Score

দায় নিজের কাঁধেই নিচ্ছেন ওয়ার্নারের স্ত্রী ক্যানডিস

সময়টা ভালো যাচ্ছেনা অস্ট্রেলিয়া দলের ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারের। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কেপটাউনে তৃতীয় টেস্টে বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগ উঠে তার নামে। ফলে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তাকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে। শুধু এটিই নয়, স্মিথের ভাষ্য অনুযায়ী লিডারশীপ গ্রুপই এটা সম্পর্কে জানত। পরবর্তীতে জানা যায় বল টেম্পারিংয়ের মূল পরিকল্পনাকারী ছিলেন ওয়ার্নারই।

দায় নিজের কাঁধেই নিচ্ছেন ওয়ার্নারের স্ত্রী ক্যানডিস

বল টেম্পারিংয়ের ঘটনা নিয়ে কথা বলতে শনিবার সংবাদ সম্মেলনে আসেন এই অজি ওপেনার। তবে উত্তর দেননি অনেক কিছুরই। ওয়ার্নারের এই কাণ্ডের প্রভাব পড়েছে তার পরিবার ও স্ত্রী ক্যানডিস ওয়ার্নারের উপরও। এই জন্য শনিবার সংবাদ সম্মেলনে সহধর্মিণী ক্যানডিসের কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন ওয়ার্নার।

Also Read - মিজানুরে ম্লান আশরাফুলের 'রেকর্ড' শতক

সব মিলিয়ে ভালো নেই এই অজি ওপেনার। তবে ওয়ার্নারের এই পরিস্থিতির জন্য নিজেকেই দায়ী করছেন ক্যানডিস ওয়ার্নার। তিনি বলেন, মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়েই এই কাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত হয়েছিল ওয়ার্নার। স্বামীর এই বড় দুঃসময়ের সবচেয়ে কাছে বন্ধু তো তার সহধর্মিণীই।

আমি নিশ্চিত, সে যা যা বলতে চেয়েছিল পারেনি। সে ভীষণ কষ্টে আছে। কোনো কিছু চিন্তা করার মতো অবস্থায়ও নেই ও। মনে হচ্ছে, সব ভুল আমারই এবং এটা ভেবে শেষ হয়ে যাচ্ছিসত্যিই শেষ হয়ে যাচ্ছি। আমি সত্যিই ভালো নেই। সবাই যদি বুঝতে পারত যে মাসটা সে পার করল, সেটা বুঝে সবাই যদি একটু সমব্যথী হতো।

এই কথার সারমর্ম বুঝতে হলে একটু পেছনে যেতে হবে। চলমান টেস্ট সিরিজেই আরেক বিতর্কর সাথে জড়িত ছিলেন ওয়ার্নার। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় ড্রেসিং রুমে যাওয়ার পথে ডি ককের সঙ্গে কথার লড়াই চালাচ্ছেন ওয়ার্নার। সেখানেই ডি কক, ওয়ার্নারের স্ত্রী ক্যানডিসের সাবেক প্রেমিকের কথা তুলে ধরেন ওয়ার্নারের সামনে।

অবশ্য এটি ছড়িয়ে গেলে মাঠে নানানভাবে ওয়ার্নার এবং তার স্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তি করে দর্শকরা। শুধু এটিই নয় ক্যানডিসের সাবেক প্রেমিক নিউজিল্যান্ডের রাগবি খেলোয়াড় সনি বিলের মুখোশ পরে মাঠে আসে দর্শকরা। সেই দুঃসময় ওয়ার্নার কীভাবে কাটিয়েছেন সেটি জানান ক্যানডিস।

‘মাঠে মানুষ মুখোশ পড়ে আসত, আমার দিকে তাকিয়ে থাকত আর হাসত, বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি করত, আমায় নিয়ে গানও গাইত। আমার বসে বসে সেসব শুনতে হত।’ এমনকি মাঠের দুই কর্মকর্তাও সেই মুখোশ পড়াদের সাথে ছবি দিয়েছিলেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এর জন্য দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড ক্ষমাও চেয়েছিল।’

ক্যানডিস আরও যোগ করেন, ডেভ (ওয়ার্নার) খেলা থেকে ঘরে এসে দেখত বেডরুমে আমি কাঁদছি। আর মেয়েরা তাদের মায়ের দিকে তাকিয়ে আছে। আমি কাঁদতেই থাকতাম। আমার কিছু করার ক্ষমতা ছিল না তখন। তার এর সাথে আপোস করতে হয়েছে। এটা খুব কঠিন একটা বিষয়, কারণ আমার মনে হয় সব দোষ আমারই।

আরও পড়ুনঃ ওয়ার্নারকে মিস করবেন মুস্তাফিজ

Related Articles

আইপিএলে খেলতে হলে অজিদের সামনে তিন শর্ত

উঠে যাচ্ছে স্মিথ-ওয়ার্নার-ব্যানক্রফটের নিষেধাজ্ঞা?

অস্ট্রেলিয়ার টি-২০ দলে ফিরলেন বেহরেনডোর্ফ

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার স্লোগান শোনে ওয়ার্নের বমি আসে!

পদত্যাগ করলেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চেয়ারম্যান