নেলসনে উষ্ণ আতিথেয়তায় টাইগারদের বরণ

bd-team-nelson

মোঃ সিয়াম চৌধুরী

Advertisment

বিশ্বকাপের এবারের আসরের বয়স প্রায় অর্ধেক হতে চল্লেও বাংলাদেশ দল এই প্রথম গিয়েছে বিশ্বকাপের অন্যতম আয়োজক দেশ নিউজিল্যান্ডে। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশ প্রথম বিশ্বকাপ ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে আগামী ৫-ই মার্চ বৃহস্পতিবার, স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে যে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে পর্যটন শহর নেলসনে। তবে নেলসন যেমন বাংলাদেশ দলের জন্য নতুন, নেলসনের অধিবাসীদের কাছেও বাংলাদেশ নতুন। আর তাই বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের নেলসন সফর স্মরণীয় করে রাখতে ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান করলেন নেলসনবাসী।

নেলসনের প্রাচিন আদিবাসি মাউরি সম্প্রদায়ের কসরত ও ঐতিহ্য দেখতে অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন, এটা মাশরাফিদের জানা ছিল আগেই। তবুও প্রথম দেখায় একটু ভড়কে যেতে হল তাঁদের! নিজস্ব রীতিতে মাশরাফিদের মঞ্চে প্রবেশ করানো হয়। দৈবিকতার বিরহী সুর, সেই সাথে আচমকা সব আওয়াজ আর অঙ্গভঙ্গি। ভয়ংকর সুন্দর আয়োজনের মাধ্যমে মাউরি সম্প্রদায়ের সাথে পরিচিত হলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

নেলসনে মাউরি গোষ্ঠীর অধিবাসীরা নানাভাবে চোখ ধাঁধানো পারফরমেন্সের মধ্য দিয়ে তাঁদের ইতিহাস ও ঐতিহ্য তুলে ধরেন। রসিকতায় ভরপুর অবোধগম্য আচরণ আর কাজে বেশ খুশিই হয়েছেন সবাই। কেউ কেউ পারফরমারদের সাথে সেলফি তুলে সময়টাকে ধরে রেখেছেন মুঠোফোন বা ক্যামেরায়।

মাউরি সম্প্রদায়ের পক্ষে একজন আদিবাসি বলেন, ‘এটা  আমাদের সংস্কৃতি। এভাবেই অতিথিকে আমরা স্বাগত জানাই। অশুভ শক্তিকে তাড়িয়ে শুভ শক্তিকে আমন্ত্রণ জানাই। এখানে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের জন্য শুভ কামনা জানিয়ে প্রার্থনাও করা হল।’

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নেলসন শহরের মেয়র রাসেল রেস। বিশ্বকাপ আয়োজন করায় মূল আয়োজকদের ধন্যবাদ জানানোর পাশাপাশি বাংলাদেশ দলকে শুভকামনা জানান তিনি, ‘নেলসনে বাংলাদেশ দলকে স্বাগত জানাই। এ শহরটি অনেক সুন্দর। আশা করি এখানে ক্রিকেটাররা বেশ উপভোগ করতে পারবে। আমি নিজেও ক্রিকেটের ভক্ত। বিশ্বকাপ এই শহরে অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে আমি গর্বিত।’

সাকিব-তামিমরাই শুধু মাউরিদের পারফরমেন্স দেখে মুগ্ধ হয়েছেন, তা নয়। মাউরিদের অনুরোধে বাংলাদেশ দলের সবাইও গলা মিলিয়েছেন একসাথে, গেয়ে শুনিয়েছেন ‘আমরা করবো জয়’ গানটি। যথারীতি ক্রিকেটারদের হাততালি দিয়ে অভিবাদন জানাতে ভুলেনি নেলসনের অধিবাসীরা।

অনুষ্ঠানে টাইগারদের পক্ষে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা দলের খেলোয়াড়দের অটোগ্রাফ সম্বলিত বাংলাদেশের একটি জাতীয় পতাকা তুলে দেন মেয়র রাসেলের হাতে।