দুই দলের ওপেনাররাই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে : মুমিনুল

0
1299

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক মনে করেন, চট্টগ্রাম টেস্টে দুই দলের ওপেনাররাই মূল পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন। একইসাথে দলের শীর্ষ চার ব্যাটারের ব্যর্থতাকে কাঠগড়ায় তুলেছেন তিনি। 

দুই দলের ওপেনাররাই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে মুমিনুল
নিজেকেও কাঠগড়ায় রাখছেন মুমিনুল।

সিরিজের প্রথম টেস্টে দারুণ ছন্দে ছিলেন পাকিস্তানের দুই ওপেনার আবিদ আলী ও আব্দুল্লাহ শফিক। দুইজনই দুই ইনিংসে বড় পার্টনারশিপ গড়ে দলকে আলোর পথ দেখিয়েছেন।

Advertisment

অন্যদিকে ঠিক উল্টো চিত্র ছিল বাংলাদেশের দুই ওপেনারের। সাদমান ইসলাম ও সাইফ হাসান দুই ম্যাচেই ছিলেন ব্যর্থ। তাদের দ্রুত বিদায় দলকে আরও চাপে ফেলেছে।

মুমিনুল মানছে, দুই দলের ওপেনারদের পারফরম্যান্সদের তফাৎই দুই দলের পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। তিনি বলেন, ‘পার্থক্য এখানেই গড়ে দিয়েছে। আমরা দুই ইনিংসে ৪৯ রানে, দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫ রানে চার উইকেট হারিয়ে ফেললাম। অর্ধেক খেলা এখানেই শেষ। ওপর দিয়ে এই অবস্থা হলে খেলায় ফিরে আসা খুব কঠিন। ওপরে দায়িত্ব নিয়ে ব্যাটিং করলে খেলায় ইতিবাচক দিক থাকত।’

দুই দলের ওপেনাররাই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে মুমিনুল
মুমিনুলের মতে, ৩৩০ রান নিয়ে লড়াই করা সম্ভব নয়।

শুধু দুই ওপেনারকে নয়, মুমিনুলের কাঠগড়ায় গোটা টপ অর্ডার, যেখানে তিনি নিজেকেও রাখছেন আসামীর আসনে। অধিনায়ক বলেন, ‘শীর্ষ চার ব্যাটারকে দায়িত্ব নিয়ে ব্যাটিং করা উচিৎ, আমিসহ। চার নম্বরে আমি একটা বড় ইনিংস খেলতে পারলে দৃশ্যপট অন্যরকম হত।’

‘প্রথম ১০ ওভারের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেললে মোমেন্টাম ধরে রাখা কঠিন হয়ে যায়। এরপর ২০০ রানের পার্টনারশিপ করলেও দিনশেষে হয়ত ৩০০ হবে। এমন উইকেটে ৩৩০ রান করে লড়াই করা খুব কঠিন।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনের চ্যাটে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime Crickey সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।