SCORE

দীর্ঘ বিরতি শেষে মাঠে ফিরেছেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা-জিম্বাবুয়ের অংশগ্রহণে ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল শেষে ঘাম ঝরিয়েছিলেন ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে। সাউথ জোনের হয়ে খেলেছিলেন প্রথম শ্রেণির আসর বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের একটি ম্যাচেও। সেটিও সেই এপ্রিলের শেষদিকে। এরপর আর আনুষ্ঠানিকভাবে মাঠে নামা হয়নি বাংলাদেশ দলের ওয়ানডে অধিনায়ক ও ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ খ্যাত দেশসেরা পেসার মাশরাফি বিন মুর্তজার।

দীর্ঘ-বিরতি-শেষে-মাঠে-ফিরেছেন-নড়াইল-এক্সপ্রেস
মাশরাফি বিন মুর্তজা। ছবিঃ বিডিক্রিকটাইম

দীর্ঘ দুই মাসের বিরতি কাটিয়ে অবশেষে মঙ্গলবার (২৬ জুন) মাঠে ফিরেছেন মাশরাফি। এদিন মিরপুর একাডেমি মাঠে পুরোদমে বোলিং অনুশীলন করেন তিনি। এর আগে কখনও ‘হোম অফ ক্রিকেটে’ আবার কখনও বিসিবির জিমনেশিয়ামে ঝরিয়েছেন ঘাম। তবে ম্যাচের মতই বল ছুঁড়ে ঘাম ঝরানো হয়নি মঙ্গলবারের আগে বেশ কদিন।

অনুশীলনের সময় পূর্ণ রানআপে চার ওভার বোলিং করেন মাশরাফি। আর এই বোলিংয়ে মনোনিবেশ করেছিলেন বেশ ভালোভাবেই, যার কারণে খরচ করেছেন বেশ খানিকটা সময়। দুই ওভার বোলিংয়ের পর কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিয়ে পরবর্তী দুই ওভার বল করে ঘাম ঝরান মাশরাফি। এ সময় তিনি বল ডেলিভারি করেছেন নিজের স্বভাবজাত ক্ষিপ্রতা ও গতির সাথেই।

Also Read - আঁটসাঁট বোলিংয়ের দিনে দুই লঙ্কানের প্রতিরোধ

চার ওভার বোলিংয়ের মধ্যে মাশরাফি দুই ওভার করেছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যানের কথা মাথায় রেখে, অন্য দুই ওভার করেছেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের কথা ভেবে। উইন্ডিজ সফরের ওয়ানডে সিরিজে যথারীতি মাশরাফি দলের পাশাপাশি নেতৃত্ব দেবেন পেস আক্রমণকে। ক্যারিবীয় অঞ্চলের স্টেডিয়ামগুলোতে পেস ধরে ভালোই। আর তাই সেই সুবিধা কাজে লাগাতে মাশরাফি শুরু করেছেন নিজেকে ঝালাইয়ের পর্বটা।

ওয়ানডে সিরিজের আগে অবশ্য বেশ খানিকটা সময় পাচ্ছেন মাশরাফি। ২২ জুলাই থেকে শুরু হবে স্বাগতিক উইন্ডিজ ও সফরকারী বাংলাদেশের মধ্যকার প্রথম ওয়ানডে। তার আগে টেস্ট ও টি-২০ থেকে দূরে থাকা মাশরাফি নিজেকে আরও শাণিত করতে পারবেন দেশের আলো-বাতাসেই। উল্লেখ্য, ওয়ানডে সিরিজের আগে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও উইন্ডিজ।

আরও পড়ুনঃ ১ রান নিতে ৭ উইকেট খরচ!

Related Articles

সিপিএলে ত্রিনবাগোর টানা দ্বিতীয় শিরোপা

বাদ পড়লেন স্মিথ-কামিন্স

বোলিংয়ের অনুমতি পেলেন বিটন

দুই ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরলো বাংলাদেশ

বাংলাদেশকে কৃতিত্ব দিতে কার্পণ্য নেই ব্র্যাথওয়েটের কণ্ঠে