SCORE

তুষারের কাছে ‘এ’ দল ফিরে আসার মঞ্চ

ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের পারফরম্যান্স বিচারে তুষার ইমরান দেশের সেরা ব্যাটসম্যান। দেশের ক্রিকেটের ব্যাটিং রেকর্ডের অধিকাংশই তার দখলে। সম্প্রতি তার পারফরম্যান্সও চমক জাগানোর মত।

তুষার ইমরান।
তুষার ইমরান। ছবিঃ গেটি ইমেজ

অবশেষে জাতীয় পর্যায়ে ডাক পেয়েছেন তুষার। সেটি জাতীয় দল না হলেও জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের নিয়ে গড়া ‘এ’ দলের জন্য। চলতি মাসেই শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে মাঠে নামবে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। সেখানে বাংলাদেশের অন্যতম বড় অস্ত্র তুষার ইমরান।

৩৪ বছর বয়সে তুষার এখনও দেখেন জাতীয় দলের স্বপ্ন। আর সেই স্বপ্নের পথে সিঁড়ি হয়েই যেন এসেছে ‘এ’ দলের ডাক। অন্তত এমনটিই মনে করেন তুষার নিজে।

Also Read - অস্ট্রেলিয়ার চেয়েও এগিয়ে টাইগাররা

‘এ’ দলকে তিনি আপাতত দেখছেন তার ফিরে আসার মঞ্চ হিসেবে। তুষার বলেন,

আমি মনে করি দলে খেলা আমার জন্য ফিরে আসার মঞ্চএখানে যদি আমি পারফরম্যান্স করে যেতে পারি তাহলে জাতীয় দলে ফিরতে পারবো ইনশাআল্লাহ।’

দলে সুযোগ পেতে পারফরম্যান্সের বিকল্প নেই, এটি ভালো করেই জানেন তুষার। তিনি বলেন, ‘যারা পারফরম্যান্স করবে তারাই সুযোগ পাবে। আমার কাজ হচ্ছে সুযোগ পেলে রান করা। সেই সঙ্গে আমার অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এমন কিছু করতে চাই যেন সেটি দলের উপকারেই আসে। আমি আত্মবিশ্বাসী নিজের পারফরম্যান্স দিয়ে দলের জন্য কিছু করতে।’

জাতীয় দলের জার্সি গায়ে তুষার খুব একটা সফল হতে পারেননি। টেস্ট ক্যারিয়ার শেষ হয়েছে মাত্র ৫ ম্যাচেই। আর সেই ৫ টেস্টের সবশেষটি তুষার খেলেছেন ২০০৭ সালের জুলাইয়ে। সেই বছরেরই শেষ দিনে খেলেছেন ৪১টি ওয়ানডে ম্যাচের সবশেষটি। এরপর আর সুযোগ মেলেনি জাতীয় দলের পোশাকে।

ঘরোয়া ক্রিকেটে অবশ্য নিয়মিত পারফর্ম করে থেকেছেন আলোচনায়। সেই পারফরম্যান্সকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছেন গত কয়েক মৌসুমে। ঘরোয়া বড় দৈর্ঘ্যের ম্যাচে হয়ে উঠেছেন রান মেশিন। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ছুঁয়েছেন ১০ হাজার রানের মাইলফলক। তার ২৮ সেঞ্চুরিও বাংলাদেশের রেকর্ড। গত মৌসুমে করেছেন এক মৌসুমে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ডটিও।

আরও পড়ুনঃ বল টেম্পারিংয়ের শাস্তির বিরুদ্ধে চান্দিমালের আপিল

Related Articles

কাঠগড়ায় এবার ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজ’ পদ্ধতি

৬ মাসেও পরিশোধ হয়নি অলকদের বকেয়া

বদলে যাচ্ছে লঙ্গার ভার্সনের চেহারা

“ভালো করার স্পৃহা থাকতে হবে”

“আব্বা থাকলে সবচেয়ে বেশি খুশি হতেন”