Score

‘তাদের আত্মবিশ্বাসে আমি আশাবাদী’

আর এক সপ্তাহ পরেই শুরু হবে এশিয়ার সেরা হবার লড়াই। আর এতে অংশ নিতে আগামীকাল (৯ সেপ্টেম্বর) দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এর পূর্বে আজ টাইগার পেসারদের সম্ভাবনা নিয়ে কথা বলেছেন দলের পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ।

 

রুবেল-মুস্তাফিজ-মাশরাফি

বর্তমান বাংলাদেশের পেস বোলিং আক্রমনে তিনজন ক্রিকেটারকে নিয়মিত দেখা যায়। অধিনায়ক মাশরাফির সাথে একাদশে সুযোগ পান রুবেল হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান। সর্বশেষ উইন্ডিজ সফরে তিন পেসারই ভালো করেছেন। তিনজন মিলে ওয়ানডে সিরিজে নিয়েছেন ১৬টি উইকেট (মাশরাফি ৬টি, মুস্তাফিজ ৫টি ও রুবেল ৫টি)। টাইগারদের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ এই তিন পেসারকে নিয়ে দারুণ আশাবাদী।

পেসারদের নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি খুবই আশাবাদী। আক্রমণভাগে সামনে থেকে মাশরাফি নেতৃত্ব দেবে।ও খুবই অভিজ্ঞ। বাকিরা ওকে অনুসরণ করবে। তাছাড়া মুস্তাফিজও ও বেশ আত্মবিশ্বাসী হয়ে ফিরেছে।রুবেলকেও আত্মবিশ্বাসী দেখছি। তাদের আত্মবিশ্বাসে আমি আশাবাদী। তাছাড়া ওরা ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরেও ভাল করেছে। ওয়ানডেতে যা করেছে সেটা আমাদের জন্য বড় অর্জন।’

Also Read - মাশরাফির সাথে অন্যদের পার্থক্য কোথায়? জানালেন ওয়ালশ

উল্লেখ্য, একদিনের ক্রিকেটে ১৯০ ম্যাচে মাশরাফির উইকেট ২৪৫ টি। সেরা বোলিং ফিগার ২৬ রানে ৬ উইকেট। এদিকে ৮৬ ম্যাচে রুবেলের উইকেট ১১২টি। মাশরাফির মতো রুবেলেরও সেরা বোলিং ফিগার ২৬ রানে ৬ উইকেট। আর ৩০ ম্যাচে মুস্তাফিজের উইকেট ৫৬ টি।  সেরা বোলিং ফিগার ৪৩ রানে ৬ উইকেট।

এদিকে এবারের এশিয়া কাপ হবে সংযুক্ত আরব-আমিরাতে। সেখানকার উইকেট কেমন হবে? পেসারদের জন্য কতোটা কঠিন হবে? এই প্রসঙ্গেও কথা বলেছেন ওয়ালশ। তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় না পেস বান্ধব হবে। দুবাই ও শারজার উইকেট ওয়ানডের জন্য ব্যাটিং বান্ধব। তাছাড়া এ জাতীয় টুর্নামেন্টে সবাই রান দেখতে চাইবে। কাজেই বোলারদের জন্য কাজটি খুবই চ্যালেঞ্জিং হবে।’

এখন দেখার বিষয় এমন উইকেটে কেমন পারফর্ম করেন মাশরাফি-রুবেল-মুস্তাফিজরা? ১৫ই সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ দিয়েই এবারের এশিয়া কাপের সূচনা হবে।

[আরও পড়ুনঃ টাইগারদের নিয়ে দারুণ আশাবাদী ম্যানেজার সুজন]

Related Articles

ওয়ালশের শিক্ষা কাজে দেবে পেসারদের

‘বাংলাদেশের সবাই অনেক সহায়ক’

ম্যাশ অ্যাটাকের প্রশংসায় ওয়ালস

ওয়ালস কোচ হওয়ায় উচ্ছ্বসিত সুজন