পিয়েত-মুতুস্বামীও বাঁচাতে পারলো না দক্ষিণ আফ্রিকার হার

0
452

তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের চতুর্থ ইনিংসে ভারতের বিপক্ষে টপকাতে হতো ৩৯৪ রান। পাহাড়সম এই রানের নিচেই যেন চাপা পড়লো দক্ষিণ আফ্রিকার টপ অর্ডার ও মির্ডল অর্ডার। শেষদিকে এসে চেষ্টা চালিয়েছিলেন সফরকারীদের দুই ব্যাটসম্যান ডেন পিয়েত ও সেনুরান মুতুস্বামী। তবে শেষরক্ষা হয়নি প্রোটিয়াদের, ম্যাচ হারতে হয়েছে ২০৩ রানের বড় ব্যবধানে।

Advertisment

ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ভারত ৫০২ রানে ইনিংস ঘোষণা করার পর নিজেদের প্রথম ইনিংসে অলআউট হওয়ার আগে স্কোর বোর্ডে ৪৩১ রানের সংগ্রহ পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ফলে প্রথম ইনিংসে ৭১ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেটে ৩২৩ রান তোলার পর চতুর্থ দিনের শেষ বিকালে নিজেদের ইনিংস ঘোষণা করে দেয় ভিরাট কোহলির দল। সবেমিলে প্রটিয়াদের সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৯৫ রানের।

পাহাড়সহ এই টার্গেট টপকাতে নেমে দলীয় ১১ রানে গতকালই ওপেনার ডিন এলগারের উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারীরা। তাইতো ম্যাচের শেষদিনে আজ জয়ের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার সামনে প্রয়োজন ছিলো ৩৮৬ রান, ভারতের দরকার ৯ উইকেট। এমতাবস্থায় ব্যাট করতে নেমে ভারতীয় দুই বোলার রবীন্দ্র জাদেজা ও মোহাম্মদ শামির বলে খেই হারিয়ে বসে প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানরা।

দলীয় ৭০ রান তুলতেই যখন ৮ উইকেট হারিয়ে বসে ফাফ ডু প্লেসিসের দল, তখন দলের হাল ধরেন লেজের দিকের দুই ব্যাটসম্যান পিয়েত ও মুতুস্বামী। নবম উইকেটে ১৯৪ বলে ৯১ রানের জুটি গড়ে ভালোই প্রতিরোধ গড়েছেন এই দুজন। তবে শেষরক্ষা হয়নি সফরকারীদের।

নিজের অর্ধশত তুলে নেওয়ার পর পিয়েত ৫৬ রান করে আউট হয়ে গেলে খানিক বাদে দলীয় ১৯১ রানে গুটিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ফলে ম্যাচ হারতে হয় ২০৩ রানের বড় ব্যবধানে। তবে শেষ ব্যাটসম্যান হিসাবে ব্যক্তিগত ১৮ রানে কাগিসো রাবাদা শামির পঞ্চম শিকারে পরিণত হলেও শেষপর্যন্ত ৪৯ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন মুতুস্বামী।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

ভারতঃ প্রথম ইনিংস- ৫০২/৭ ডিক্লেয়ার; মায়াঙ্ক আগারওয়াল ২১৫, রোহিত শর্মা ১৭৬; কেশব মহারাজ ৩/১৮৯

দ্বিতীয় ইনিংস- ৩২৩/৪ ডিক্লেয়ার; রোহিত শর্মা ১২৭, চেতশ্বর পূজারা ৮১; কেশব মহারাজ ২/১২৯

দক্ষিণ আফ্রিকাঃ প্রথম ইনিংস- ৪৩১/১০ ফিন এলগার ১৬০, কুইন্টন ডি কক ১১১; রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৭/১৪৫

দ্বিতীয় ইনিংস- ১৯১/১০ ডেন পিয়েত ৫৬, সেনুরান মুতুস্বামী ৪৯*; মোহাম্মদ শামি ৫/৩৫

ফলাফলঃ ভারত ২০৩ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরাঃ রোহিত শর্মা।