Scores

দিনভর বৃষ্টিও বাঁচাতে পারল না বাংলাদেশকে

চট্টগ্রাম টেস্টের ফলাফলটা চতুর্থ দিন শেষেই ছিল অনুমেয়। সফরকারী আফগানিস্তান পাচ্ছিল তাদের দ্বিতীয় টেস্ট জয়ের সুবাস। ম্যাচ বাঁচাতে হলে বাংলাদেশকে করতে হতো অবিশ্বাস্য কিছু।  চার উইকেট হাতে নিয়ে সারাদিন টিকে থাকার সেই অত্যন্ত কঠিন কাজটাতে সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছিল বৃষ্টি। দিনভর বৃষ্টি হলেও বাঁচতে পারেনি বাংলাদেশ। শেষ বিকেলে ব্যাটিং করতে নেমে হেরে এসেছে রেকর্ড গড়ে!

সাকিব-সৌম্য

ক্রিকেটের প্রথম টেস্ট দল হিসেবে দশ দলের কাছে পরাজিত হয়েছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে নবীন আফগানিস্তান মাত্র তৃতীয় টেস্টেই পেল দ্বিতীয় জয়ের স্বাদ। ভাগ বসিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে কম ম্যাচ খেলে দ্বিতীয় টেস্ট জয়ের রেকর্ডে।

Also Read - বৃষ্টি থেমেছে চট্টগ্রামে, মাঠে নামছে দুইদল


দিনের শুরু থেকেই ছিল বৃষ্টি। চট্টগ্রামের আকাশ ছিল মেঘে ঢাকা। তবে সেই আকাশ যত আঁধার হচ্ছিল বাংলাদেশ তত আলোর রেখা দেখছিল যেন। দুপুর বারোটার পর বৃষ্টি থামলে পিচের কাভার উঠিয়ে নেওয়া হয়। মাঠ প্রস্তুত করে দুপুর একটায় শুরু করা হয় হয় খেলা। দুই ওভার এক বল খেলা হওয়ার পর আবার বাগড়া দেয় বৃষ্টি। সেই ১৩ বলে কোনো বিপদ ঘটতে দেয়নি বাংলাদেশ। সেই বৃষ্টি বাংলাদেশের জন্য ছিল স্বস্তিদায়ক। আর আফগানিস্তানকে করে তুলছিল অস্থির।

প্রায় টানা দুই ঘণ্টা অবিশ্রান্ত ঝরার পর বিকেল তিনটার দিকে থেমে যায় বৃষ্টি। আবার ব্যস্ত হন জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের গ্রাউন্ডসম্যানরা। বিকেল ৪ টা ২০ এ শুরু হয় খেলা।   ১৮ ওভার ৩ বল খেলা হওয়ার সময় ছিল তখন।

মেঘাচ্ছন্ন আকাশের নিচে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশের দুই ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসান আর সৌম্য সরকার। প্রথম বলেই ঘটে বিপত্তি। দলের রান ছিল ১৪৩। জহিরক হানের অফ স্টাম্পের অনেক বাইরের বল তাড়া করতে কাট গিয়ে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ দিয়ে  সাজঘরে ফিরেন সাকিব আল হাসান। যখন উইকেট আগলে রাখাই ছিল একমাত্র দায়িত্ব তখন অধিনায়ক সাকিবের আগ্রাসী শট খেলার মনোভাব ছিল অপ্রত্যাশিত।

আট নম্বরে নামা মেহেদী হাসান মিরাজ শুরু থেকেই ধুঁকছিলেন। ব্যাটে-বলে হচ্ছিল না তার। তবুও সৌম্য সরকারকে নিয়ে ক্রিজে ছিলেন কিছু সময়। দলীয় ১৬৬ রানের মাথায় রশিদের লেগ ব্রেকে পরাস্ত হন মিরাজ। বল প্যাডে আঘাত হানার পর আবেদনে সাড়া দিয়ে আঙুল তুলেন মিরাজ।  নিজের উইকেটের সাথে বাংলাদেশের পুঁজিতে থাকা শেষ রিভিউটাও হারিয়ে মাঠ ছাড়েন মিরাজ। তখনো সময় বাকি ৯ ওভার ৩ বলের।

নিজের পরের ওভারে এসে রশিদ খান তুলে নেন তাইজুল ইসলামের উইকেট। বল প্যাডে লাগার আগে তাইজুলের ব্যাটে লাগলেও রিভিউ না থাকায় আফসোস নিয়েই সাজঘরে ফিরতে হয় তাইজুলকে।

আট ওভার খেলার সময় যখন বাকি বাংলাদেশের হাতে তখন শেষ উইকেট। ক্রিজে নাঈম হাসান ও সৌম্য সরকার। সৌম্য সরকারের ব্যাটের কানায় লেগে বল দুয়েকবার হাওয়ায় ভাসলেও সেগুলো ফিল্ডার পর্যন্ত পৌঁছানোর আগেই মাটি স্পর্শ করলে অপেক্ষা বাড়তে থাকে আফগানিস্তানের।

৬২ তম ওভারের তৃতীয় বলে এসে রশিদ খান শেষ পেরেকতা ঠুকে দেন কফিনে। স্বীকৃত ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকারকেই ফেরান তিনি। ইনসাইড এজ হয়ে বল চলে যায় ইব্রাহিম জাদরানের হাতেই। সঙ্গেই সঙ্গেই জয়োল্লাসে মাতে আফগানরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর : আফগানিস্তান ৩৪২ (প্রথম ইনিংস), ১১৭ ওভার
রহমত ১০২, আসগর ৯২, রশিদ ৫১, আফসার ৪১
তাইজুল ৪/১১৬, নাঈম ২/৪৩, সাকিব ২/৬৪, রিয়াদ ১/৯

বাংলাদেশ ২০৫ (প্রথম ইনিংস), ৭০.৫ ওভার 
মুমিনুল ৫২, মোসাদ্দেক ৪৮*, লিটন ৩৩, সৌম্য ১৭
রশিদ ৫/৫৫, নবী ৩/৫৬, ইয়ামিন ১/২১, কায়েস ১/২২

আফগানিস্তান ২৬০/১০ (দ্বিতীয় ইনিংস), ৯০.১ ওভার
ইব্রাহিম ৮৭, আসগর ৫০, আফসার ৪৮*, রশিদ ২৪
সাকিব ৩/৫৮, ম্মিরাজ ২/৩৫, নাঈম ২/৬১, তাইজুল ২/৮৬

বাংলাদেশ ১৭৩/১০ (দ্বিতীয় ইনিংস), ৬১৪ ওভার
সাকিব ৪৪, সাদমান ৪১, মুশফিক ২৩, সৌম্য ১৫
রশিদ ৬/৪৯, জহির ৩/৫৯, নবী ১/৩৯

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

কোন দিকে যাবেন বুঝতে পারছেন না মোসাদ্দেক!

নেতৃত্ব না দিতে হলেই ভালো সাকিবের

বাংলাদেশ দলকে একহাত নিলেন শামীম চৌধুরী

এবার মুখের কথায়ও আফগানদের হুংকার!

‘সাকিব-ভক্ত’ কারাগারে, রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ