Scores

তামিমের রেকর্ড গড়া ইনিংসে বাংলাদেশের রান পাহাড়

দীর্ঘ সময় রান খরায় ভোগা তামিম সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে দেখা পেয়েছেন ক্যারিয়ারের ১২তম শতক। তামিমের পাশাপাশি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৫ রান করেন মুশফিকুর রহিম।

১৫৮ রানের ইনিংস খেলেন তামিম। ছবিঃ বিডিক্রিকটাইম

দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে বড় প্রশ্ন ছিল এই ম্যাচে মুশফিক খেলবেন কী খেলবেন না। তবে সব শঙ্কা দূর করে দ্বিতীয় ম্যাচে রাখা হয় তাকে। প্রথম ওয়ানডের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও আগে টস জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন মাশরাফি মুর্তজা। বরাবরের মতো এই ম্যাচে দলকে ভালো শুরু এনে দেন তামিম ইকবাল ও লিটন কুমার দাস। তবে এদিন ভিন্ন এক তামিমকে দেখা যায় মাঠে।

এতদিন তার ব্যাটিং ধরণ নিয়ে কড়া সমলোচনা হলেও দ্বিতীয় ম্যাচের শুরু থেকেই আগ্রাসী ব্যাটিং করেন তামিম। তার ব্যাটিং দেখে একটা সময় মনেই হয়েছিল এই যেন পুরনো তামিম ফিরে এসেছে। তবে দারুণ ছন্দে থাকা লিটন আউট হন অনেকটা দুর্ভাগ্যবশত। দলীয় ৩৮ রানে কার্ল মুম্বার বলে রান আউটের শিকার হন লিটন। শান্তও শিকার হন রান আউটের। তবে দলের ব্যাটিং হাল ধরেন তামিম ও মুশফিক মিলে। তামিমের পাশাপাশি আগ্রাসী ব্যাটিং করেন মুশফিকও।

Also Read - নিরুত্তাপ দলবদলে রেজিস্ট্রেশন সারলেন প্রাইম ব্যাংকের '৯' ক্রিকেটার


ব্যক্তিগত ৪২ বলে ফিফটি তুলে নেন তামিম। দুইজনেই বেশ দায়িত্ব নিয়ে ব্যাটিং করেন। তামিমের পর ফিফটি তুলে নেন মুশফিকও। তবে ফিফটির পর মাধেভেরেকে ছয় হাঁকাতে গিয়ে বাউন্ডারি লাইনে ৫৫ রান করে সাজঘরে ফিরেন মুশফিক। সেই সাথে ভাঙে তামিম-মুশফিকের ৮৭ রানের জুটি। মুশফিকের বিদায়ের পর দলের রানের চাকা কিছুটা স্লো হলেও তামিম ও মাহমুদউল্লাহ মিলে দলীয় সংগ্রহ বড় করতে থাকেন।

এই ম্যাচের মধ্যে দিয়ে তামিম ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৭০০০ রান পূর্ণ করেন। রান খরায় ভুগতে থাকা তামিম সেঞ্চুরির দেখা পান দীর্ঘ ১৯ মাস পরে। উইলিয়ামসের করা ৩৬তম ওভারের শেষ বলে দুই রান নিয়ে ক্যারিয়ারের ১২তম শতক হাঁকান তামিম। ১০৬ বলে সেঞ্চুরি হাঁকালেও পরবর্তীতে ফের আগ্রাসী ব্যাটিং করেন তামিম। তার সঙ্গে দলের রান বাড়ান মাহমুদউল্লাহও। দুইজনের গড়া ১০৬ রানের জুটি ভাঙেন শুমা। দলীয় ২৫৮ রানে শুমার বলে বাউন্ডারি লাইনে দারুণ এক ক্যাচ ধরেন মাধেভেরে। আউট হওয়ার আগে রিয়াদ করেন ৪১ রান। তবে তামিম থেমে থাকেননি।

আগ্রাসী ব্যাটিং দিয়ে এগোতে থাকেন দেড়শর দিকে। দেড়শ পূরণ হলে ভাঙেন নিজের আগের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটাও। আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৫৪ রান করেছিলেন তামিম। তবে তার ইনিংস থামে ১৫৮ রানে। ১৩৬ বলে ১৫৮ রানের ইনিংস খেলে মুম্বার বলে আউট হন তামিম।

শেষ দিকে মিঠুনের অপরাজিত ৩২ রানের উপর ভর করে ৩২২ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের হয়ে দুইটি করে উইকেট লাভ করেন মুম্বা ও তিরিপানো।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশ ৩২২-৮ (ওভার ৫০)

তামিম ১৫৮, মুশফিক ৫৫: তিরিপানো ২-৫৫

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

অধিনায়ক হিসেবে যে হারটা সবচেয়ে বেশি ‘কষ্ট’ দেয় মাশরাফিকে

ওয়ানডে ইতিহাসে বাংলাদেশের রেকর্ড জয়

‘তামিম-মুশফিকদেরও কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি হতে হবে’

পেস বোলারদের ইঞ্জুরির গ্যারান্টি দেওয়া সম্ভব না : সাইফউদ্দিন

জিম্বাবুয়েকে খাটো করে দেখতে নারাজ সাইফউদ্দিন