Scores

নিষিদ্ধ হলেন আরব আমিরাতের আরেক ক্রিকেটার

দুর্নীতির দায়ে আরব আমিরাতের ক্রিকেটারদের নিষিদ্ধ ঘটনা যেন বর্তমানে খুব স্বাভাবিক ঘটনায় পরিণত হয়েছে। এবার ৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন বোলার কাদির আহমেদ খান। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কাদির ১১টি ওয়ানডে  ও ১০ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। চলতি বছরেই আরও দুই আমিরাতি ক্রিকেটার দুর্নীতির দায়ে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন।

নিষিদ্ধ হলেন আরব আমিরাতের আরেক ক্রিকেটার

৬টি অভিযোগ দায় কাঁধে নিয়ে ২০১৯ সালের অক্টোবরে ক্রিকেট থেকে বরখাস্ত হয়েছিলেন কাদির। গত প্রায় দেড় বছর ধরে চলে তার অভিযোগের তদন্ত। অবশেষে তদন্ত শেষে ৫ বছর নিষিদ্ধ হলেন কাদির। মোট ৬টি অভিযোগে তাকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ২০১৯ সালের ১৬ অক্টোবর থেকে শুরু হবে কাদিরের ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞার সময়কাল। অর্থাৎ ২০২৪ সালের ১৬ অক্টোবর মুক্তি পাবেন এই আমিরাতি ক্রিকেটার।

Also Read - শান্ত-মুমিনুলদের দাপটে প্রথম দিনে বাংলাদেশের সংগ্রহ '৩০২'


তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল ২০১৯ সালের এপ্রিলে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ, ২০১৯ সালের আগস্টে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে সিরিজে অসদুপায় অবলম্বন করা বিরুদ্ধে। আইসিসির পক্ষ থেকে জানানো হয়, দুর্নীতি দমন কাউন্সিলের প্রশিক্ষণে অংশ নেওয়া একজন ক্রিকেটার কাদির। তিনি আইসিসির কাছে নিজের সব অপরাধ স্বীকারও করে নিয়েছেন ও নিজের কৃতকর্মের জন্য আফসোস করেছেন।

উল্লেখ্য, মাসখানেক আগে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন শাইমান আনোয়ার ও মোহাম্মদ নাভিদ। নাভীদ ও শাইমানকেও ২০১৯ সালে বরখাস্ত করা হয়েছিল। তাদের দুইজনের ওপরেই ছিল একাধিক অভিযোগ। আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবিভিত্তিক ১০ ওভারের টুর্নামেন্ট টি-টেন লিগের ২০১৯ সালের আসরে অসদুপায় অবলম্বন করেন তারা দুইজন। দীর্ঘদিন তদন্তের পরে অবশেষে তাদের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানালো আইসিসি। তারা দুইজন নিষিদ্ধ হন ৮ বছরের জন্য।

Related Articles

আইসিসির মাসসেরার মনোনয়ন পেয়ে আলোচনায় নেপালের কুশল

ভারতে অনুষ্ঠিত না হলেও বিশ্বকাপ ছাড়বে না বিসিসিআই

পিচের কারণে ডিমেরিট পয়েন্ট পেল পাল্লেকেলে

কমনওয়েলথ গেমসে কোয়ালিফাই করল ‘৭’ দল

অলিম্পিকে দেখা যেতে পারে টি-১০ সংস্করণ