Scores

নিউজিল্যান্ড সফরেও অনিশ্চিত মোহাম্মদ শহীদ

ঢাকার হয়ে ৮ ম্যাচে ১৫ উইকেট নিয়েছেন পেসার মো. শহীদ। ইচ্ছে ছিল বিপিএলের এই আসরে সেরা উইকেট শিকারি হওয়ার। চোট পাওয়ার আগের দিনই বলেন, ‘আমার লক্ষ্য অন্তত ২৫ উইকেট নেয়া। যেন সেরা উইকেট শিকারি আমিই হতে পারি।’ কিন্তু তার সেই স্বপ্ন এখন শঙ্কায়। এমনকি জাতীয় দলের হয়ে নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়া নিয়েও তৈরি হয়েছে সংশয়।

‘ইনজুরি থেকে সেরে ওঠার ব্যাপারটি অনেক সময় প্লেয়ারের উর্পর নিভর করবে। সাধারণত এ ধরণের ইনজুরিতে বিশ্রামের সময়টা দুই থেকে তিন সপ্তাহ হয়ে যায়।’ – দেবাশীষ চৌধুরী।

গতকাল কুমিল্লার বিপক্ষে ম্যাচে বাউন্ডারিতে চার বাঁচাতে লাফিয়ে পড়েছিলেন। কিন্তু তাল সামলাতে না পেরে নিজেই ছিটকে পড়েন বাউন্ডারির বাইরে। এতে তার পায়ে ও হাতে আঘাত লাগে। গতকালই বিসিবির চিকিৎসক তার বিপিএলে খেলার আশা ছেড়ে দিয়েছেন।

Also Read - গেইল-তামিমে জিতল চট্টগ্রাম


714efff4499467a16d64ecc761d529d3-582da43d768ef

আগেই তাকে বলা হয়েছিল দুই সপ্তাহের বিশ্রামের জন্য। চিকিৎসক দেবাশিষ চৌধুরী বলেন, আজ সকালে এমআরআই রিপোর্ট দেখে চিকিৎসকেরা যা জানিয়েছেন, তাতে শহীদ আসলে এক রকম ছিটকে গেছেন নিউজিল্যান্ড সফর থেকেও।

বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী বলেছেন, ‘ওর চোটটা হাঁটুর লিগামেন্টে। লিগামেন্ট না ছিঁড়লেও বেশ ভালোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আপাতত ওর পক্ষে আর খেলা সম্ভব নয়। অস্ট্রেলিয়ার অনুশীলন ক্যাম্পে হয়তো তাকে পাঠানো হবে না। বাকিটা ওর অবস্থার উন্নতির ওপর নির্ভর করছে।’

বিসিবির এ চিকিৎসক আরও জানান, ‘ইনজুরি থেকে সেরে ওঠার ব্যাপারটি অনেক সময় প্লেয়ারের উর্পর নিভর করবে। সাধারণত এ ধরণের ইনজুরিতে বিশ্রামের সময়টা দুই থেকে তিন সপ্তাহ হয়ে যায়। তারপর পুনর্বাসক প্রক্রিয়া শুরু হয়ে থাকে। এটা একেকজনের একেক রকম। তবে বিশ্রামের সময়টা আসলে সমান। দুই থেকে তিন সপ্তাহ ওকে বিশ্রামে থাকতে হতে পারে।’

আগামী ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিপিএলের চতুর্থ আসরের খেলা চলবে। সে হিসেবে তার এ আসরে আর মাঠে নামা হচ্ছে না। তবে বিপিএলে দারুণ ছন্দে ছিলেন। এরই মধ্যে নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য ২২ সদস্যের প্রাথমিক দলে তাকে রেখেই দল ঘোষণা করেছেন নির্বাচকরা।

বাংলাদেশ টেস্ট দলে মোহাম্মদ শহীদের অভিষেক হয় গত বছর খুলনাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে। এরপর তিনি খেলেছেন ৫টি টেস্ট। তবে উইকেট নিয়েছেন মাত্র ৫টি। কিন্তু এই পেসারের বিশেষত্ব লম্বা স্পেলে বল করতে পারা। ৫ ম্যাচে ৫৭. ৬০ গড়ে তিনি রান দিলেও তার ইকোনমি ২.৭৪। নারায়ণগঞ্জে জন্ম নেয়া এই পেসার ২০১১ সাল থেকে প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন। এই পর্যন্ত ৪৫ ম্যাচে তার শিকার ৯০ উইকেট।

 

 

  • মাকসুদুল হক, বিডিক্রিকটিম।
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে হাসপাতালে মাশরাফি

এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতলো ভারত

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

শঙ্কা কাটিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলছেন মুস্তাফিজ

দুদকের শুভেচ্ছাদূত হলেন সাকিব