SCORE

পেসারদের কাছে প্রত্যাশা কমানোর তাগিদ ওয়াকারের

সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে দেশের ক্রিকেট দিনকে দিন উন্নতি করলেও আলাদাভাবে দৃশ্যত কোনো উন্নতি নেই পেসারদের। ২০১৪ বিশ্বকাপের পর পেস বোলিং নিয়ে আশার আলো দেখা গেলেও বর্তমানে সেটি একেবারেই নিষ্প্রভ। বিশেষ করে টেস্টে; যেখানে খেলছেন না মাশরাফি বিন মুর্তজার মতো দেশসেরা পেসারও।

পেসারদের কাছে প্রত্যাশা কমানোর তাগিদ ওয়াকারের

সম্প্রতি এ নিয়ে দেশের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম মানবজমিন’র সাথে কথা বলেছেন পাকিস্তানের জনপ্রিয় ক্রিকেট ব্যক্তিত্ব ও বিশ্ব কাঁপানো সাবেক পেসার ওয়াকার ইউনিস।

Also Read - 'বাংলাদেশকে অনেক ভালোবাসি'

তার মতে, টেস্ট ক্রিকেটে আবির্ভাবের সময় অনুযায়ী এখনই বাংলাদেশের পেসারদের কাছে বেশি আশা করা ঠিক হবে না। আলাপকালে ওয়াকার বলেন, ‘আমি বাংলাদেশের খোঁজ খবর প্রায় সময়ই রাখি। সম্প্রতি এখানে অনেক প্রতিভাবান পেসার উঠে এসেছে। যেমন তাসকিন আহমেদ দারুণ একজন বোলার, রুবেল হোসেন, কামরুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, আবুল হাসান রাজু দারুণ বল করে। কিন্তু আমার কথা হলো, তারা কত দিন ধরে টেস্ট খেলে? কিংবা বাংলাদেশ কত দিন হল টেস্ট খেলে? ১৭ বছর! এত অল্প সময়ে পেসারদের কাছে এত আশা করা ঠিক নয়।’

এ সময় তিনি জানান পাকিস্তানের পেস আক্রমণভাগ শক্তিশালী হওয়ার কারণও- ‘আমাদের পাকিস্তান ৫০ বছর ধরে খেলতে খেলতে একটা পর্যায়ে এসেছে। গ্রেট পেসারদের দেখে এখন পাকিস্তানের পেসাররা ভালো করে। এখনই হতাশ হওয়ার কিছুই নেই। যত দিন যাবে, যত টেস্ট খেলবে, পেসাররা ততোই ভালো করবে। অভিজ্ঞতা অনেক বড় একটা বিষয়।’ 

ওয়ানডেতে বাংলাদেশ লড়াকু পারফরমেন্স প্রদর্শন করলেও টেস্টে তা একেবারে নেই। বিশেষ করে লঙ্গার ভার্শনে পেসাররা থাকছেন একদম নিষ্ক্রিয়। এর কারণ কী? ওয়াকারের উত্তর, ‘এর উত্তরটা একেবারেই পরিষ্কার। পাকিস্তানের কথা বলুন আর অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত- সবারই ক্রিকেট ইতিহাস অনেক লম্বা সময়ের। কারও কারও তো ১০০ বছরের ক্রিকেট ইতিহাস। টেস্ট ক্রিকেট এমন একটা ফরম্যাট যেখানে এত অল্প সময়ে বড় আশা করা ভুল। বাংলাদেশের পেসাররা সঠিক পথেই আছে। শুধু সময় প্রয়োজন।’ 

পেস বোলিংয়ের উন্নতিতে এ সময় একাডেমি করার উপরও গুরুত্বারোপ করেন তিনি, ‘পেসারদের জন্য স্পেশাল কোনো কিছু প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি না। তবে তাদের সঠিক পথে চালোনার জন্য একটি পেস বোলিং একাডেমি থাকা দরকার। যেখানে তারা বোলিংই নয়, ইনজুরি ম্যানেজমেন্টটাও জানবে। এ ছাড়াও কিছু ক্যাম্প করা যেতে পারে পেসারদের জন্য। যেমনটা অস্ট্রেলিয়া করে থাকে। অনেক বিদেশি কোচ আসে বাংলাদেশে। তোমরা রাতারাতি পেস বোলিং উন্নতি করবে সেটা আশা না করে যেসব প্রতিভা আছে তাদের জন্য সময় দিতে হবে। তাহলেই ভালো করবে তারা।’

আরও পড়ুনঃ নিয়ম রক্ষার ম্যাচেও কুমিল্লার জয়

Related Articles

টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তানের সাফল্যের কারণ আইপিএল!

সিলেট সিক্সার্সের কোচ হলেন ওয়াকার ইউনিস

যে সাক্ষাৎকারে প্রেরণা পেয়েছিলেন মাশরাফি

ওয়াকারের রেকর্ড ভাঙ্গতে সাকিবের প্রয়োজন ৩ উইকেট

রিভার্স সুইং নিয়ে ফিরেছেন রাজু