Score

তামিম বলেই বিশ্ব মিডিয়ায় এত আলোচনা নেই!

আঙুলের চোটের কারণে এশিয়া কাপ শেষ বাংলাদেশ দলের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবালের। শুধু এশিয়া কাপই নয়, মিস হতে পারে জিম্বাবুয়ে সিরিজও। তামিম যে দৃষ্টান্ত প্রতিস্থানপন করেছেন সেটি ইতিহাস হয়ে থাকবে বাংলাদেশ ক্রিকেটে। তবে তার সতীর্থ মুশফিক আফসোস করছেন সেখানেই। তামিমের এমন দৃষ্টান্ত নিয়ে বিশ্ব মিডিয়ায় নেই কোন হৈচৈ।

তামিমের সাহসী সিদ্ধান্তে অবাক ম্যাথুজও

এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে পেসার সুরঙ্গা লাকমলের বলে আঙুলে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন তামিম। এই ওপেনার না থাকাতে ‘৯’ উইকেটেই ইনিংস শেষ হয়ে যাওয়ার কথা বাংলাদেশের। মিঠুন বাদে দলের সবাই যখন একেক করে সাজঘরে ফিরছিলেন তখন একপাশ থেকে দলকে টেনে তুলছিলেন মুশফিকুর রহিম।

আঙুলে চোট পাওয়ার পর ব্যান্ডেজ নিয়ে ড্রেসিং রুমে দলের এই করুণ অবস্থা দেখছিলেন তামিম। দলের ১০ নম্বর ব্যাটসম্যান রুবেল যখন ক্রিজে তখন ঠিক করেন ভাঙা আঙুল নিয়েই নামবেন তামিম তবে অবশ্যই মুশফিক অপরপ্রান্তে থাকলে। মুস্তাফিজের আউটের পর ব্যাট নিয়ে ক্রিজে নামের তামিম। তারপরের টুকু ইতিহাস। তামিমকে দেখে উৎসাহ পেয়েছেন মুশফিকও।

Also Read - ‘গত চার দিনে ২৫টি ব্যথানাশক ট্যাবলেট খেয়েছি’

মুশফিক যোগ করলেন ৩২ রান। তামিমের এক হাত নিয়ে ফেস করেছেন লাকমলের একটি বলও। এক হাত দিয়ে ব্যাট করায় বাংলাদেশের দর্শকদের মনে তামিম যে জায়গায়টা করে নিয়েছেন তার উল্টো বিশ্ব মিডিয়ায়। তামিমের এই দৃষ্টান্ত প্রতিস্থাপন বিশ্ব মিডিয়ায় অত আলোচনা না হওয়ায় আক্ষেপ করেছেন মুশফিক। বাংলাদেশ দল বলেই আলোচনা হয়না জানিয়েছেন তিনি।

“তামিমের সিদ্ধান্ত সারা বিশ্বেই অনেক সম্মান পাবে। দলের প্রতি বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের যে নিবেদন, সেটা আসলে খুব কম মানুষই জানে। গ্রায়েম স্মিথ সিডনিতে ভাঙা হাত নিয়ে খেলতে নামলে বিরাট ব্যাপার হয়ে যায়, কিন্তু আমাদের তামিম নামলে কিছু হয় না। আফসোসটা এ জায়গাতেই। হয়তো আমরা বাংলাদেশ দলে খেলি বলেই আমাদের নিয়ে ওই রকম আলোচনা হয় না।”

তিনি আরও যোগ করেন, “তবে আমরা নিজেরা অন্তত জানি কে কী রকম। দলের মধ্যে আমরা সবাই সবাইকে সম্মান করি। এটাই আমাদের আনন্দ।”

তবে তামিমকে ঘিরে বিশ্ব মিডিয়ায় আলোচনা হোক কিংবা না হোক এখন থেকে এমন দৃষ্টান্ত প্রতিস্থাপনের জন্য গ্রায়েম স্মিথ, মার্শাল ম্যালকমদের পাশে নাম থাকবে তামিমের। তবে যেটিই হোক মুশফিক তো বলেই দিয়েছেন দলের মধ্যে সবাই যেভাবে একে অপরকে সম্মান করে এবং বেশ ভালোভাবে বুঝে সেটিই বড় তার কাছে।

আরও পড়ুনঃ ‘গত চার দিনে ২৫টি ব্যথানাশক ট্যাবলেট খেয়েছি’

Related Articles

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’

এক নয় মাশরাফির তিন ইনজুরি