Scores

‘পাকিস্তানেরও এমন কিছু পা কাঁপাকাপি করা খেলোয়াড় দরকার’

বিতর্ক ও শহীদ আফ্রিদি যেনো একে অপরের পরিপূরক হয়ে দাড়িয়েছে কিছুদিন ধরে। বিভিন্ন বিতর্কিত বক্তব্য দিয়ে আলোচনায় আছেন আফ্রিদি অবসরের পরও। তবে তার বক্তব্যকে ভালভাবে নিচ্ছেননা পাকিস্তানের ক্রীড়া সাংবাদিকরা। কিছুদিন আগেই ভারত পাকিস্তান ম্যাচ শেষে ভারতীয় খেলোয়াড়দের তাদের কাছে ক্ষমা চাওয়ার কথা বলেন আফ্রিদি।

আফ্রিদির কথার পাত্তা দিতে না করলেন পাকিস্তানি সাংবাদিকরা
সাংবাদিক : ওয়াহিদ খান

সম্প্রতি আবার শোয়েব আখতারের বলে শচীনের পা কাঁপার কথা বলেন আফ্রিদি। আফ্রিদি বলেন, ‘শচীন অবশ্যই নিজে বলবে না সে ভয় পাচ্ছে। কিন্তু শোয়েবের এমন কিছু স্পেল ছিল যেখানে শচীন কেন, বিশ্বের যেকোনো সেরা ব্যাটসম্যানই কেঁপে উঠবে।’

আফ্রিদির দাবি, তিনি নিজেই শচীনের এই ভয়-দর্শন করেছেন। তিনি বলেন, ‘মিড অফ ভা কভার এলাকায় ফিল্ডিং করার সময় আপনি ব্যাটসম্যানের শরীরী ভাষা পড়তে পারবেন। সে যখন চাপে থাকবে, স্বাভাবিক খেলা খেলতে পারবে না আপনি তখন তা বুঝতে পারবেন। এমন নয় শোয়েবের সব বলই শচীন ভয় পেত। তবে কিছু স্পেল তো ছিলই, যা শচীন খেলতে পারত না।’

Also Read - পেসারদের ভিডিও কলে পরামর্শ দিচ্ছেন গিবসন


এই ধরনের বক্তব্যের বিরোধিতা করেছেন পাকিস্তানের জনপ্রিয় ক্রিকেট সাংবাদিকরা। আফ্রিদির বক্তব্যের কতটুকু গুরুত্ব দেওয়া উচিত তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেন তারা।

সাংবাদিক ওয়াহিদ খান তার ইউটিউব চ্যানেলে ভারতীয় খেলোয়াড়দের পাকিস্তানের কাছে ক্ষমা চাওয়ার বিষয়ে বলেন, “আমাদের পুরনো খেলোয়াড়রা করোনার সময় আজেবাজে কথা বলছেন বেশি। তাদের সতর্ক হওয়া উচিত। তারা ইচ্ছা করেই মরিচ মশলা মাখিয়ে বিভিন্ন কথা বলছেন। এটা ঠিক ৮০ বা ৯০ এর দশকে পাকিস্তান ভারতের তুলনায় অনেক এগিয়ে ছিল তবে ৯৬ – ৯৭ সালের পর যখন আফ্রিদির অভিষেক হয় তখন থেকে এই পর্যন্ত জয়ের হিসাব করলে দেখা যাবে ভারত পাকিস্তানের তুলনায় কিছুটা এগিয়ে। আমরা বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে ৭ বারের দেখায় ৭ বারই ভারতের বিপক্ষে হেরেছি। আবার আমাদের ভক্তরা বলতে পারে আমরা চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে জয় লাভ করেছি, এইসব চলতেই থাকবে। আমার মতে আফ্রিদির কথার তেমন পাত্তা দেওয়ার দরকার নেই। কারন এটাতো হতে পারেনা ভারতের খেলোয়াড়রা খেলা শেষে আমাদের কাছে এসে মাফ চাইবে, এমন হওয়ার কোন সুযোগ নেই। তাই আমার অনুরোধ আফ্রিদির কথা হালকাভাবে নিতে, এত গুরুত্ব দেওয়ার দরকার নেই।”

শচীন শোয়েবকে ভয় পেতেন আফ্রিদির এমন কথায় সাংবাদিক রিজওয়ান হায়দার ও মহসিন আলী তাদের ইউটিউব চ্যানেলের অনুষ্ঠানে কড়া সমালোচনা করেন আফ্রিদির।

রিজওয়ান বলেন, “৯৯ এর বিশ্বকাপে ভারত আমাদের বিপক্ষে ২২৫ রানের মত করে, তবু আমরা জিততে পারিনি। শোয়েব ৫৪ রান দেন ১০ ওভারে সেই ম্যাচে। ২০০৩ সালে তো শচীন আমাদের বিপক্ষে ৯৮ করেন, শোয়েব সেই ১০ ওভারে ৭২ রান দেন। এরপরও যদি আফ্রিদি পা কাঁপার কথা বলেন শচীনের শোয়েবের বিপক্ষে তাহলে আমি বলবো পাকিস্তানেরও এমন কিছু পা কাঁপাকাপি করা খেলোয়াড় দরকার। পা কাঁপাকাপি করে যদি শচীনের মত এত ভাল করতে পারে তাহলে আমাদেরও এমন খেলোয়াড় দরকার। ”

মহসিন আলী বলেন, “আমি বুঝিনা যখনই পরিস্থিতি ভাল থাকে তখনই আমাদের খেলোয়াড়রা কেন এইসব বক্তব্য দেন? কখনো আমাদের এখান থেকে, কখনো তাদের ওখান থেকে এই ধরনের আজেবাজে বক্তব্য আসে। শচীনের মত খেলোয়াড় যে ৩৫০০০ মত রান করেছে তাকে নিয়ে এইসব বলা মানায় না। আল্লাহ আপনাকে সম্মান দিয়েছে পৃথিবীতে, আপনারও উচিত হবে অন্যের সম্মান করা।”

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

‘শোয়েব আখতার পুরোপুরি পাগল হয়ে গিয়েছেন’

পাকিস্তানি সাংবাদিকের চোখে সাকিবের চেয়েও ভালো অলরাউন্ডার জাদেজা

পাকিস্তানিরা সাহায্য চায় না বলে শোয়েবের আক্ষেপ

ইন্টারনেটে রেকর্ড গড়লো বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসর

ভিডিও: ইংরেজ ভক্তদের গানে তামিমের সেঞ্চুরি উদযাপন!