পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে স্লোগান, টুইটারে সমালোচনার ঝড়

বিশ্বকাপের আফগানিস্তান পাকিস্তান লড়াইয়ে দুই দলের মাঠের ভিতরের লড়াইয়ের তুলনায় মাঠের বাইরের লড়াই বেশি আলোচনায় রয়েছে। খেলার আগেই পাকিস্তানি তারকা ক্রিকেটার শোয়েব আখতার ইউটিউব চ্যানেলে ঘোষণা দেন আফগানিস্তান দলকে ক্রিকেট শেখানোর। আফগানিস্তানি দলকে কড়া ভাষায় নিন্দা করেন শোয়েব। প্রশ্ন তুলেন তাদের নাগরিকত্ব নিয়ে।

 

Advertisment

লিডসের আকাশে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে স্লোগান, আইসিসির হুশিয়ারি

খেলার সময় মাঠের বাইরে লড়াইয়ে জড়িয়ে পরে আফগানিস্তান ও পাকিস্তান দলের সমর্থকেরা। দুই দলের সমর্থকদের থামাতে নিয়োগ দেওয়া হয় বিশেষ পুলিশ। তবে এইসব ছাপিয়ে লিডসের আকাশে বিমানে করে ভেসে উঠা স্লোগান এখন আলোচনার মূল বিষয়।

খেলা চলাকালীন লিডসের হেডিংলি স্টেডিয়ামের উপর দিয়ে উড়ে যাওয়া বিমানে কিছু ব্যানার দেখা যায়। প্রথম ব্যানারে লিখা ছিলো পাকিস্তানের বেলুচিস্তানের বিভিন্ন মানুষের গায়েব হয়ে যাওয়া বন্ধের অনুরোধের কথা। দ্বিতীয় বিমানে লিখা ছিলো জাস্টিস ফর বেলুচিস্তান। উভয় স্লোগানই বেলুচিস্তানে নিয়মিত বিভিন্ন মানুষের গায়েব হয়ে যাওয়ার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ।

বেলুচিস্তানের জনগণের অভিযোগ সরাসরি পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বিপক্ষে। তাদের দাবি পাকিস্তানি সেনাবাহিনী এইসব করছে ও বেলুচিস্তানের বিভিন্ন লোকদের নিয়ে মেরে ফেলছে। এইসব বন্ধ করতে বিশ্ব মিডিয়ার নজর পাওয়ার জন্য তাদের এই চেষ্টা।

স্টেডিয়ামের বাইরেও বিভিন্ন জায়গায় বেলুচিস্তানে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর করা অত্যাচারের বিরুদ্ধে পোস্টার দেখা গিয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে বেলুচিস্তান ইস্যু পাকিস্তান ও আফগানিস্তান সমর্থকদের মাঝে আজকের মারামারির অন্যতম কারন।

তবে বিশ্বকাপের মতো আসরে খেলার মাঠের উপর দিয়ে যাওয়া বিমানে রাজনৈতিক স্লোগান ভালোভাবে নেয়নি আইসিসি। আইসিসি এক বার্তায় জানায় ” আইসিসি এই ধরনের কোন স্লোগান সমর্থন করেনা। আমরা স্থানীয় পুলিশের সাথে আলোচনে করবো কেন এমন হয়েছে ও নিশ্চিত করবো ভবিষ্যতে যাতে এমন কোন ঘটনা না হয় “।

কিছুদিন আগে দক্ষিণ আফ্রিকা পাকিস্তান ম্যাচের পরও লর্ডসের বাইরে এই রকম স্লোগান সহ পোস্টার দেখা যায়। তবে পাকিস্তান ভক্ত সমর্থকরা সেগুলো ছিড়ে ফেলে ম্যাচ শেষে।

আরও দেখুনঃ

ভারতবধের পরিকল্পনা টাইগারদের/রোববার অনুশীলন শুরু