তামিমের শটে হাড় ভাঙলেও নিজেকেই দুষছেন নাফিস

0
796

২০০৭ সালে ছোট ভাই তামিম ইকবালের মারা বল সরাসরি আঘাত করে নাফিস ইকবালের কপালে। এতে চোখের উপড়ের হাড় ভেঙে যায় নাফিসের। সেই চোট কাটিয়ে ফিরতে লম্বা সময় লাগে তার। তবে দুর্ঘটনার জন্য তামিমকে নয়, বরং নিজেকেই দুষছেন নাফিস।

না খেয়ে তামিমের জন্য টাকা জমাতেন নাফিস

Advertisment

বেশ প্রতিশ্রুতি নিয়ে বাংলাদেশ দলের জার্সি গায়ে চাপিয়েছিলেন নাফিস। তবে নিজের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারটা বড় করতে পারেননি এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। ঠিক যে সময় নিজেকে মেলে ধরবেন, তখনই বড়সড় এক ইঞ্জুরিতে পড়তে হয় নাফিসকে। সেই চোট কাটিয়ে ফিরতে দীর্ঘসময় লেগে যায় তার।





২০০৭ বিশ্বকাপের আগে ইনডোরের নেটে ব্যাটিং শেষে দাঁড়িয়ে ছিলেন নাফিস। সেই সময় ছোট ভাই তামিমের মারা একটি বল সরাসরি কপালে আঘাত করে নাফিসের। ৩ জুন বিডিক্রিকটাইমের ঈদ আড্ডায় অতিথি হয়ে এসে সেই ঘটনার স্মৃতিচারণ করেন চট্টগ্রামের এই ক্রিকেটার।

নাফিস বলেন, ‘এটা একটা দুর্ঘটনা ছিল। সেই সময় বিশ্বকাপের জন্য ৩০ সদস্যের একটা ক্যাম্প চলছিল। আমি আর তামিম একটু আগেই চলে গিয়েছিলাম। তালহা জুবায়ের ছিল সেখানে। আমি আগে ব্যাট করে তালহা জুবায়েরের সাথে কথা বলছিলাম। তামিম তখন নেটে ব্যাট করে।’






সেদিন ঠিক কী হয়েছিল জানান নাফিস, ‘তামিম কিন্তু ছোটবেলা থেকেই অনেক জোরে জোরে শটস খেলে। সেদিন ও ডাউন দ্য উইকেটে এসে একটা বল মেরেছিল, যেটা সরাসরি এসে আমার মুখে লাগে। ওখান থেকে আমাকে সরাসরি হাসপাতালে নেওয়া হয়। এরপর জানলাম, আমার চোখের উপরের হাড় ভেঙে গেছে, ওখানে প্লেট বসাতে হবে। আসলে এটা খারাপ একটা স্মৃতি।’

সেই ঘটনার জন্য তামিমকে দোষ দিতে নারাজ নাফিস, ‘দেখেন যার কাছ থেকেই লাগতো তারই কিন্তু বিষয়টা খারাপ লাগার কথা। আর সেদিন আসলে তামিমের কোন ভুল ছিল না, ভুলটা আমারই ছিল। কারণ, তামিম যে নেটে ব্যাট করছিল ঠিক তার সোজাসুজি আমি দাঁড়িয়ে ছিলাম।’

‘আসলে এখানে অনুতপ্ত হবার কিছু নাই। তারপরও সেই সময় তামিমের সাথে আমার এই বিষয়ে কথা হয়েছিল, ও তখন খুবই ছোট বলা যায়। এটা আসলে হয়ে গেছে। দুর্ঘটনা ছিল বলতে হবে। এমন না যে ওর কারণেই বিষয়টা হয়েছে। দোষটা আমারই ছিল।’– সাথে যোগ করেন তিনি।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।