Scores

ফাইনালের আগে অপহরণ করা হয়েছিল অশ্বিনকে!

ভারতের হয়ে খেলতে নেমে বিশ্ব ক্রিকেটে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়েছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। হয়েছেন বিশ্বসেরা বোলার, হয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ার শুরুর আগেই নিজের আঙুল হারানোর হুমকি পেয়েছিলেন অশ্বিন। অপহরণ হয়েছিলেন ফাইনাল ম্যাচের আগে।

মোদির কাছে ভোটের সুযোগ চাইলেন অশ্বিন

বর্তমান সময়ে গায়ে টেস্ট ক্রিকেটারের তাকমা লেগে গেলেও কিছুদিন আগে ভারতের জার্সিতে তিন ফরম্যাটের ‘অটোমেটিক চয়েজ’ ছিলেন অশ্বিন। সম্প্রতি নিজেকে হারিয়ে খোঁজা এ অলরাউন্ডার বিশ্ব ক্রিকেটে রাজত্ব করেছেন দীর্ঘদিন। ২০১৬-১৭ সালের দিকে টেস্ট ফরম্যাটের বোলিং এবং অলরাউন্ডার র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থানটা নিজের দখলে রেখেছিলেন।

Also Read - নতুন শুরুর অপেক্ষায় বাংলাদেশ


অথচ অশ্বিনের অশ্বিন হয়ে বেশ বাধাবিপত্তি পোহাতে হয়েছে। ১৪-১৫ বছর বয়সে পাড়ার ক্রিকেটে এক ফাইনাল ম্যাচ খেলার আগে অপহরণ হয়েছিলেন তিনি। প্রতিপক্ষ হুমকি দিয়েছিল অশ্বিনের আঙুল কেটে নেওয়ার। ক্রিকেট বিষয়ক সাংবাদমাধ্যম ক্রিকবাজের সাথে আলাপকালে এমনই বিস্ফোরক তথ্য জানিয়েছেন অশ্বিন।

বিস্তারিত জানিয়ে অশ্বিন বলেন, ‘সেদিন টেনিস বলে আমাদের একটা টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলার কথা ছিল। যদিও আমার বাবা এটা একদমই পছন্দ করতেন না। এমনকি আমি পাড়ার ক্রিকেটে খেলি এটাও তিনি ভালো চোখে দেখতেন না। তবুও সেই ম্যাচ খেলার জন্য আমি যখন সবে যাত্রা শুরু করব, সে সময়ে চার-পাঁচজন ছেলে রয়্যাল এনফিল্ড (মোটরসাইকেল) করে এসেছিল। তাঁরা পেশিবহুল এবং প্রকাণ্ড আকৃতির।’

‘ওরা আমাকে গাড়িতে বসিয়ে বলে এবার যেতে হবে। আমি জিজ্ঞাসা করেছিলাম, কোথায়? ওরা বলেছিল, তুমি আজকে ম্যাচ খেলছ, তাই তো? আমি ভেবেছিলাম, দারুণ বিষয় তো! ওরা হয়তো আমাকে নেওয়ার জন্য এসেছে। রয়্যাল এনফিল্ডে চাপতেও ভাল লেগেছিল। তব ঘটনা হল, দুজনের পিছনে আমি বসার পরে আমারও পিছনে একজন এসে বসেছিল।’ সাথে যোগ করেন তিনি।

তারা অশ্বিনকে খাবারের জন্যও সেধেছিল, ‘আমি তখন ১৪-১৫ বছরের হব। ওরা আমাকে একটা দামি চায়ের দোকানে নিয়ে যায়। চেন্নাইয়ে চায়ের দোকান সংস্কৃতির সঙ্গে জড়িয়ে। প্রত্যেক মাঠের সঙ্গে একটা চায়ের দোকান থাকে। সেখানে বেঞ্চে বসে রীতিমতো আড্ডার বন্দোবস্ত থাকে। ওরা আমাকে একটা বেঞ্চে বসিয়ে খাবার অর্ডার করেছিল। আমাকে বলেছিল ভয় পেয়ো না, আমরা তোমাকে সাহায্য করতেই এসেছি।’

ফাইনাল ম্যাচের সময় ঘনিয়ে আসতেই তারা অশ্বিনকে হুমকি দিতে থাকে, ‘বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে ৪টা হবে। আমি বলেছিলাম, ম্যাচ শুরু হতে চলেছে। এবার যাওয়া যাক। সে সময়ে ওরা বলে, আমরা আসলে প্রতিপক্ষ দলের। তুমি যাতে খেলতে না পারো, সেজন্য তোমাকে ধরে আনা হয়েছে। যদি তুমি গিয়ে এই ম্যাচে খেল, তাহলে নিশ্চিত থাকো তোমার আঙুলগুলো আর তোমার হাতে থাকবে না।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
Tweet 20
fb-share-icon20

Related Articles

পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের দুঃসংবাদ দিল পিসিবি

করোনায় থমকে যেতে নারাজ অ্যান্ডারসন

ক্রিকেট ভক্তদের দুঃসংবাদ দিল আইসিসি

করোনা প্রতিরোধে ৫ মিলিয়ন রুপি দিচ্ছেন পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা

চিকিৎসা সেবায় ইডেন গার্ডেন্স ব্যবহারের প্রস্তাব সৌরভের