দিবা-রাত্রির টেস্টে বাংলাদেশ সহ এশিয়ার দেশগুলোর 'গুরুতর সমস্যা'

বর্তমান ক্রিকেটবিশ্বে অন্যতম আলোচিত বিষয় দিবা-রাত্রির টেস্টে। ফ্লাডলাইটের নিচে সাদা পোশাকের লড়াইয়ের যাত্রা ইতিমধ্যে শুরু হলেও মানিয়ে নিতে কোন দলের কেমন সুবিধা-অসুবিধা হবে তা নিয়ে আলোচনা চলছে। শ্রীলঙ্কার সাবেক ক্রিকেটার ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের বর্তমান সদস্য মাহেলা জয়াবর্ধনে মনে করেন এশিয়ার দলগুলো দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলতে গিয়ে গুরুতর সমস্যার মধ্যে পড়বে।

Pink ball of Day night test natch

শ্রীলঙ্কার হয়ে ১৪৯ টেস্ট খেলার অভিজ্ঞসমৃদ্ধ মাহেলা জয়াবর্ধনে শিশিরকে সবচেয়ে বড় সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। টেস্টে ৩৪ শতক ও ১১৮১৪ রানের মালিক জয়াবর্ধনে স্পোর্টসস্টার ম্যাগাজিনে তার কলামে এমনটি লিখেন।

Also Read - এক পায়ে প্যাড পড়েই অর্ধশত!


জয়ার্বধনের মতে দিবা-রাত্রির টেস্টের সাথে বিশেষত এশিয়ার যে দলগুলো পরিচিত হতে চাচ্ছে তাদের জন্য এটি মুশকিল হবে।

জয়াবর্ধনে লিখেন, “ওয়ানডে ক্রিকেটে  এটি (শিশির) কিছুটা পরিমিত থাকে- যদিও এরপরেও প্রায়ই অসীমীচীনরূপে ক্ষতি করে। কিন্তু টেস্ট ক্রিকেটে এটি একটি বিরাট ইস্যু। ঘাসপূর্ণ উইকেটের সাথে শিশির মিলিত হলে কন্ডিশনকে বিশ্বাস করা যাবে না আর উইকেটের অবস্থা উলটে যাবে।”

ঘরের মাটিতে দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলতে হলে এশিয়ার দলগুলোর স্বাগতিক হওয়ার সুবিধা লাভের আশা বাদ দিতে হবে বলে মনে করেন শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক।

“ড্রাই ও টার্নিং পিচে এশিয়ার দলগুলোর সুবিধা নেওয়ার রীতি বিসর্জন দিতে হবে। দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচগুলোর অধিকাংশ সম্ভবত সংক্ষিপ্ত ম্যাচ হবে। খেলোয়াড়রা উপভোগ করছে – আমি এমনটা দেখতে পাই না। এটা দক্ষতা ও মনোবলের একটা বিরাট চ্যালেঞ্জ। কিন্তু আপনি যখন খেলার ফরম্যাট নিয়ে ভাববেন তখন আপনি এমনটি চাইবেন না,” লিখেন তিনি।

৩৯ বছর বয়সী জয়াবর্ধনের মতে গোলাপী বলের এ ম্যাচগুলো ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকাতে ভালোভাবে হতে পারে। আর এর কারণ হলো সেখানে শিশিরের পরিমাণ তীব্র নয়।

-আজমল তানজীম সাকির, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটিম ডট কম 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন