Scores

পদত্যাগ করবেন না দুর্জয়, দেবব্রত বিব্রত

একদল লোক যখন একই লক্ষ্যে একই কাজ করে যান, তাদের একটি গোষ্ঠী বা সংগঠন হতেই পারে। ১৯৯৯ সালে যেভাবে গঠিত হয়েছিল ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ বা কোয়াব। ক্রিকেটারদের সুখে-দুঃখে পাশে থাকার জন্য গঠন করা হয়েছিল কোয়াব। অথচ তারাই এখন ক্রিকেটারদের অসন্তোষের কারণ!

 

পদত্যাগ করবেন না দুর্জয়, দেবব্রত বিব্রত
কোয়াবের সভাপতি দুর্জয় ও সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত। ফাইল ছবি

‘অসন্তোষের কারণ’ হওয়ারও যৌক্তিক কারণ রয়েছে। ২০০৮ সালে কোয়াবের কমিটি গঠিত হয়। সেই কমিটিতে সভাপতির দায়িত্ব পান প্রথম টেস্ট অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয়, সাধারণ সম্পাদক হন ঘরোয়া ক্রিকেট খেলে সংগঠকের ভূমিকা নেওয়া দেবব্রত পাল।

Also Read - গুটিকয়েক খেলোয়াড় এসেছে: দুর্জয়


এরপর দুর্জয় বোর্ড পরিচালকের দায়িত্ব পেয়েছেন, সংসদ সদস্য হয়েছেন। দেবব্রত বিসিবিতে কাজ শুরু করেছেন, লজিস্টিক ম্যানেজারের গুরুত্বপূর্ণ পদও সামলেছেন। মাঝখানে পেরিয়ে গেছে ১১ বছর। তবু দুজন ঠায় কোয়াবের নেতৃত্বে। নেতৃত্বে পুরো কমিটিই। ১১ বছর ধরে চলা একই কমিটি নাকি মাঝখানে আবার নির্বাচিতও হয়েছে- এমনই দাবি তুমুল সমালোচনার কালো মেঘে ঢাকা পড়ার পর!

ক্রিকেটারদের স্বার্থ কোয়াব ঠিক কতটা দেখছে, সেই প্রশ্ন উঠছেই। সোমবার (২১ অক্টোবর) সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সাথে জনা পঞ্চাশেক প্রথম সারির ক্রিকেটার একতাবদ্ধ হয়ে ক্রিকেট বয়কটের ঘোষণা দেওয়ার আগে যে ১১ দফা দাবি জানিয়েছেন, তার মধ্যে একটি কোয়াবের কমিটি বাতিল ও নতুন নেতৃত্ব আনয়ন।


নাঈম ইসলাম তো বলেই দিলেন, কোয়াব থেকে যথাযথ সম্মান পাচ্ছেন না তারা। পাবেনই বা কীভাবে! কোয়াবের মূল কাজ ক্রিকেটারদের স্বার্থ দেখা, বোর্ডকে ক্রিকেটারদের সুবিধা-অসুবিধা জানানো। কিন্তু স্বয়ং কোয়াবের নেতারাই তো বোর্ডে আছেন! উল্লেখ করার মত আরেকটি বিষয়- সংগঠনটির সহ-সভাপতি খালেদ মাহমুদ সুজন, যিনি বোর্ড, জাতীয় দল ও ঘরোয়া ক্রিকেটের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজে যুক্ত থাকেন। এছাড়া কোয়াবের কমিটির অনেকেই এখন বোর্ডের শীর্ষ কর্তা।

বর্তমান ক্রিকেটাররা যখন কোয়াব নিয়ে প্রশ্ন তুলেন, সংগঠনটির সামনে ঝুলতে থাকে অনেক প্রশ্নবোধক। কোয়াব নিয়ে বিতর্কও আছে। শীর্ষ নেতৃত্বের অনেকে ব্যক্তিগত দ্বন্দ্ব নিয়ে পুরো সংগঠনকে সমালোচিত করেছিলেন বছর পাঁচেক আগে। সংগঠনটি হাতেগোনা যে ক’বার সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে পরিণত হয়েছে, তার সিংহভাগই  নেতিবাচক কারণে। অবশ্য দুর্জয়ের দাবি- তারা মিডিয়ার সামনে এসে খুব একটা কথা বলেন না বলে ক্রিকেটারদের নিয়ে তাদের কার্যক্রম সম্পর্কেও জানা হয় না ক্রিকেটের খোঁজখবর রাখা সংবাদকর্মীদের!

কোয়াব নিয়ে বিতর্ক বিব্রতকর অবস্থায় ফেলেছে সংগঠনটির সদস্যদের। ক্রিকেটারদের জন্য যে সংগঠন খোলা, সেই সংগঠনের পর্ষদে আস্থা নেই ক্রিকেটারদেরই। বর্তমান বা সদ্য সাবেক ক্রিকেটারদের গুরুত্ব দেওয়া হয় না বলে অভিযোগ আছে। দিনশেষে কোয়াব যেন হয়ে দাঁড়িয়েছে ব্যক্তিগত পদবী ভারি করার উপায়। তার চেয়েও হতাশার কথা- যে কমিটি নিয়ে এত বিতর্ক, সেই চার বছর মেয়াদী (কমিটির সদস্যদের দাবি এমনই, যদিও গত ১১ বছরে কমিটিতে কোনো পরিবর্তন আসেনি!) কমিটির মেয়াদ নাকি শেষ হয়ে গেছে ৬-৭ মাস আগে।

এমন পরিস্থিতিতে সংগঠনের বিব্রত সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত দিয়েছেন পদত্যাগের ইঙ্গিত। হয়ত আলোচিত দিন পেরিয়ে নতুন সকাল এলেই জানা যাবে তার পদত্যাগের ঘোষণা। একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে আলাপকালে নিজেদের পদ আঁকড়ে থাকতে চান যারা তারাতাদের কেউ নন বলে দাবি করেছেন দেবব্রত। পদত্যাগ করতে পারেন কোয়াবের অন্য সদস্যরাও। তবে সভাপতি নাঈমুর রহমান দুর্জয় পদত্যাগ করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন একটি ইলেক্ট্রনিক সংবাদমাধ্যমকে।

বর্তমান কমিটির পদত্যাগ চেয়ে খেলোয়াড়দের নতুন নেতৃত্ব বাছাইয়ের সুযোগ সৃষ্টির জন্য ক্রিকেটারদের আহ্বান জানানোর প্রেক্ষিতে তিনি বললেন, ‘পদত্যাগ করব কেন? ওরা নতুন নেতৃত্ব চায়, জানে আমি নিজেও অনেক কাজে ব্যস্ত থাকি তাই আগের মত সময় দিতে পারি না। আমাদের কমিটির মেয়াদ ৬-৭ মাস আগে মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে। আমরা অবশ্যই সম্মেলন, এজিএম, ইলেকশন করব। আগের মত এখানেও নেতৃত্ব ঠিক করে নিতে পারবে খেলোয়াড়রা।’

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

সাকিবের ঘটনায় ‘মর্মাহত’ ও ‘স্তম্ভিত’ কোয়াব

জাতীয় লিগ শেষেই কোয়াবের নতুন নির্বাচন

কোয়াবের সদস্যপদ নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে ফিকা

ফিকা ঠিকই দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের পাশে

৬ ঘণ্টার ব্যবধানে ‘ইউটার্ন’ কোয়াব নেতাদের