Scores

নাজমুল হোসেন শান্তকে বাবার মূল্যায়ন

নাম তার নাজমুল হোসেন শান্ত, তার ব্যক্তিত্ব আর আচার-আচরণও শান্ত প্রকৃতির। পরিশ্রম আর মেধা দিয়ে জায়গা করে নিয়েছেন দেশের ক্রিকেটের শীর্ষ পর্যায়ে। তার ব্যক্তিত্বে শুধু ক্রিকেটপাড়ার মানুষই নন, মুগ্ধ বাবা জাহাঙ্গীর আলম রতনও।

করোনাভাইরাসের কারণে খেলাধুলা বন্ধ। এ সময় শান্ত পরিবারের সাথেই দিন কাটাচ্ছেন। পেশাদার ক্রিকেটাররা ব্যস্ততার কারণে পরিবারের সাথে থাকার সুযোগ কমই পান। শান্ত যে সময়টা তাই উপভোগ করছেন তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

Also Read - ধর্মের কারণে বৈষম্যের শিকার হয়েছেন ইরফান?






ছেলেকে পাশে রেখে গর্বিত বাবা ছেলের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। বিডিক্রিকটাইম এর সাথে আলাপকালে রতন জানান, ছোটবেলা থেকেই শান্ত নিয়মানুবর্তী ও সরল।

শান্তর গর্বিত বাবা জানান, ‘শান্তকে ভর্তি করার পরই বলেছি, খেলাধুলার পাশাপাশি লেখাপড়াটাও করবে। যখন খেলবে মনোযোগ সহকারে খেলবে। এটা আমি সবসময়ই বলি- যখনই যা করবে মনোযোগ সহকারে করবে। সৎ মনোভাব হয়ে চলবে। যারা সৎ ও পরিশ্রমী মানুষ আল্লাহ তাদের কখনো খালি হাতে ফিরিয়ে দেন না। শান্তর বয়স যখন ১০ বছর তখন আমার এক বন্ধুর মাধ্যমে শান্তকে ক্রিকেটে ভর্তি করাই। আমাদের বাসা তো গ্রামে। বাসা থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে। বাসা থেকেই নিয়মিত যাওয়া-আসা করত, কোনো অবহেলা ছিল না। ওর জন্য আমাকে কোনোকিছুতে কখনো বেগ পেতে হয়নি। ছোটবেলা থেকে ও মেধাসম্পন্ন। নিজের আগ্রহেই অনুশীলনে যেত।’ 






অনেক সম্মান ও গর্ব এনে দেওয়া শান্তকে নিয়ে তাই স্বস্তি তার বাবার। ছেলে মূল্যায়ন করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘শান্ত একজন পরিপূর্ণ মানুষ, ভালো বুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ। এখন পর্যন্ত আমাকে ওকে কোনো দিকনির্দেশনা দিতে হয়নি। ওর কোনো খারাপ দিক দেখতে পাইনি কখনো, কখনো বলতে হয়নি এটা করো না ওটা করো না। ও কোনোদিন সময় অপচয় করেছে বলে আমার জানা নেই। কখনো দুষ্টুমি করেনি। এখনো ওকে কিছু বলতে হয় না। ও নিজে থেকেই সবকিছু বুঝে।’

সন্তানের সাফল্য বাবাকে করে গর্বিত। রতন জানালেন, ‘সন্তানের সাফল্য প্রত্যেক বাবা-মায়ের জন্যই ভালো লাগার বিষয়। ছেলে হোক বা মেয়ে হোক, সন্তাহ সফল হলে বাবা-মা আনন্দ পান, এতে কোনো সন্দেহ নেই।’

যখন যা চেয়েছেন, তাই পেয়েছেন। যখন যা করতে চেয়েছেন, তার অনুমতিও পেয়েছেন। বাবা-মাকে নিয়েও তাই শান্তর গর্ব আর কৃতজ্ঞতার শেষ নেই।

শান্ত বলেন, ‘প্রত্যেক সন্তানই বাবা-মায়ের সমর্থন প্রত্যাশা করে। এদিক থেকে আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি। শুরু থেকেই তারা সবসময় আমার সাথে ছিলেন, সবসময় আমাকে সমর্থন করেছেন।’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

বিয়ে ক্রিকেটে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে না : শান্ত

শান্ত’কে বরণের অপেক্ষায় ছিল রাজশাহী স্টেডিয়াম

জীবনের নতুন ইনিংস শুরু করলেন শান্ত

সুজন স্যার বলতেন, তুই-ই ম্যাচ জিতাবি : শান্ত

সেলাই পড়ল শান্তর হাতে