পরের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে চান মাশরাফি

মেলবোর্নে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে মাশরাফি বিন মুর্তজা
মেলবোর্নে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে মাশরাফি বিন মুর্তজা

মোঃ সিয়াম চৌধুরী

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে না খেলেই পয়েন্ট ভাগাভাগি একটা ভালো অবস্থানে নিয়ে গিয়েছিল। বাজে ফিল্ডিং আর ব্যাটিংয়ের দৈন্যদশা সেই ভালো অবস্থানকে নিয়ে গেছে বেশ দূরে।

Advertisment

শ্রীলঙ্কা ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেছিলেন, জয়ের জন্য টপ অর্ডারের দিকে তাকিয়ে তিনি। অথচ ম্যাচ হারার পেছনে সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা টপ অর্ডারেই! স্বাভাবিকভাবেই হতাশ অধিনায়ক, ‘উইকেট খুব ভালো ছিল। আসলে আমরা সব জায়গায় পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়ন করতে পারিনি।’ একইসাথে নড়াইল এক্সপ্রেসের কাঠগড়ায় বোলিংও, ‘ব্যাটিং যেমন জুটি হয় তেমনি বোলিংয়ে পার্টনারশিপ গুরুত্বপূর্ণ। জুটি হলে উইকেট পড়ার সুযোগ বেশি থাকে।’ তবে অনভ্যস্ত উইকেটে বোলারদেরও কিছু করার ছিল না বলে ইঙ্গিত মাশরাফির, ‘ফিল্ডিং আমাদের সর্বনাশ করেছে। তবে আমাদের বোলাররা তাদের সাধ্যমতো চেষ্টা করেছে। ভালো বলও করেছে। পরবর্তী ম্যাচে ভালো কিছু করার চেষ্টা করব। আশা করছি ইতিবাচক কিছু করতে পারব।’

ম্যাচ হারের পিছনে অচেনা মাঠ-কন্ডিশন কিংবা কথিত অপ্রতুল প্রস্তুতিকে কারণ হিসেবে দাঁড় করাচ্ছেন না বাংলাদেশের সেরা এই বোলার, ‘মেলবোর্নে ম্যাচ, রোমাঞ্চিত ছিল সবাই এবং তা থাকারই কথা। অনুশীলনের কথা বললে বলব শেষ ৩-৪ সপ্তাহ আমরা অনুশীলনের ভেতরই ছিলাম। এক দিনের অনুশীলনে কোনো কিছু চেইঞ্জ হয় না। তারপরও অপশনাল অনুশীলন ছিল। অনেকে এসেছে। যার যেটা সমস্যা ছিল, সে তার সমস্যাগুলো নিয়ে কাজ করেছে।’ নিজেদের ব্যর্থতা অকপটে শিকার করে নিলে টাইগার দলপতি, ‘আমার মনে হয় হারের পেছনে কারণ- আমরা ভালো খেলতে পারিনি… এটাই। আমাদের যে পরিকল্পনাগুলো ছিল, আমরা তার বাস্তবায়ন করতে পারিনি। এটাই বড় কারণ।

প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যান দিলশান আর সাঙ্গাকারাই দুই দলের মূল পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে তাঁদের প্রশংসা ঝরল মাশরাফির কণ্ঠে, ‘দিলশান ও সাঙ্গাকারা গ্রেট খেলোয়াড়। তারা সেটা আজ আমাদের দেখিয়েছে। ম্যাচে জয় ভিন্ন অন্য কিছু আপনি চিন্তা করতে পারেন না।’

অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে টাইগারদের বিশ্বকাপ অভিযানে এই ম্যাচকে সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা হিসেবে দেখছেন মাশরাফি, ‘আমি মনে করি এটা এই টুর্নামেন্টে আমাদের সবচেয়ে বাজে ম্যাচ ছিল।’ সেই সাথে বললেন, ফিল্ডিংয়ে দৃষ্টিকটু ভুল আর ক্যাচ মিসের মহড়া ম্যাচ থেকে আরও ছিটকে দিয়েছে বাংলাদেশকে, ‘আমরা প্রথম দিন যখন এখানে এসেছি, শুরুতেই ফিল্ডিং অনুশীলন করেছি। এখন যেটাই বলব তাই এক্সকিউজ হয়ে দাঁড়াবে এখানে। আমাদের মেনে নেওয়াটাই ভালো আমরা ভাল খেলতে পারিনি। হয়তো ক্যাচগুলো নিলে ম্যাচটা অন্যরকম হতে পারত। আসলে আমরা সব জায়গায় পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়ন করতে পারিনি। ক্যাচ মিস হওয়া, ফিল্ডিং খারাপ হওয়া এটা খেলার অংশ।’

বাংলাদেশের পরবর্তী ম্যাচ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে। ৫ মার্চ নিউজিল্যান্ডের নেলসনে বাংলাদেশ সময় ভর ৪টায় শুরু হবে ম্যাচটি। সেই ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে আশাবাদী মাশরাফির দল।

1 COMMENT