অগ্নিঝরা বোলিংয়ে মাশরাফির ক্যারিয়ার-সেরা ফিগার

0
1140

বিপিএলে এবার বোলাররাই ছড়ি ঘোরাচ্ছেন বেশি। মিরপুরে চলমান বিপিএলে ব্যাটসম্যানরা অনেকটাই অসহায় যেন। কিন্তু তাই বলে ব্যাটসম্যানরা দাঁড়াতেই পারবেন না?

অগ্নিঝরা বোলিংয়ে মাশরাফির ক্যারিয়ার-সেরা ফিগার

মাশরাফি বিন মুর্তজার আগুনঝরা বোলিংয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যেন সত্যিই দাঁড়াতে পারলেন না কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বোলাররা। বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়নদের লড়াইয়ে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক ও আইকন ক্রিকেটার মাশরাফি। তার সিদ্ধান্তটি যে মোটেও ভুল ছিল না, বিলম্ব না করে তিনি নিজেই রেখেছেন এর প্রমাণ!

Advertisment

যথারীতি এদিনও দলের বোলিং উদ্বোধন করেছিলেন মাশরাফি। প্রথম ওভারে অবশ্য পাননি কোনো সাফল্য। তবে নিজের দ্বিতীয় ও তৃতীয় ওভারে শুরু করেন ‘হামলা’। সেই হামলায় ঐ ওভারের পঞ্চম বলে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার তামিম ইকবাল। একই স্পেলে নিজের পরের ওভারের দ্বিতীয় বলে মাশরাফির শিকার এবার ইমরুল কায়েস। জাতীয় দলের দুই ওপেনারই (ইমরুল এই ব্যাটিং অর্ডারে নেমেছিলেন ওয়ান ডাউনে) যেখানে ব্যর্থ মাশরাফির সামনে, তাতে কি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের অন্যদের পা একটুও কাঁপেনি? কেঁপেছে হয়ত! যার ফলে ম্যাচের পঞ্চম ওভারের পঞ্চম বলে মাশরাফির শিকার হয়েই সাজঘরে ওপেনার এভিন লুইস, সপ্তম ওভারের চতুর্থ বলে দলের পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ!

টানা স্পেলে নিজের বোলিংয়ের কোটা শেষ করার পর মাশরাফি যখন আরও উইকেটের ক্ষুধা নিয়ে ফিল্ডিং সাজাচ্ছেন, তখন তার বোলিং ফিগার এমন: ৪-১-১১-৪! ১৮টি ডট বলের এই বোলিং ফিগারই এই ফরম্যাটে মাশরাফির ক্যারিয়ারের সেরা বোলিং। যা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের চার টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফিরিয়ে ভেঙে দিয়েছে দলটির মনোবল কিংবা মেরুদণ্ড, আর তাতে দলের ব্যাটিং লাইনআপ গুটিয়ে গেছে মাত্র ৬৩ রানে!

ভিডিওতে দেখুন মাশরাফির ৪ উইকেট

তারকায় ঠাসা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ব্যাটিংয়ের এমন হাল নিয়ে নিন্দা-সমালোচনা হতে পারে। তবে বল হাতে যখন মাশরাফি আর দিনটি তার, যেকোনো ব্যাটিং লাইনআপই তো দেখতে পারে এমন ভূতুড়ে স্কোর আর দুর্দান্ত বোলিং ফিগার!

আরও পড়ুন: বাগেরহাটে কিশোরের শূন্য রানে ৫ উইকেট শিকার

 

View this post on Instagram

 

Mashrafe Mortaza was on fire ?. #RRvCV #bplt20 #bpl2019

A post shared by bdcrictime.com (@bdcrictime) on