Scores

পরিকল্পনার সঠিক বাস্তবায়ন চায় শ্রীলঙ্কা

বাংলাদেশের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালের আগে পরিকল্পনার সঠিক বাস্তবায়ন ঘটাতে চায় ফাইনালে মাশরাফি বিন মুর্তজার বাংলাদেশ দলের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। শুক্রবার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানান লঙ্কান দলের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক দীনেশ চান্দিমাল।

'ফাইনালের আগে এটি সতর্কবার্তা'

দুই দলের সর্বশেষ দেখায় বৃহস্পতিবার জয়ী হয়েছে শ্রীলঙ্কাই। এটি দলটিকে যোগাচ্ছে বাড়তি আত্মবিশ্বাস। তবে এই আত্মবিশ্বাস নয়, বরং ভালো খেলেই ফাইনাল জিততে চায় দলটি।

Also Read - হাথুরুসিংহের ছোঁয়ায় লঙ্কানদের 'নতুন কৌশল'


চান্দিমাল বলেন, ‘এভাবে আমরা ভাবছি না। তবে ঘরের মাঠে বাংলাদেশ খুবই ভালো একটি দল। কিছু ভালো প্লেয়ার আছে। এখনও তারা ভালো সাইড। তবে আমাদের যেটা করতে হবে ম্যাচের পরিকল্পনার সঠিক বাস্তবায়ন করে ম্যাচ জিততে হবে।’

প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ক্রিকেটের উপর গুরুত্বারোপ করে লঙ্কান অধিনায়ক আরও বলেন, ‘আপনাকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণভাবে খেলতে হবে। তাহলেই কেবল ভালো ফলাফল সম্ভব। কালকের ম্যাচের জন্য আমাদের বিশেষ কিছু পরিকল্পনা আছে। আমরা যদি তা প্রয়োগ করতে পারি তাহলে ভালো ফলাফল পাওয়া কঠিন হবে না।’

ফাইনাল নিশ্চিত করা জয়টি শ্রীলঙ্কাকে এনে দিয়েছে বাড়তি জ্বালানী ব্যবহারের সুযোগ। তবে সেই তুষ্টিতে ভোগে চাপ নিতে রাজি নন চান্দিমাল ও তার সতীর্থরা। তিনি জানিয়েছেন, ফাইনালে যেতেই হবে- এমন চাপ নিয়ে বাংলাদেশকে ১০ উইকেটে হারানোর ম্যাচটি খেলেননি তারা, ‘ফাইনালের আগে জয়টা সত্যিই অসাধারণ ছিল। আমরা আসলে ফাইনালে খেলার বিষয়টি মাথায় রেখে এদিন খেলিনি। আমরা দল হিসেবে খেলেছি। আমি শেষ সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেছি যে আমরা একটি ম্যাচকে মাথায় রেখে খেলবো। তাই করেছি।’

ফাইনালেও চাপমুক্ত থেকে খেলার প্রত্যাশা চান্দিমালের। ম্যাচ নিয়ে দলের পরিকল্পনার সঠিক প্রয়োগ ঘটিয়েই শিরোপার স্বাদ নিতে চায় শ্রীলঙ্কা। চান্দিমালের ভাষ্য, ‘ফাইনালেও আমরা তেমনি (বৃহস্পতিবারের মতো) খেলবো। কিছু মৌলিক বিষয় এখানে আছে। আমাদের উচিত হবে ম্যাচের পরিকল্পনায় অটুট থাকা। এবং তার সফল বাস্তবায়ন ঘটানো।’

আরও পড়ুনঃ নির্বাচকদের ভাবনায় আছেন রাজ্জাক-তুষাররা

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

তামিমের পাশে যাওয়ার সুযোগ সৌম্যর, দূর্ভাগ্য মুশফিকের

ত্রিদেশীয় সিরিজের আফসোস এখনও পোড়ায় মাশরাফিকে

টি-টোয়েন্টিতে ফিরতে চান সাকিব

‘মুশফিক প্রিয় ক্রিকেটার, রুবেল ভালো বন্ধু’

দায়টা কি শুধুই গামিনীর?