Scores

তামিমদের অবিশ্বাস্য জয় এনে দিলেন স্যামি

রিয়াদের কোয়েটার বিপক্ষে স্যামির অসাধারণ ইনিংসে পাঁচ উইকেটের জয় পেয়েছে সাব্বির-তামিমের পেশোয়ার জালমি।

শারজায় টস জিতে পেশোয়ার জালমি ব্যাটিংয়ে পাঠায় কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সকে। ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ধীরে করে কোয়েটা। তিন ওভারে দশ রান তুলতেই হারায় এক উইকেট। দশ বলে এক চারে নয় রান করে আউট হন আসাদ শফিক। এরপর ফর্মে থাকা শেন ওয়াটসন শুরু করেন মারকুটে ব্যাটিং। অন্যপ্রান্তে ধীর গতির ব্যাটিং করতে থাকেন উমর আমিন। পাওয়ার প্লের ছয় ওভার শেষে স্কোরবোর্ডে জমা হয় মাত্র ৩১ রান।

Also Read - ম্যানেজার হিসেবে শ্রীলঙ্কা যেতে চান না সুজন


 

দলীয় ৬০ রানের সময় নবম ওভারে ড্যারেন স্যামির বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান আমিন। এর কিছুক্ষণ পরেই খালিদ উসমানের বলে বোল্ড হন ওয়াটসন। পাঁচ ছয় আর এক চারে ৩২ বলে ৪৭ রান করেন অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার।

এরপর আগের ম্যাচে রান করা কেভিন পিটারসেন আউট হয়ে গেলে ৮৩ রানে চার উইকেট হারিয়ে বসে কোয়েটা। পিটারসেনের ব্যাট থেকে পাঁচ রান। এরপর উইকেটে সাউথ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান রাইলি রুশো। তাকে অন্যপ্রান্ত থেকে সঙ্গ দেন কাপ্তান সরফরাজ আহমেদ।

যখন ১৫০ রান পার করার স্বপ্নে বিভোর কোয়েটা তখনই আউট হয়ে যান রুশো। দলীয় ১২৫ রানে উমাইদ আসিফের বলে বাংলাদেশী টি-টোয়েন্টি স্পেশালিষ্ট সাব্বির রহমান এর হাতে তালুবন্দি হন। দুই চার আর সমান সংখ্যক ওভার বাউন্ডারিতে ২৫ বলে ৩৭ রান করেন রুশো।

পরের ওভারেই ১৫ বলে ১৭ রান করা অধিনায়ক সরফরাজ আউট হলে গেলে ১৫০ রান আর ছুঁতে পারে নি কোয়েটা। মোহাম্মদ নাওয়াজ কিংবা জন হেস্টিংস কেউই পারেন নি শেষটা রাঙিয়ে দিতে। আর তাই সীমিত ২০ ওভার শেষে আট উইকেট হারিয়ে ১৪১ রানের বেশি আর তুলতে পারে নি কোয়েটা।

কোয়েটার হয়ে দুটি করে উইকেট নেন উমাইদ আসিফ, ওয়াহাব রিয়াজ ও ড্যারেন স্যামি।

১৪২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভালো শুরু করে পেশোয়ার। কিন্তু ২৩ রানে তামিম ইকবালের ওপেনিং সঙ্গী কামরান আকমল ৮ বলে দুই চারে দশ রান করে আউট হয়ে যান। এরপর শুরু হয় ডোয়াইন স্মিথ এর তাণ্ডব একাই তুলোধুনা করতে থাকেন কোয়েটার বোলারদের। জন হেস্টিংস এর এক ওভারে থেকেই আসে আঠার রানের মত।

পাওয়ার প্লের ছয় ওভারে আসে ৪৮ রান। ১৪ বলে ২৩ রান করে মোহাম্মদ নাওয়াজের আর্ম বলে বোকা বনে লাইন মিস করে বোল্ড হন স্মিথ।

অন্যদিকে নিজের উইকেট আগলে রাখেন বাংলাদেশের সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। হাফিজ নেমে রিকোয়ার্ড রান রেটের সাথে ভালোই এগিয়ে যাচ্ছিলেন দুইজন। বাধ সাধে টাইম আউট। টাইম আউটের ঠিক পরের ওভারেই আউট হয়ে যান হাফিজ। ৩৪ বলে ২৯ রানের ইনিংস খেলেন হাফিজ যার মধ্যে ছিল দুই চার আর এক ছয়।

১৫তম ওভারে হাফিজ আউট হওয়ার পরেই ১৬ তম ওভারে রান আউটে কাটা পরেন আরেক সঙ্গী তামিম। থার্ড  ম্যানে বল ঠেলে দুই রান নিতে গিয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। আউট হওয়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ৩৬ রান। ৩৮ বলের ইনিংসে ছিল এক ছয় আর তিন চার।

এরপর সাব্বির নামলেও বেশি সুবিধা করতে পারেন নি। ১১ বলে এক চারে ১১ রান করেন সাব্বির। অধিনায়ক স্যামি নেমেই সব সমীকরণ শেষ করে দেন। চার বলে দুই ছয় আর এক চারে ১৬ রান করেন তিনি আর  দুই বল বাকি থাকতে জয়ের বন্দরে নৌকা ভেরায় পেশোয়ার।

কোয়েটার হয়ে একটি করে উইকেট নেন রাহাত আলি, জন হেস্টিংস, শেন ওয়াটসন ও মোহাম্মদ নাওয়াজ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

কোয়েটাঃ

১৪১/৮ ( ২০ ওভার )

ওয়াটসন ৪৭, রুশো ৩৭

ওয়াহাব রিয়াজ ২/১৬, উমাইদ আসিফ ২/১৮

পেশোয়ারঃ

১৪৩/৫ ( ১৯.৪ ওভার )

তামিম ৩৬, হাফিজ ২৯, স্যামি ১৬*

ওয়াটসন ১/১৬, নাওয়াজ ১/১৭

ফলাফলঃ পেশোয়ার জালমি পাঁচ উইকেটে জয়ী

 

আরো পড়ুনঃ ‘বাংলাদেশের ক্রিকেটকে বুলবুল সময় দিতে পারবে না’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

পিএসএলের নতুন চ্যাম্পিয়ন কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্স

ওয়াটসন-রুশোর ঝলকে জয় পেল কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরস

ব্যাটিংয়ে কোয়েটা, খেলছেন রিয়াদ

পিএসএলে রাতে মুখোমুখি তামিম-রিয়াদ

ইসলামাবাদের বিপক্ষে জয় পেল রিয়াদের কোয়েটা