Scores

পাকিস্তানকে বাদ দিলে আইসিসির ক্ষতি ১৭০ কোটি টাকা!

১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতশাসিত জম্মু-কাশ্মীরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় প্রাণ হারান দেশটির সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) ৪৯ জনেরও বেশি সদস্য। এ ছাড়া মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন আরও কয়েকজন। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ভারতীয় বাহিনীর ওপর এটাই সবচেয়ে বড় হামলা। এদিকে ৪৯ জওয়ান নিহতের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আসন্ন ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ভারতের ম্যাচ বয়কটের দাবি তুলেছেন ভারতীয়রা। এতে সাঁয় দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। দাবি বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছেন বোর্ড কর্তারা।

পাকিস্তানকে বাদ দিলে আইসিসির ক্ষতি ১৭০ কোটি টাকা

ইতোমধ্যে বিশ্বকাপ থেকে পাকিস্তানকে বাদ দিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) কাছে নাকি প্রস্তাব করেছেন তারা। এমনকি বিশ্ব ক্রিকেট থেকে পাকিস্তানকে একঘরে করারও দাবি জানানো হয়েছে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) বরাবর একটি চিঠিও দিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)

Also Read - রোডস জানালেন- কেন একাদশে নেই মুস্তাফিজ


যদিও আইসিসি তাতে সাড়া না দিয়ে খেলোয়ারদের নিরাপত্তা বাড়ানোর কথা বলেছেন। পাকিস্তানকে বাদ দিলে সবচেয়ে বড় ক্ষতির সম্মুক্ষীণ হবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। গুনতে হতে পারে প্রায় ১৭০ কোটি টাকা।

আগামী ৩০ মে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসে গড়াবে আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপ-২০১৯। ১৬ জুন ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে হওয়ার কথা পাক-ভারত ব্যাট-বলের লড়াই। সেই ম্যাচ বর্জনে তোড়জোড় শুরু করেছে বিসিসিআই। ক্রিকেট বিশ্বের বোর্ডগুলোর সমর্থন জোগাড়ে কূটনৈতিক লড়াইও শুরু করেছে বোর্ড।

বিশ্ব ক্রিকেটের অভিভাবক আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)এর তথ্যমতে, ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে শুধুমাত্র টিকিট বিক্রি থেকেই আসতে পারে ৩০-৪০ কোটি টাকা। ১৩০ কোটি টাকা আয় হতে পারে টিভি সম্প্রচার, বিজ্ঞাপন এবং অন্যান্য সত্ত্ব থেকে। সবমিলিয়ে ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচ থেকে ১৭০ কোটি টাকা লাভ হতে পারে। নিয়মানুযায়ী, সব অর্থই জমা হওয়ার কথা আইসিসির কোষাগারে। তাই বাতিল হলে বড় ধরনের লোকসানের মুখে পড়বে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।

এমনকি ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে ম্যাচ আয়োজন করলে লোকসানে পড়বে আইসিসি ও ভারতীয় বোর্ড। কারণ, তখন ভারতীয় ভূখণ্ডে ম্যাচের টিভি সম্প্রচারে বিজ্ঞাপনী আয়ে ২০০ শতাংশ জিএসটি (পণ্য-পরিষেবা কর) বসাতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার। সেক্ষেত্রে বেসরকারি টিভি চ্যানেলের পাশাপাশি আইসিসি এবং বোর্ডও ম্যাচ আয়োজন করলেও প্রবল ক্ষতির মুখে পড়তে পারে। সব মিলিয়ে ম্যাচ ঘিরে লাভ-লোকসানের এর হিসাব বেড়েই চলেছে।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ফিক্সিংয়ের অভিযোগে নিষিদ্ধ আরব আমিরাতের চার ক্রিকেটার

আইসিসিকে নিশামের খোঁচা

ভারতের দাবি উপেক্ষা করে টুর্নামেন্ট বাড়াচ্ছে আইসিসি

সুপার ওভারের নিয়মে পরিবর্তন আনল আইসিসি

তুলে নেওয়া হল জিম্বাবুয়ের নিষেধাজ্ঞা