তৃতীয় বিভাগে নির্লজ্জ আম্পায়ারিং, আঙুল ক্ষমতাবানদের দিকে

বাংলাদেশের ক্রিকেটে দ্বিতীয় ও তৃতীয় বিভাগে ম্যাচ পাতানো ও আম্পায়ারদের পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ বের হয়ে আসছে অশনি সংকেত হিসাবে। এই ক্রিকেটাররাই হয়ত আগামী দিনে দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন। কিন্তু দলের ক্ষমতাবান কর্মকর্তাদের আঙুলের ইশারায় চলছে ম্যাচের মূল্যায়ন এবং এই বিশৃঙ্খলার অভিযোগ উঠছে আম্পায়ারদের বিরুদ্ধে।

তৃতীয় বিভাগে নির্লজ্জ আম্পায়ারিং, আঙুল ক্ষমতাবানদের দিকে

বাংলাদেশের জনপ্রিয় স্যাটেলাইট চ্যানেল বাংলাভিষণের  ক্যামেরায় উঠে এসেছে তৃতীয় বিভাগ ক্রিকেটের এক ম্যাচে আম্পায়ারদের পক্ষপাতিত্বের চিত্র। কাঁঠাল বাগান ক্রিসেন্ট ক্লাব ও গুলশান ক্লাবের মধ্যকার ম্যাচে প্রভাবশালী গুলশানের পক্ষে কাঁঠাল বাগানের খেলোয়াড়দের জোরপূর্বক আউট দেয়ার অভিযোগ আম্পায়ারদের বিপক্ষে।

Also Read - স্মিথের জন্য যে অভিজ্ঞতা এবারই প্রথম


তৃতীয় বিভাগের এই টুর্নামেন্ট শেষে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দুই দল উঠে যাবে দ্বিতীয় বিভাগে। যেখানে গুলশানের অবস্থান তিনে এবং কাঁঠাল বাগান চারে। অর্থাৎ দ্বিতীয় বিভাগে উঠতে হলে ম্যাচ জেতার বিকল্প ছিল না গুলশানের। দলটির ম্যাচ অফিসিয়ালরা প্রভাবশালী হওয়ায়। তাদের পক্ষে ম্যাচের ফলাফল আনতে আম্পায়ারদের ওপর চাপ করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। নিরপেক্ষতার দায়িত্ব ভুলে নির্লজ্জের মতো ক্ষমতাবানদের পক্ষ নিয়েছেন আম্পায়াররাও।

এই দুই দলের মধ্যকার ম্যাচে আগে ব্যাটিং করে গুলশান সংগ্রহ করে ১৭৫ রান। গুলশানের ইনিংসের তেমন সন্দেহজনক কিছু চোখে পড়ে না। কিন্তু কাঁঠাল বাগান ব্যাটে নামার পর থেকেই আম্পায়ারদের পক্ষপাতিত্ব দেখা যায়। বল ব্যাটে না লাগলেও, গুলশানের উইকেটরক্ষক আবেদন করতেই দেয়া হয় ক্যাচ আউট। এমনকি গুলশানের ফিল্ডাররা আবেদন না করলেও আম্পায়ার এক আঙুল উঁচিয়ে ধরেছেন।

কাঁঠাল বাগানের এক ব্যাটসম্যান অভিযোগ করেন, ‘দুই-তিনটা বল পরে একটা বল খেলতে পারিনি। বলটা অনেক দূর থেকে যায়, ওয়াইড ছিল। ওদের উইকেটরক্ষক বলটা নিয়ে আবেদন করতেই আম্পায়ার আউট দিয়ে দেয়। আমি তখনো উইকেটে দাঁড়ায়েই ছিলাম। তখন লেগ আম্পায়ার বলে, “দাঁড়ায়ে আছিস কেন? যা।” তখন আমি মাথা নিচু বের হয়ে গেছি।’

গ্যালারিতে বসে থাকা দর্শকরাও এই পক্ষপাতিত্বের কথা বলেছেন। তাদের ভাষায়, কিছু আউট একেবারেই অসঙ্গতিপূর্ণ ছিল। তারা বলেছেন, ক্রিকেট মাঠে এমন কাণ্ডে তারা হতাশ। আর কখনো তারা খেলা দেখতে আসবেন কিনা সেই বিষয়েও সংশয় প্রকাশ করেছেন।

এখানকার আম্পায়ার, ম্যাচ রেফারি, মাঠকর্মীদের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কাঁঠাল বাগানের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সরোয়ার। তাদের ক্রিকেটজ্ঞান নিয়েও সরোয়ার অভিযোগ করেছেন। তাদের অধিকাংশেরই আগে থেকে ক্রিকেটে সংশ্লিষ্ট ছিল না বলে অভিযোগ, কাঁঠাল বাগানের সাধারণ সম্পাদকের।

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন