Scores

পেস বোলিংয়ে ‘অনাগ্রহ’; ওয়ালশের আক্ষেপ নেই

টেস্ট সিরিজে বাংলাদেশ দলের পেস আক্রমণভাগ ছিল নিষ্ক্রিয়। অবশ্য নিষ্ক্রিয় তো থাকবেই, পেসাররা খেলার সুযোগ পেলে তো! চট্টগ্রাম টেস্টে মুস্তাফিজুর রহমান একাদশে থাকলেও বল করেছিলেন মাত্র ৪ ওভার। ঢাকা টেস্টে তো একাদশে কোনো পেসারের জায়গাই হয়নি।

কোর্টনি ওয়ালশ
কন্ডিশনের কারণে এবার ব্যস্ততা কম ছিল কোর্টনি ওয়ালশের। ফাইল ছবি: এএফপি

পেসারদের প্রতি হুট করে এই ‘অনাগ্রহের’ কারণ ছিল কন্ডিশন। স্পিন বান্ধব উইকেটের সুবিধা কাজে লাগাতে বাংলাদেশ বোলিং আক্রমণভাগ সাজিয়েছিল স্পিন দিয়েই। তাতে এসেছে সাফল্যও। আর এই কারণেই কোনো আক্ষেপ থাকছে না পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের।

ওয়ালশের কাছে জয়টাই মুখ্য। তাই তার ডিপার্টমেন্টকে টেস্ট সিরিজে গুরুত্ব না দেওয়ার কারণে মোটেও নাখোশ নন তিনি। ওয়ালশ বলেন, ‘আমরা এখানে টেস্ট জেতার জন্য খেলেছিপিচ যেমনই হোক, কম্বিনেশন যা-ই হোক আসল কথা হলো বাংলাদেশ জিতছে কিনাআমি এটা নিয়েই খুশি।’

উইন্ডিজের সাবেক এই ক্রিকেটার ভালো করেই জানেন বাংলাদেশ সফররত দলটির সমৃদ্ধ পেস বোলিং আক্রমণের কথা। তার অভিমত, বাংলাদেশের বোলিং আক্রমণ সমৃদ্ধ স্পিন দিয়ে। তিনি বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ যখন প্রভাব বিস্তার করত তারা চার পেসার খেলাতোএখন চার স্পিনার নিয়ে বাংলাদেশ দাপট দেখাচ্ছেকাজেই এটা একটা ট্রেন্ডপিচ এখানে পেসার বান্ধব হবে নাকাজেই স্পিনাররাই মুখ্য ভূমিকা নেবে।’

Also Read - খেলোয়াড়ি জীবনের দল হারলেও খুশি হয়েছেন ওয়ালশ!


তবে পেসাররাও যে স্পিনারদের চেয়ে কখনও কখনও বেশি গুরুত্ব পাবেন, ওয়ালশ মনে করিয়ে দিয়েছেন সেই বাস্তবতাও, ‘যখন আমরা নিউজিল্যান্ডে যাবো পেসারদের অনেক সুযোগ আসবেআমরা ভিন্ন উইকেট পাবসেখানে পেসাররা সুযোগটা লুফে নেবে।’

ঘরের মাটিতে সুযোগ না পেলেও বিদেশের পেস-বান্ধব উইকেটে পেসাররা ভালো করবেন- এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করে বাংলাদেশ দলের পেস বোলিং কোচ বলেন, ‘এখন তারা হয়ত বুঝবে- বাংলাদেশে খেলা হলে আমি হয়ত খেলতে নাও পারি কিন্তু বাইরে গেলে একাদশ প্রথম নামই হবে আমারআশা করছি পেসাররা নিজেদের প্রমাণ করার যথেষ্ট সুযোগ পাবে।’

আরও পড়ুন: স্পিন খেলতে না পারলে বাংলাদেশে যেওনা!

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

পরিত্যক্ত উইন্ডিজ-ভারত প্রথম ওয়ানডে

সব ম্যাচ হেরে বিশ্বকাপ শেষ করলো আফগানরা

আফগানিস্তানের ম্যাচে পুলিশ মোতায়েন!

শাস্তি পেল শ্রীলঙ্কা ও উইন্ডিজ

পুরানের শতকের পরও পারল না ক্যারিবীয়রা