Score

দুর্দান্ত ইনিংসের পেছনের গল্প ব্যাখ্যা ইমরুলের

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের জয়ের পেছনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করেছেন ওপেনার ইমরুল কায়েস। ম্যাচ শেষে তার অনবদ্য ইনিংস নিয়ে নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন তিনি।

ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে ইমরুল কায়েস।

দিন শেষে ওয়ানডেতে নিজের ক্যারিয়ার সেরা (১৪০ বলে ১৪৪ রান) ইনিংস খেলে দলকে লড়াকু সংগ্রহের ভিত গড়ে দেওয়া ইমরুল কায়েসের ইনিংসের শুরুটা মোটেও সহজ ছিল না। কঠিন পরিস্থিতি সামলাতে ঠাণ্ডা মাথায় ভাবতে ও ক্রিজে থাকতে হয়েছিল তাকে।

Also Read - মুস্তাফিজকে কম বল করানোর কারণ ব্যাখ্যা মাশরাফির

ম্যাচ শেষে ম্যাচ সেরার পুরস্কার গ্রহণের সময় এমনটাই জানিয়েছেন তিনি। ধৈর্য ধারণেই ধরা দিয়েছে এমন সাফল্য উল্লেখ করে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি জানান,

“ব্যাট করতে এসে আমি আমার সর্বোচ্চটা দিতে চেষ্টা করেছি। উইকেট ব্যাট করার জন্য সহজ ছিল না তাই আমাকে ধৈর্য ধরতে হয়েছে।”

দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ালেও শুরুটা দারুণ ছিল না বাংলাদেশের। ৬৬ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারানোর পর মিঠুন আর তার জুটিতে প্রতিরোধ গড়েছিল বাংলাদেশ। তারপর মিঠুনের বিদায়ে আবারও ব্যাটিং বিপর্যয়ের সম্মুখীন হয় বাংলাদেশ। এসময় ঠিক কি পরিকল্পনা আঁটছিলেন তিনি?

ম্যাচ শেষে এরও উত্তর জানান তিনি। উইকেট হারানোর ঘটনা চাপ তৈরী করছিল তবে তার সাফল্যের পেছনে ছিল ক্রিজে টিকে থাকার দৃঢ়তা উল্লেখ করে এসময় তিনি আরও যোগ করে বলেন,

“আমার এবং মিঠুনের মধ্যকার জুটিটা ভালো ছিল। আমি ভেবেছিলাম বিশেষ কিছু না করে বরং আমাকে শেষ পর্যন্ত থাকতে হবে। যখন উইকেট পড়ছিল, এভাবেই ব্যাটসম্যানদের উপর চাপ তৈরী হচ্ছিল।”

মানসিক দৃঢ়তার সঠিক বাস্তবায়নে ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতক পূর্ণের পাশাপাশি ব্যক্তিগত ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসে সবারই মনে দাগ কেটেছেন তিনি। মনোবল ধরা রাখার দিন নাম লিখিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে ইতিহাসে মুশফিকের সাথে যৌথভাবে ব্যক্তিগত দ্বিতীয় সেরা ১৪৪ রানের ইনিংস খেলারও।

Related Articles

“দ্বিতীয় ইনিংসে ভালো ব্যাট করতে আমরা প্রস্তুত”

রেকর্ড গড়েই জিততে হবে বাংলাদেশকে

ঐতিহাসিক সিলেট টেস্টে বাংলাদেশের মুখোমুখি জিম্বাবুয়ে

টেস্টে ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ ইমরুলের

রেকর্ডের কথা জানতেনই না ইমরুল