Scores

পিএসএল অভিষেকেই অপ্রতিরোধ্য মুস্তাফিজ

 

বাংলাদেশ জাতীয় দলের তরুণ তুর্কি মুস্তাফিজুর রহমান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পরই নামের সাথে বিভিন্ন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের কাছ পেয়েছেন নানাবিধ তকমা। ঠিক কি কারণে তাকে আলাদা নজরে দেখে এসকল ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা তা পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) নিজের অভিষেক ম্যাচেই হাড়ে-হাড়ে টের পাইয়ে দিলেন এ গতিতারকা।

Also Read - আশরাফুলের চোখে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হারের কারণ


পিএসএলের তৃতীয় ম্যাচে মুলতান সুলতান্সের বিপক্ষে যখন লাহোর কালান্দার্সের বোলারদের অসহায়ত্ব দেখা যাচ্ছিল ঠিক তখনই ম্যাচের পাল কিছুটা নিজেদের দিকে ঘুরিয়ে দেন মুস্তাফিজ। দলের প্রত্যেক বোলার ওভারপ্রতি ছয়ের বেশি রান করে রান খরচ করলেও কৃপণতার পরিচয় দেন বাঁহাতি এ পেসার।

শুধু রানের চাকাই ধরে রাখেননি বরং অধিনায়ক যখন যে অবস্থাতে তাকে আক্রমণে এনেছে, সে অবস্থাতেই ব্রেকথ্রু দিয়ে দলকে আবারও লড়াইয়ে ফিরিয়ে আনতে অসামান্য ভূমিকা পালন করেন। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে মুলতান সুলতান্স ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭৯ রান সংগ্রহ করলেও, ওভার প্রতি ৫.৫০ ইকোনমি রেটে রান দিয়ে ২২ রানে মূল্যবান দুটি উইকেট শিকার করেন তিনি।

মুস্তাফিজের নির্ধারিত ৪ ওভারের মধ্যে ছিল না কোনো ওয়াইড কিংবা নো বল। তাছাড়া তার করা ২৪ বলের মধ্যে ১৪টিই ছিল ডট বল। নিঃসন্দেহে এটি একই সাথে তার এবং দলের জন্য অনেকটা স্বস্তিদায়ক ব্যাপার ছিল।

আহমেদ শেহজাদকে দিয়ে মুস্তাফিজের উইকেট প্রাপ্তি শুরু হয় এ ম্যাচে। ইনিংসের একাদশতম ও ব্যক্তিগত দ্বিতীয় ওভারে আক্রমণে এসেই দলকে প্রথম সাফল্য এনে দেন তিনি। ওভারের প্রথম বলটি লেগ স্টাম্পের বাইরে পড়ে বেরিয়ে যাওয়ার মুহূর্তে খেলতে গিয়ে উমর আকমলের গ্লাভসবন্দী হয়ে সাজঘরে ফিরেন শেহজাদ। এরপর ইনিংসের ১৭তম ওভারে আবারও বল করতে এসে সাফল্যর মুখ দেখেন ফিজ নামে পরিচিতি পাওয়া এ বোলার। এবার তার ফাঁদে পা দিয়ে তুলে মারতে গিয়ে আউট হন মুলতানের হয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক (৪৪ বলে ৬৩) কুমার সাঙ্গাকারা।


আরও পড়ুনঃ আশরাফুলের চোখে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হারের কারণ

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

শাস্তি কমলো উমর আকমলের

জাতীয় দলে ডাক পেতে পাকিস্তানে যাওয়ার ঝুঁকি নিয়েছিলেন বিজয়

মধ্যরাতে হেলসের এই ম্যাসেজেই বন্ধ হয়ে যায় পিএসএল

পিএসএলের বাকি অংশ ৮ মাস পর

স্থগিত পিএসএল সম্পন্ন করতে পিসিবির নতুন পরিকল্পনা