Scores

নাটকীয় ম্যাচে মোহামেডানকে জেতালেন শফিউল

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) এ নাটকীয় ম্যাচে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে জেতালেন বোলার শফিউল ইসলাম। ব্যাট হাতে ৭০ রানের ইনিংস খেলায় ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন সোহাগ গাজী।

টস জিতে আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মোহামেডান অধিনায়ক রকিবুল হাসান। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব। দলীয় ১৩ রানে আলাউদ্দিন বাবুর বলে ক্যাচ আউটের শিকার হন সৈকত আলী। সাইফ হাসানও বেশিক্ষণ টিকেননি। ফরহাদ হোসেন ও জসিমউদ্দিন কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলে সেটি থামান সোহাগ গাজী। দলীয় ৬১ রানে জসিমউদ্দিনকে আউট করেন তিনি।

Also Read - টাইগারদের নিউজিল্যান্ড থেকে দেশে ফেরার দিনক্ষণ চূড়ান্ত


৬৫ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়লে খাদের কিনারা থেকে দলকে টেনে তোলেন মার্শাল আইয়ুব ও তাইবুর রহমান। দুইজনের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে সম্মানজনক স্কোরের দিকে এগিয়ে যায় প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব। দুইজন মিলে গড়েন ১১৭ রানের জুটি। তাদের জুটি ভাঙেন সাকলাইন সজীব। ব্যক্তিগত ৭৬ বলে ৬৮ রান করা মার্শালকে আউট করেন সাকলাইন।

শেষ পর্যন্ত তাইবুরের অপরাজিত ৮৩ বলে ৭২ রানের কল্যাণে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৪৮ রান সংগ্রহ করে প্রাইম দোলেশ্বর। বল হাতে মোহামেডানের হয়ে তিনটি করে উইকেট লাভ করেন শফিউল ও আলাউদ্দিন। প্রাইম দোলেশ্বরের দেওয়া লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে মোহামেডান। ১৫ রানের মধ্যে দুই ওপেনার অভিশেক মিত্র ও আব্দুল মজিদকে হারায় মোহামেডান।

সেখান থেকে দলের রান বাড়াতে চেষ্টা করেন তুষার ইমরান ও মোহামেডান অধিনায়ক রকিবুল। সেই জুটি থামে দলীয় ৪৭ রানে। ১৯ রান করা তুষারকে বোল্ড করেন এনামুল হক জুনিয়র। তার একটু পর বিদায় নেন রকিবুলও। নাদিফ চৌধুরী ও সিলভা মিলে গড়েন ৫৬ রানের জুটি। তাদের জুটিতে দলীয় সংগ্রহ দাঁড়ায় ১০৭ রানে। ৩০ রান করে নাদিফ আউট হন। দলীয় ১২৫ রানে আউট হন সিলভাও। ম্যাচটা মোহামেডানের শেষ হয়ে যেতে পারত সেখানেই।

যদি না অতিমানবীয়ও কিছু না ঘটে। আর সেটিই করে দেখালেন দুই বোলার সোহাগ গাজী ও আলাউদ্দিন বাবু। দুই বোলার মিলে ম্যাচের পরিস্থিতিই পরিবর্তন করে দেন। দুইজনের ব্যাটিং মোহামেডানকে স্বপ্ন দেখাচ্ছিল টানা তৃতীয় জয়ের। ৮ম উইকেট জুটিতে দুইজন মিলে যোগ করেন ৭৭ রান।

আলাউদ্দিন ৩৮ করে আউট হলেও দলকে ম্যাচের শেষ পর্যন্ত নিয়ে যান সোহাগ গাজী। ৫১ বলে ৭০ রানের ইনিংস খেলে ফরহাদ রেজার বলে আউট হন সোহাগ। শেষ ওভারে মোহামেডানের প্রয়োজন ছিল ৩ রান, হাতে ছিল মাত্র এক উইকেট। ওভারের শেষ বলে আরাফাত সানিকে চার মেরে দলকে জয় এনে দেন শফিউল।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

প্রাইম দোলেশ্বর ২৪৮-৮ (ওভার ৫০)

তাইবুর ৭২, মার্শাল ৬৮ঃ আলাউদ্দিন ৩-৪৮

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ২৫১-৯ (ওভার ৫০)

সোহাগ ৭০, আলাউদ্দিন ৩৮ঃ রেজা ৪-৫৬

আরও পড়ুনঃ টাইগারদের নিউজিল্যান্ড থেকে দেশে ফেরার দিনক্ষণ চূড়ান্ত

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

সুপার লিগ মাতাতে আসলেন ওঝা

মারুফ-মুমিনুল-নাইমের ব্যাটিং কল্যাণে জিতল রূপগঞ্জ

শেখ জামালকে জেতালেন নাসির-তানভীর

মুমিনুল-নাইমের ব্যাটে সহজ জয় রূপগঞ্জের

মানকাডিংয়ের সুযোগ ছাড়লেন আরাফাত সানি