Score

তামিমের কথাতেই মাথা খুলেছে সৌম্যের!

তামিম-সৌম্যের ঝড়ো সেঞ্চুরিতে উইন্ডিজের বিপক্ষে একমাত্র অনুশীলন ম্যাচে বড় জয় পেয়েছে বিসিবি একাদশ। ম্যাচশেষে নিজের ইনিংস নিয়ে কথা বলেন বামহাতি ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকার। 

 

তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার

 

বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের আগে আজ (বৃহস্পতিবার) একমাত্র অনুশীলন ম্যাচে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় উইন্ডিজ। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ৩৩১ রান করে সফরকারীরা। বড় টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারের সেঞ্চুরিতে বৃষ্টি আইনে ৪ উইকেটের জয় পায় বিসিবি একাদশ। তামিম ৭৩ বলে ১০৭ ও সৌম্য ৮৩ বলে ১০৩ রানে অপরাজিত থাকেন।

Also Read - হার দিয়ে এশিয়া কাপ শুরু বাংলাদেশের

ম্যাচশেষে নিজের ইনিংস সম্পর্কে সৌম্য বলেন, ‘চেষ্টা করেছি প্রপার ওয়েতে যাওয়ার আর যতক্ষণ বেশি উইকেটে থাকা যায়। ওগুলোই চেষ্টা করেছি। ব্যাটিংয়ে নামার পর ইনিশিয়ালি ওরকম কোন প্ল্যান ছিল না। তামিম ভাই ভালো খেলছিল। ওভারে অনেক রান আসছিল। তখন চেষ্টা করেছি তাঁকে আমি যতদূর পারি সাপোর্ট দিয়ে যাই।’

ইনজুরি থেকে ফেরার ম্যাচেই দারুণ খেলেছেন তামিম ইকবাল। ক্রিজের ওপাশ থেকে তামিমের ব্যাটিং দেখেই আত্মবিশ্বাস বাড়ে সৌম্যের। তিনি বলেন, ‘তামিম ভাই ইনজুরি থেকে ফিরেই যেভাবে ব্যাটিং করছিলো মনে হচ্ছিলো না যে উনি খেলার বাইরে ছিল। ওনার অমন ব্যাটিং দেখে নন স্ট্রাইকে থেকে আমার মনে হচ্ছিলো উনি যখন এতো ভালো ব্যাটিং করছেন তখন ওনাকে সাপোর্ট দিলে আমার জন্য অনেক ইজি হবে।’

সৌম্য আরও যোগ করে বলেন,‘ভাই (তামিম) আমার সাথে অনেক কথা বলছিল ওভারের মাঝে, যেগুলো হেল্প করেছে। একটা ভুল শট খেলেছি, তখন ভাই ওটা নিয়ে কথা বলেছে তখন আবার আমার মাথা খুলছে। তখন বুঝেছি আমার সিচুয়েশনটা বোঝা উচিত ছিল, রান অনেক আসছিল। ১০ ওভারে প্রায় ৮০-৯০ এর মতো রান ছিল। ঐ অনুসারেই খেলছিলাম যে ইনিংসটা বড় করি। আর মনে হয়েছিল যদি শেষ পর্যন্ত থাকতে পারি তাহলে ম্যাচটা জিতবো। তো ঐ কনফিডেন্স নিয়েই ব্যাট করেছি।’

উল্লেখ্য, মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম একদিনের ম্যাচে বাংলাদেশ-উইন্ডিজ মুখোমুখি হবে ৯ ডিসেম্বর।

‘[আরও পড়ুনঃ তামিম-সৌম্যর রাজসিক শতকে মাশরাফিদের দাপুটে জয়]

Related Articles

দুইবারের বিশ্ব-চ্যাম্পিয়নদের রুখতে পারবে বাংলাদেশ?

মাশরাফি না থাকায় ক্যারিবীয়দের স্বস্তি

ব্যাটে-বলে ওয়ানডে সিরিজের সেরা যারা

জয়হীন বলে কীর্তি ম্লান হোপের

সিলেটে দুই দলেরই এক প্রতিপক্ষ— শিশির!