Scores

‘দুর্ভাগ্যবশত, বিশ্বকাপে আশানুরূপ ফল পায়নি বাংলাদেশ’

সাবেক লঙ্কান ক্রিকেটার ফারভেজ মাহরুফ কলম্বোতে বিডিক্রিকটাইম‘কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তার চোখে বাংলাদেশ ক্রিকেটের বর্তমান অবস্থা নিয়ে কথা বলেছেন। বিশেষ করে সাকিব আল হাসানের প্রশংসা করেছেন তিনি। বাংলাদেশের একজন ভালো ফাস্ট বোলিং অলরাউন্ডারের প্রয়োজনীয়তাও মনে করিয়ে দিয়েছেন।

'দুর্ভাগ্যবশত, বিশ্বকাপে আশানুরূপ ফল পায়নি বাংলাদেশ'

 

Also Read - ৬০০০ রানের ক্লাবে মুশফিক


মাহরুফের মতে গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের চোখে পড়ার মত সাফল্যের পেছনে রয়েছে অভিজ্ঞতা। সাকিব আল হাসান, মাশরাফি বিন মুর্তজাদের মত অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের ধারাবাহিক পারফর্মই বাংলাদেশকে এতদূর এগিয়ে নিয়েছে। এই লঙ্কান পেস বোলিং আলরাউন্ডার মনে করেন, দুর্দান্ত খেলেও দুর্ভাগ্যের কারণেই বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরে আশানুরূপ সাফল্য পায়নি বাংলাদেশ।

তার মতে, ‘আমার মনে সেরা দলগুলোর একটা হয়ে উঠছে তারা। বেশ অভিজ্ঞতা সম্পন্ন একটা দল বাংলাদেশ। তাদের দলের বেশকিছু খেলোয়াড় দীর্ঘ সময় ধরে খেলছে। গত কয়েক বছর ধরে তারা দুর্দান্ত খেলছে। দুর্ভাগ্যবশত, বিশ্বকাপে আশানুরূপ ফল পায়নি।’

সাকিবের প্রশংসা করে তিনি আরও যোগ করেন, ‘তবে সাম্প্রতিক সময়ে তাদের খেলা দেখে দারুণ লেগেছে। বিশেষ করে ওয়ানডে ক্রিকেটে। সাকিব আল হাসান ৩ নম্বরে দারুণ ব্যাটিং করছে। আমি মনে করি, তার এই সিরিজে না থাকাটা বাংলাদেশের জন্য বড় ক্ষতি।’

মাহরুফের ভাবনা সূদরপ্রসারী, আগামী বছরের টি-২০ বিশ্বকাপ তো বটেই ২০২৩ বিশ্বকাপের জন্যও এখন থেকেই পরিকল্পনার করার উপদেশ তার। সেখানে বাংলাদেশের ভালো ফলাফল করার জন্য দলের আক্রমণাত্মক পেসারের প্রয়োজন।

এই লঙ্কানের ভাষায়, ‘আগামী বছর টি-২০ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে এখন প্রস্তুতি নেয়া দরকার। এছাড়া ২০২৩ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্যও এখনই পরিকল্পনা করা উচিত। বাংলাদেশ নিজেদের মাঠে অনেক ভালো খেলে। অবশ্য এখন বাংলাদেশে বেশ কয়েকজন ভালো ফাস্ট বোলার এসেছে। তাদের দলে ভালো ব্যাটসম্যানও আছে।’

মাহরুফ নিজে একজন ফাস্ট বোলিং অলরাউন্ডার ছিলেন। বাংলাদেশের সাফল্যের অন্যতম কারণ হতে পারে একজন দুর্দান্ত ফাস্ট বোলিং অলরাউন্ডার বলে মন্তব্য তার। বিশেষ করে, উপমহাদেশের বাইরে বড় ভূমিকা রাখতে পারে ফাস্ট বোলিং অলরাউন্ডার।

তিনি বলেন, ‘তাদের এখন ভালো ফাস্ট বোলিং অলরাউন্ডার প্রয়োজন। কয়েক বছর আগে যে কাজটা মাশরাফি বিন মুর্তজাকে করা দেখা গিয়েছে। যখন উপমহাদেশের বাইরে খেলবে, তখন একজন ফাস্ট বোলিং অলরাউন্ডার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।’

বিশ্বকাপে অবশ্য সাইফউদ্দীন তার সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছেন। বল হাতে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে উইকেট এনে দিয়েছিলেন। ব্যাট হাতে খুব একটা সুযোগ না পেলেও, একদিন সু্যোগ পেয়ে ঠিকই অর্ধশতক করে চিনিয়েছেন নিজের জাত। তবে চোটের কবলে শ্রীলঙ্কা সফরে যেতে পারেননি তিনি।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

বিশ্বকাপ ফাইনালে ধৈর্যশীলতা দেখানোর পুরস্কার জিতল কিউইরা

‘আমি সর্বদা বলি, সমর্থকরা আমাদের দ্বাদশ খেলোয়াড়’

আইসিসিকে নিশামের খোঁচা

সুপার ওভারের নিয়মে পরিবর্তন আনল আইসিসি

বিশ্বকাপ-ফাইনালের বিতর্কিত নিয়ম ‘চলবে না’ বিগ ব্যাশে!