Scores

“ধারাভাষ্যকাররাও তো মানুষ”

চলমান বিপিএল নিয়ে টেলিভিশনের সামনে বসা দর্শকদের অভিযোগের শেষ নেই। মাঠে বসে যারা ম্যাচ সংক্রান্ত কাজ করেন, তাদেরও অনেক সময় টেলিভিশন পর্দার আশ্রয় নিতে হয়। অথচ এবারের বিপিএলে যেন শুধু অনিয়মের ছড়াছড়ি। ধারাভাষ্যকারদের অহরহ ভুল তো আছেই, সম্প্রচার, ডিআরএস, প্রযুক্তির ব্যবহার ও উপস্থাপনাসহ বিভিন্ন বিষয় ইতোমধ্যে বিতর্কিত হয়েছে।

এবারের বিপিএল পরতেপরতে কুড়চ্ছে সমালোচনা।

তবে সবগুলো দোষ যেন ধারাভাষ্যকারদের কাঁধেই চড়াতে চাইলেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক সংবাদ সম্মেলন করে জানালেন, দৃষ্টিকটু ভুলগুলোর দায় প্রডাকশনের নয়; ধারাভাষ্যকারদের ‘সামান্য ভুল।’

মল্লিক বলেন, ‘প্রডাকশনের ভুল নয়। ধারাভাষ্যকররা দুই-একটা ভুল করেছেন। আর একটা লেখায় ভুল এমন বড় কোনো ভুল নয়।’

তবে ধারাভাষ্যকারদের ভুলও যেন গুরুতর মনে হচ্ছে না বিপিএল কর্তাদের কাছে। মল্লিকের ভাষ্য, ‘ধারাভাষ্যকররা তো মানুষএখানে দেশি-বিদেশি যারা ধারাভাষ্য দিচ্ছেন তারা দীর্ঘ সময় ধরে বিভিন্ন দেশে ধারাভাষ্য দিচ্ছেন।’

Also Read - রাজশাহীর বিপক্ষে কুমিল্লার কষ্টার্জিত জয়


অনিয়মে প্রডাকশনের কোনো ভুল নেই দাবি করে তিনি বলেন, ‘এটা প্রডাকশনের ভুল নয়৩৫ ক্যামেরা, ড্রোন, স্পাইডার ক্যাম, আম্পায়ারের হেড ক্যাম, প্রযুক্তির দিক দিয়ে এখানে কোনো ভুল নেইযে সমালোচনা হয়েছে ধারাভাষ্যকরের শব্দ চয়নে ভুলের কারণে হয়েছে।’

তবে স্বীকার করে নিয়েছেন মান উন্নয়নের সুযোগের কথাও, ‘এটাই সবচেয়ে উন্নত প্রডাকশন, সেটা দাবি করি নাহ্যাঁ, মান উন্নয়নের সুযোগ আছেসামনে নতুন নতুন ধারাভাষ্যকার আসবে।’

মল্লিক আরও বলেন, ‘গ্রাফিক্সের কয়েকটি ভুল আমাদের চোখে পড়েছে, হয়তো আরও কিছু ভুল আছে যেগুলো আমাদের চোখে পড়েনিআমরা কিন্তু এই ভুলগুলো সময়মতো জানাচ্ছি যেন পরবর্তীতে আর ভুল না হয়জনবলের ক্ষেত্রে কোনও কমতি নেইআমাদের ড্রোনটি এসেছে কানাডা থেকে। স্পাইডার ক্যাম অস্ট্রেলিয়া থেকে, ঠিক আইসিসি যেটি ব্যবহার করেএকই মানুষ এই সিস্টেম অপারেট করছেসুতরাং এখানে কোনো ভুল হয়নি। ভুল আসলে একটি হলো ধারাভাষ্যকারের।’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


Related Articles

আইপিএল আয়োজন: ভারত চাইলে আগ্রহী বাংলাদেশ

বিগ ব্যাশের চেয়ে বিপিএল সেরা!

পেছাল বিপিএল প্লেয়ার ড্রাফটের দিন

যে কারণে ডাকা হয়নি নাসিরকে

৭ বলের ওভারকে অনিচ্ছাকৃত ভুল হিসেবেই দেখছে বিসিবি