তাসকিনের বোলিং তোপ, ব্যাটিং বিপর্যয়ে স্বাগতিকরা

ড. ডিওয়াই পাতিল ক্রিকেট অ্যাকাডেমির ৩৩১ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ৩০৬ রানে অল-আউট হয়েছে বিসিবি একাদশ। ২৫ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করলেও স্বস্তিতে নেই স্বাগতিকরা। তাসকিন আহমেদ ও শহিদুল ইসলামের বোলিং তোপে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে দলটি।

নিউজিল্যান্ডেই যাওয়া হচ্ছে না তাসকিনের!
স্কোরবোর্ডে ৩৫ রান জমা করতেই তিন উইকেট হারিয়ে বসেছে দলটি। ইনিংসের প্রথম ওভারে বিসিবি একাদশকে প্রথম সাফল্য এনে দেন তাসকিন। ১ রান করা হার্দিককে সরাসরি বোল্ড করে প্রতিপক্ষ শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন তিনি। ৪ বল ব্যবধানে দলীয় ১৮ রানেই দ্বিতীয় উইকেটের পতন ঘটে দলটির।

এ যাত্রায় আঘাত হানেন আরেক পেসার শহিদুল। তিনি ফেরান মানন ভোহরাকে। আউটের আগে এ ব্যাটসম্যান করেন ৩ চারে ১২ রান। তৃতীয় উইকেট জুটিতে প্রতিরোধ গড়তে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে শুভম ও সারদেশাই। তবে তা সফল হতে দেননি তাসকিন। ব্যক্তিগত ষষ্ঠ ওভারে এসে শুভমকে বোল্ড করে থামিয়ে দেন তাদের এ প্রচেষ্টা।

Advertisment

এর আগে দ্বিতীয় দিনের ৫ উইকেটে করা ২৬১ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করে বিসিবি একাদশ। শুরুতেই ২৬ রান করা সাইফের উইকেট হারায় সফরকারীরা। অনেকটা একা হাতে লড়তে থাকা নুরুল হাসান সোহান বিদায় নেন এর কিছু মুহূর্ত পরেই। ব্যক্তিগত ৮৭ রানে তিনি আউট হলে দলীয় ২৯১ রানে সপ্তম উইকেট হারায় বিসিবি একাদশ।

তার বিদায়ের পর শেষদিকের ব্যাটসম্যানরা ব্যর্থ হয় ব্যাট হাতে চমক দেখাতে। মাত্র ১৫ রানের ব্যবধানে বাকি ৩ উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারীরা। যার ফলে দলীয় ৩০৬ রানে থামে বিসিবি একাদশের প্রথম ইনিংস।

প্রতিপক্ষ শিবিরের বোলারদের মধ্যে মুকেশ সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন। বাকি বোলারদের মধ্যে আকিব, সাইরাজ ও নওশাদ প্রত্যকেই লাভ করেন দুটি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ড. ডিওয়াই পাতিল ক্রিকেট অ্যাকাডেমি
(১ম ইনিংস): ১০২.৫ ওভারে ৩৩১/১০
সারদেশাই ১২৮, শুভম ৫০, আমান ৪৩; তাইজুল ৩৩.৫-৭-১৪৪-৬,তাসকিন ২৩-৫-৪৭-২, শহিদুল ২০-৪-৪২-১, নাঈম ১৮-৩-৭০-১, আরিফুল ৮-৩-১৯-০।

বিসিবি একাদশ (১ম ইনিংস): .৩০৬/১০
জহুরুল ৪৪, সাদমান ৪৯, মুমিনুল ১৮, শান্ত ৩৪, সোহান ৮৭, আরিফুল ১৪, সাইফ ২৭, নাঈম ১০, তাইজুল ২, শহিদুল ০, তাসকিন ১; মুকেশ ১৬-২-৬৫-৩।