Scores

প্রিমিয়ার লিগ মাঠে গড়ানোর সম্ভাবনা ক্ষীণ, বলছেন পাপন

দেশের করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছিল ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ বা ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল)। তবে করোনার সংক্রমণ নতুন করে বৃদ্ধি পাওয়ায় এবার ফের ঘোর অনিশ্চয়তা দেশের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ঘরোয়া এই টুর্নামেন্ট নিয়ে।

স্থগিত হওয়া ডিপিএল শুরু ৬ মে থেকে

বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের রুটি-রুজি বলা হয় ডিপিএলকে। করোনা কারণে এই টুর্নামেন্ট স্থগিত বিগত এক বছর ধরে। অচলাবস্থা কাটাতে ক্রিকেটাররা কম পারিশ্রমিকেও ডিপিএল খেলতে রাজি হয়েছিলেন। আয়োজক সিসিডিএমও ক্লাবগুলোর সাথে আলোচনার পর ক্রিকেটারদের একটি অংশের পারিশ্রমিক কমিয়ে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে লিগ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।

Also Read - ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন প্রোটিয়া ক্রিকেটার ফরটুইন


কিন্তু নতুন করে করোনার প্রকোপ দেখা দিলে বন্ধ হয়ে যায় ছয় দলের জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল)। এতে স্বভাবতই অনিশ্চয়তার মুখে পড়তে হয় বারো দলের জমজমাট টুর্নামেন্ট ডিপিএলকেও। এবার বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও জানালেন, পরিস্থিতির দ্রুত উন্নতি না ঘটলে ডিপিএল আয়োজনের কোনো সম্ভাবনা নেই।

তিনি বলেন, ‘এখনকার পরিস্থিতিতে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ শুরু করা কঠিন। আমি মনে করি, এমন পরিস্থিতি থাকলে কোনোভাবেই খেলা উচিৎ হবে না। যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা জৈব সুরক্ষা বলয় নিশ্চিত করতে পারব না ততক্ষণ পর্যন্ত খেলার প্রশ্নই আসে, সেক্ষেত্রে দল একটা বা বা দশটাই হোক।’

তবে ডিপিএলের বারোটি ক্লাব যদি নিজেদের খরচে খেলোয়াড়দের জন্য জৈব সুরক্ষা বলয় তৈরি করতে পারে, তাহলে ডিপিএল আয়োজনের পরিকল্পনা করবে বিসিবি। পাপন বলেন, ‘বিসিবি চেষ্টা করে যাচ্ছে। দলগুলো যদি আমাদের আশ্বস্ত করতে পারে ওরা জৈব সুরক্ষা বলয় তৈরি করে খেলা চালিয়ে যেতে পারবে, তাহলে আমরা আয়োজন করব। আমার কাছে মনে হয় সেই সম্ভাবনা এখনও খুব ক্ষীণ।’

দেশের প্রথম সারির বেশিরভাগ ক্রিকেটার ডিপিএলের উপার্জন দিয়েই জীবিকা নির্বাহ করেন। তাই ডিপিএল ঘরোয়া আসরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ আসর বলে বিবেচিত হয়। সেই টুর্নামেন্ট থমকে আছে ২০২০ সালের মার্চে মাত্র এক রাউন্ড খেলা হওয়ার পর থেকেই।

Related Articles

ঝুলে রইল খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক কমানোর সিদ্ধান্ত

ডিপিএল : বাতিলের খাতায় গত বছর মাঠে গড়ানো প্রথম রাউন্ড