Scores

নান্নু ভাইয়ের ক্যারিয়ারের রান আমি এক সিজনেই করেছি : তুষার

জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুকে নিয়ে অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দেশের প্রখ্যাত ব্যাটসম্যান তুষার ইমরান। নিয়মিত ভালো পারফর্ম করা সত্ত্বেও জাতীয় দলের জন্য তাকে তাকে বিবেচনা করা হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন ঘরোয়া ক্রিকেটের এই নিয়মিত পারফর্মার। 

নান্নু ভাইয়ের ক্যারিয়ারের রান আমি এক সিজনেই করেছি তুষার

বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে দীর্ঘদিন ধরে খেলছেন তুষার। একসময় খেলেছেন জাতীয় দলেও। তবে ৪১টি ওয়ানডে ও ৫টি টেস্টে নিজেকে প্রমাণ করতে ব্যর্থ হওয়ায় বাদ পড়েন। এরপর ঘরোয়া ক্রিকেটে বসেছেন রাজার আসনে, হয়েছেন প্রথম শ্রেণির সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। দেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে একমাত্র ব্যাটসম্যান তিনি, যার আছে দশ হাজার রান। তবুও জাতীয় দলে আর সুযোগ হয়নি।

Also Read - 'দ্বিতীয় সারির' ইংল্যান্ডের কাছে সিরিজ হারল পাকিস্তান

তুষারের দাবি, ভালো পারফর্ম করা সত্ত্বেও তাকে নির্বাচকরা ইচ্ছা করেই দলে নেননি। এক্ষেত্রে তিনি চাপা অভিমান জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচক ও সাবেক অধিনায়ক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুকে নিয়ে, যিনি ২০১১ সাল থেকে জাতীয় দলের নির্বাচক প্যানেলে রয়েছেন।

তুষার মনে করেন, সৌম্য সরকারের মত ক্রিকেটারকে জাতীয় দলে অন্তর্ভুক্ত করার ক্ষেত্রে নির্বাচকরা পারফরম্যান্সকে মানদণ্ড হিসেবে দেখলেও তুষারের ক্ষেত্রে তা বিবেচ্য ছিল না। বিডিক্রিকটাইমকে তিনি বলেন, ‘আমি আর সৌম্য একই উইকেটে খেলেছি, রান করেছি। ও রানে ছিল না। রানে ফেরার পর প্রধান নির্বাচককে জিজ্ঞেস করা হল, সৌম্য তো রানে ফিরেছে… নির্বাচকমণ্ডলীও বললেন, হ্যাঁ ও তো রানে ফিরেছে। আমার কথা যখনই আসে তখন বলা হয়- আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটের মান নিয়ে প্রশ্ন তোলা হল। বলা হল ঘরোয়া ক্রিকেটের উইকেট আপ টু দ্যা মার্ক না।’

তুষারের দাবি, অন্য ক্রিকেটারদের দলে অন্তর্ভুক্ত করতে গিয়ে বারবার তাকে বলির পাঠা হতে হয়েছে। আর এই অবহেলায় নিদারুণ কষ্ট পেয়েছেন তিনি।

তুষার বলেন, ‘যদি নির্দিষ্টভাবে কোনো একজন ক্রিকেটারকে ওপরে উঠাতে চান তাহলে… হ্যাঁ উঠান, কিন্তু একজনের ঘাড়ে পা দিয়ে ওঠানোর তো যুক্তি দেখি না। তুষার রান করেছে, আমরা বিবেচনা করব- এতটুকু বললেই তো আমি খুশি থাকতাম। আমাকে অবহেলা করে অন্য ক্রিকেটারকে তুললেন এটা খারাপ লাগবে।’

তুষার জাতীয় দলের জার্সি গায়ে সর্বশেষ খেলেছেন ২০০৭ সালে। টেস্টে ১০ ও ওয়ানডেতে ৪০ ইনিংস খেলে তার রান সাকুল্যে ৬৬৩, অর্ধশতক আছে মাত্র দুটি (দুটিই ওয়ানডেতে)। ঘরোয়া ক্রিকেটে যখন নিজেকে মেলে ধরেছেন, তখন জাতীয় দলের দরজা রীতিমত বন্ধ হয়ে গেছে তার জন্য। তুষারের আক্ষেপ, নিজেকে আরও একবার প্রমাণের সুযোগটাও টি।

নান্নু সংবাদমাধ্যমের কাছে তুষারের ঘরোয়া ক্রিকেটের পারফরম্যান্সকে নিজের ক্যারিয়ারের পারফরম্যান্সের সাথে তুলনা করেছিলেন দাবি করে তুষার তুলে ধরেছেন নান্নু ও তার ক্যারিয়ারের পরিসংখ্যানগত পার্থক্যও। তুষার জানান, ‘আমাকে নিয়ে জানতে চাইলে তিনি উল্টো প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন- ঐসময় তো আমিও অনেক রান করেছিলাম। উনার প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে ১৭০৯ রান আছে। আমি এক সিজনে ১৭০০ রান করেছি। উনি এক সিজনে সর্বোচ্চ ১১০০ না ১২০০ রান করেছেন। যদিও বেশিদিন খেলেননি। আমিও পছন্দ করতাম। কিন্তু উনার নির্বাচন কার্যক্রম নিয়ে অনেক কথা উঠেছে এটা আমরা বলতে দ্বিধা বোধ করি না।’

তুষার আরও বলেন, ‘আমাকে যদি সুযোগ দিতেন, রান না করতাম তখন আমাকে দিয়ে চলে না বললে মেনে নিতাম। আপনি জাতীয় দলে সুযোগ দিচ্ছেন না, একটা সুযোগ তো ডিজার্ভ করি, আশা তো করতেই পারি। সুযোগ না দিয়ে যদি এভাবে ঢালাওভাবে বলেন আমি চলি না তাহলে অবিচার হল।’

বিডিক্রিকটাইমকে দেওয়া তুষার ইমরানের পুরো সাক্ষাৎকার দেখুন-

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

Related Articles

রিয়াদ কীভাবে বাদ পড়ে আমার মাথায় ঢুকে না : তুষার

তুষার-রাজ্জাককে বাদ দিতেই ফিটনেস টেস্টের বাধ্যবাধকতা!

মুগ্ধর অগ্নিঝরা বোলিং; তুষার-জাকিরের শতক

সাইফের সেঞ্চুরির দিনে ইমরুলের আক্ষেপ ‘১০’ ও তুষারের ‘১’

বিসিবির কাছে লোন চাইছে ক্রিকেটাররা