিএল শেষ হয়েছে শনিবার। সুপার লিগের শেষ ম্যাচে প্রাইম ব্যাংককে হারিয়েছে টানা তৃতীয়বার শিরোপা জিতেছে আবাহনী লিমিটেড। এবারের ডিপিএল টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের হলেও রানের ছড়াছড়ি ছিল বেশ। এক নজরে এই ডিপিএল টি-টোয়েন্টির সেরা ‘দশ’ রান সংগ্রাহকের তালিকা

১) মিজানুর রহমান – সেরা রান সংগ্রাহকদের মধ্যে সবার উপরে রয়েছেন ব্রাদার্স ইউনিউয়নের ওপেনার মিজানুর রহমান। দল সুপার লিগে না খেললেও ১০ ইনিংসে ৫২.২৫ গড়ে করেছেন ৪১৮ রান, স্ট্রাইক রেট ১৩৩.৯৭। তিন ফিফটির পাশাপাশি একটি সেঞ্চুরিও রয়েছে মিজানুরের।

২) মাহমুদুল হাসান জয় – সুপার লিগে না উঠলেও রেলিগেশন পর্ব খেলেছে ওল্ড ডিওএইচএস। ব্যাট হাতে দুর্দান্ত ছিলেন তরুণ মাহমুদুল। স্ট্রাইক নিয়ে প্রশ্ন তোলা গেলেও ১২ ইনিংসে ৪৩.৫৫ গড়ে ৩৯২ রান করেছেন মাহমুদুল। স্ট্রাইক রেট ছিল ১২১.৩৬!

৩) নুরুল হাসান – এবারের ডিপিএল টি-টোয়েন্টির অন্যতম আকর্ষণ ছিল শেখ জামালের অধিনায়ক নুরুল হাসানের দিকে। ব্যাট হাতে দারুণ পারফরম্যান্সের পর জিম্বাবুয়ে সফরের জন্য ঘোষিত তিন ফরম্যাটেই ডাক পেয়েছেন এ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। ব্যাট হাতে বেশ কয়েকটি ম্যাচ জেতানো ইনিংসও খেলেছেন তিনি। ১৫ ইনিংসে ১৪৯.৬১ স্ট্রাইক রেটে করেছেন ৩৮৯ রান।

৪) মুমিনুল হক – ডিপিএলে গাজী গ্রুপের হয়ে খেলেছেন মুমিনুল। স্ট্রাইক রেট কম থাকলেও ১৫ ইনিংসে ৩৫ গড়ে করেছেন ৩৮৫ রান। নামের পাশে রয়েছে দুটি অর্ধশতক।

৫) মোহাম্মদ নাঈম – আবাহনীর টানা তৃতীয় শিরোপা জয়ের পেছনে ব্যাট হাতে বড় অবদান রেখেছেন নাঈম। শুরুর কয়েকটি ম্যাচে ওপেনিংয়ে ব্যাট করলেও শেষদিকে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান হিসেবেই খেলেন তিনি। এই ডিপিএলে ১৫ ইনিংসে ২৮.৮৪ গড়ে ৩৭৫ রান করেছেন নাঈম।

৬) নাজমুল শান্ত – ডিপিএলের প্রথম দিকে ব্যাট হাতে ফর্মে না থাকলেও পরবর্তীতে ছন্দ খুঁজে পেয়েছেন শান্ত। এই ডিপিএলে ১৫ ইনিংসে ব্যাট করে ২৬.২৮ গড়ে করেছেন ৩৬৮ রান। ১২৬.৮৯ রেটের পাশাপাশি রয়েছে দুটি ফিফটি।

৭) রনি তালুকদার – ডিপিএলে সেরা রান সংগ্রাহকদের মধ্যে নাম রয়েছে রনি তালুকদারেরও। ব্যাট হাতে খেলেছেন বেশ কয়েকটি ম্যাচ জেতানো ইনিংস। ১৬ ইনিংসে তিন ফিফটিতে ৩৬৭ রান করেছেন প্রাইম ব্যাংকের এ ওপেনার।

৮) সাইফ হাসান – এবারের ডিপিএলে ব্যাট হাতে প্রাইম দোলেশ্বরকে নেতৃত্ব দিয়েছেন সাইফ হাসান। তাঁর দল সুপার লিগ খেললেও ১৪ ইনিংসে ১১৩ স্ট্রাইক রেটে ৩৬৫ রান করেছেন প্রাইম দোলেশ্বরের এ ব্যাটসম্যান।

৯) মোহাম্মদ মিঠুন – রনি তালুকদারের পাশাপাশি সেরা দশ রান সংগ্রাহকের তালিকায় নাম রয়েছে মিঠুনেরও। প্রাইম ব্যাংকের মিডল অর্ডার বেশ ভালোভাবেই সামাল দিয়েছেন তিনি। ব্যাট হাতে ১৬ ইনিংসে ৩০.০৮ গড়ে করেছেন ৩৬১ রান, স্ট্রাইক রেট ১৩০.৭৯।

১০) আনিসুল ইমন – মাহমুদুলের পাশাপাশি শীর্ষ রান সংগ্রাহকের তালিকায় নাম রয়েছে ওল্ড ডিওএইচএসের আরেক ক্রিকেটার আনিসুল হকের। ১৩ ইনিংসে ২৯.৮৩ গড়ে রান করেছেন ৩৫৮।