Scores

প্রতি ৪৫-৫০ ওভারে নতুন বল ব্যবহারের পরামর্শ শচীনের

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে ক্রিকেটে নতুন বেশ কিছু অন্তবর্তীকালীন নিয়ম এনেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।  তার মধ্যে একটি হলো বলে লালা ব্যবহার করা যাবে না। এমন অবস্থায় ভারতের সাবেক ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার প্রস্তাব দিয়েছেন টেস্টে প্রতি ৪৫-৫০ ওভার পরে বল পরিবর্তনের।  .

প্রতি ৪৫-৫০ ওভারে নতুন বল ব্যবহারের পরামর্শ শচীনের

ঠান্ডার দেশে ঘাম দিয়ে বল চকচকে করার কাজটা যে কষ্টকর হবে সেই প্রসঙ্গেও কথা বলেন শচীন।  অস্ট্রেলিয়ার সাবেক পেসার ব্রেট লি এর সাথে এক ভার্চুয়াল আলাপচারিতায় শচীন বলেন, “আমি যখন ১৯৯২ সালে ইয়োর্কশায়ারের হয়ে খেলেছিলাম, মে মাসের শুরুর দিকে ছিল, আমি ঠান্ডায় কাঁপছিলাম। আমি পাঁচটি পোশাক পরেছিলাম। যে কন্ডিশনে আপনি ঘামবেন না সেখানে বল শাইন করবেন কীভাবে?”

Also Read - ঘোষণার পরেও মুশফিকদের অনুশীলনে ফেরা নিয়ে শঙ্কা


বর্তমান নিয়ম অনুসারে ৮০ ওভার পর টেস্ট ক্রিকেটে বল বদলানো যায়। শচীন মনে করেন ৪৫-৫০ ওভার পর বল বদলালে খেলা যেমন গতিশীল হবে ঠিক তেমনি তা বোলারদের জন্য সহায়ক হবে।

শচীন বলেন, “টেস্টে যখন উইকেট ভাল থাকে না তখন খেলার মান নিচে নামতে থাকে বলে আমার মনে হয়। কারণ ব্যাটসম্যান জানে আমি বোকার মতো শট না খেললে কেউ আমাকে আউট করতে পারবে না এবং বোলার জানে আমাকে ধৈর্য্যশীল হতে হবে। একারণে খেলা ধীরগতির হয়ে যায়।”


“তাহলে প্রতি ৪৫-৫০ বা ৫৫ ওভার পর নতুন বল এনে আমরা কেন খেলাটিকে গতিশীল করব না। ওয়ানডে কিরকেটে আমাদের ৫০ ওভার খেলতে হয় এবং সেখানে দুইটি বল নেওয়া হয়। অর্থাৎ এক বলে ২৫ ওভার,” যোগ করেন শচীন টেন্ডুলকার।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

Related Articles

বেতন কর্তনে সম্মতি দিলেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা

‘শ্রীলঙ্কা সফরে গেলে বড় বিপর্যয় হতে পারতো’

হঠাৎ কেন ক্রিকেটারদের মাথায় একাধিক ক্যাপ?

ক্রিকেট বিশ্বে প্রথম ‘কোভিড বদলি’ ক্রিকেটার লিস্টার

ক’রোনা আক্রান্ত অনূর্ধ্ব-১৯ দলের তিন ক্রিকেটার