Scores

ধোনি ছাড়া কোহলি ‘অর্ধেক-অধিনায়ক’!

ভারতের বর্তমান দলটি গড়ে তোলার পেছনে বড় অবদান মহেন্দ্র সিং ধোনির। দীর্ঘ সময় ভারতকে অধিনায়ক হিসেবে আগলে রেখেছেন। বর্তমান সময়ের ‘সেরা’ বিরাট কোহলির আগমন দেখেছেন নিজ চোখে। ক্যারিয়ারের শেষদিকে এসে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিলেও এখনও আছেন দলের অংশ হয়ে।

ধোনি ছাড়া কোহলি ‘অর্ধেক-অধিনায়ক’!
মহেন্দ্র সিং ধোনি ও বিরাট কোহলি। ফাইল ছবি

অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিলেও বর্তমান অধিনায়ক বিরাট কোহলির অনেক সিদ্ধান্তেই থাকে ধোনির হস্তক্ষেপ। ধোনির অসাধারণ বিচার-বুদ্ধি ও বিচক্ষণতায় বড় ম্যাচগুলোতেও অনেকটা নির্ভার থাকতে পারেন কোহলি। সেই ধোনি চলমান অস্ট্রেলিয়া সিরিজের শেষ দুটি ম্যাচের দলে নেই। এই দুটি ম্যাচের একটি ইতোমধ্যে মাঠেও গড়িয়েছে, যে ম্যাচে ভারত হেরে বসেছে।

ঐ ম্যাচে দলের ফিল্ডিং নিয়ে বেশ সমালোচনা হজম করতে হয়েছে কোহলিকে। ম্যাচে একাধিকবার মেজাজও হারিয়ে বসেছিলেন। দলও হেরে গেছে, স্বভবতই কোহলি এদিন পরিচিত কোহলি হয়ে ছিলেন না!

Also Read - শেষ দুই ম্যাচেও খেলবেন না হাশিম আমলা


আর এরই ধারাবাহিকতায় ভারতের সাবেক কিংবদন্তী স্পিনার বিষেন সিং বেদির মন্তব্য, ধোনি দলে না থাকলে কোহলির অধিনায়কত্বের দক্ষতা অর্ধেকে নেমে আসে!

বিষেন অবশ্য সরাসরি এমন মন্তব্য করে বসেননি। তবে তার কথা এমন অর্থই প্রকাশ করে।

সম্প্রতি এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘ধোনি ছাড়া কোহলি অর্ধেক অধিনায়ক।’

শুধু তা-ই নয়। ধোনিকে দলে নেওয়া হয়নি যে পরীক্ষানিরীক্ষার কারণে, সেই ব্যবস্থারও সমালোচনা করেছেন তিনি। বিশ্বকাপের আগে দল নিয়ে এমন নিরীক্ষা ভালো ঠেকেনি তার কাছে। বিষেন সিং বলেন, ‘গত এক বছর ধরেই তো পরীক্ষা চলছে। এখনও দল তৈরি হল না!‌ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এই পরীক্ষা-নিরীক্ষার দরকার ছিল বলে মনে করি না। সেরা দলটাকেই খেলালে ভালো হত।’

পরবর্তীতে আরেকটি টুইট বার্তায় কোহলির প্রতি বিশেষ বার্তা রেখেছেন বিষেন। টুইটারে একটি ছবি সংযুক্ত করে তিনি উদ্দেশ্য করেন কোহলিকে, যে ছবিতে লেখা ছিল- ‘শান্তশিষ্ট মানসিকতা জীবনের যেকোনো চ্যালেঞ্জের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় অস্ত্র!’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

মাসাকাদজার বিদায়ী ম্যাচে আফগানিস্তানকে হারাল জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশ সিরিজে ধোনিকে রাখার পক্ষে নন গাভাস্কার

এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন ধনাঞ্জয়া

সবাইকে ছাপিয়ে ‘রাজত্ব’ দখলে নিলেন কোহলি

জয়ের ধারায় বাংলাদেশ, টুইটারে প্রশংসা ও স্বস্তি