Scores

নবী-তাসকিনের নৈপুণ্যে জয়ে ফিরলো চিটাগং ভাইকিংস

প্রথম ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে জয় পাওয়ার পর আর জয়ের দেখা পায়নি তামিম ইকবালের দল চিটাগং ভাইকিংস। নিজেদের মাটিতে অবশেষে জয়ে ফিরেছে ভাইকিংসরা। মোহাম্মদ নবীর অসাধারণ ব্যাটিং নৈপুণ্যে রাজশাহী কিংসকে হারিয়েছে ১৯ রানে।

নবী ও আনামুল

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা বেশি ভালো হয়নি চিটাগংয়ের। প্রথম ওভারে ফরহাদ রেজার বলে ডোয়াইন স্মিথ তিন চার হাঁকালেও দ্বিতীয় ওভারেই চিটাগং হারায় অধিনায়ক তামিম ইকবালকে। মেহেদি হাসান মিরাজের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফিরে যান তামিম।

Also Read - ছন্দে থাকা রংপুরের বিপক্ষে মাঠে নামছে মরিয়া কুমিল্লা


তবে ডোয়াইন স্মিথের ঝড় অব্যহত থাকে। তার মারমুখী ব্যাটিংয়ের ফলে পাওয়ারপ্লেতে ভালো স্কোর পায় চিটাগং। স্মিথকে থামান আবুল হাসান রাজু। ১৯ বলে ৩৪ করে রাজুর বলে বোল্ড হন তিনি। হাল ধরেন এনামুল হক। ইলিয়ট দ্রুত ফিরে গেলে চাপে পরে যায় ভাইকিংস। প্যাটেলের বল ইলিয়টের ব্যাট আর প্যাডে লেগে চলে যায় উইকেটরক্ষক নুরুল হাসানের হাতে। স্টাম্পিং হয়ে যান ইলিয়ট।

এনামুলকে সঙ্গ দিতে পারেননি জহুরুল ইসলাম অমিও। ২ রান করে প্যাটেলের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন তিনি। এরপর পুরো আলো নিজের দিকে কেড়ে নেন মোহাম্মদ নবী। সাগরিকায় এনামুল আর নবী মিলে ঝড় উঠান। তাদের ঝড়ে চিটাগং বড় স্কোরের দিকে এগিয়ে যায়। প্রায় প্রতি ওভারেই বাউন্ডারি হাঁকাতে থাকেন দুজন। শেষের দিকে রান তোলার গতি আরো বেড়ে যায়।

নির্দিষ্ট করে বললে শেষ তিন ওভারে ৫৭ রান তুলে চিটাগং। ১৮তম ওভারে রাজুর বলে তিন চার ও এক ছক্কা হাঁকান নবী। রাজুর করা শেষ ওভারে হাঁকান দুই চার ও এক ছয়। শেষ ওভারের আগের ওভারে ৪০ বলে ৫০ করে ফরহাদ রেজার বলে আউট হন এনামুল। ৩৭ বলে ৮৭ রান করে অপরাজিত ছিলেন নবী। তার ইনিংসে ছিলো ছয়টি করে চার-ছক্কা।

রাজশাহী কিংসের সামনে লক্ষ্য ১৯১ রানের। জবাবটাও ভালোই দেয় তারা। দ্বিতীয় ওভারে মাহমুদুল হাসানের বলে টানা চারটি চার মারেন মমিনুল হক। চতুর্থ ওভারে মাহমুদুলের বলে দুই ছক্কা হাঁকান জুনায়েদ সিদ্দিকি। পঞ্চম ওভারে তাসকিন ফেরান মমিনুলকে। ১৪ বলে ২২ রান করে আউট হন তিনি। সাব্বির রহমানকে নিয়ে হাল ধরেন জুনায়েদ। দুজন মিলে ৩৪ রান যোগ করেন। ৩৮ রান করে ইলিয়টের বলে আউট হন জুনায়েদ।

ভালোই চলছিল সাব্বির রহমানের ব্যাট। উমার আকমল বড় ইনিংসের আভাস দিলেও ফিরে যান ১০ বলে ২১ রান করে। এক ওভার পরেই ইমরান খান জুনিয়র ফেরান সাব্বিরকে। ৪৬ রান করে আউট হন সাব্বির। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকলে ম্যাচ থেকে ছিটকে পরে রাজশাহী কিংস। ব্যাট হাতে বড় শট খেলতে চাইলেও কখনো ফিল্ডারের হাতে ধরা পড়তে হয়েছে কিংবা কখনো ব্যাটে বলে হয়নি- রাজশাহীর শটগুলো এমনই ছিলো। চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে তাসকিন আহমেদ শিকার করেন পাঁচ উইকেট ।রাজশাহী ২০ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৭১ রান তোলে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ চিটাগং ভাইকিংস ১৯০/৫, ২০ ওভার
নবী ৮৭*, এনামুল ৫০, স্মিথ ৩৪
প্যাটেল ২১/২, মিরাজ ১৮/১

রাজশাহী কিংস ১৭১/৯, ২০ ওভার
সাব্বির ৪৬, জুনায়েদ ৩৮, মমিনুল ২২
তাসকিন ৩১/৫, ইমরান ২৮/২

ম্যাচসেরাঃ মোহাম্মদ নবী

-আজমল তানজীম সাকির, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটিম ডট কম 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

পেছায়নি বিপিএল, একাদশে সর্বোচ্চ ৪ বিদেশী

বিপিএলে থাকছে অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তি

৬ ডিসেম্বর থেকে শুরু হতে পারে বঙ্গবন্ধু বিপিএল

কোচিংয়ে ক্যারিয়ার গড়ার ইচ্ছে আফ্রিদির

টি-টোয়েন্টিতে কোথায় পিছিয়ে বাংলাদেশ জানালেন মাহমুদউল্লাহ