Scores

ফিটনেস টেস্টে ৯৬ ভাগ পাস

ক্রিকেট পাড়ায় বেশ কয়েকদিন ধরে আলোচিত শব্দ ‘বিপ টেস্ট’ বা ‘ফিটনেস টেস্ট’। আসন্ন ন্যাশনাল ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) খেলার যোগ্যতা অর্জনের জন্য ক্রিকেটারদের এবার বিপ টেস্টে তুলতে হতো ১১ মার্ক। ঢাকা পর্বের পরীক্ষা শেষে ফলাফল দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। যেখানে পরীক্ষা দেওয়া ক্রিকেটারদের ৯৬ ভাগই পাস করে গেছে।

৫ অক্টোবর শুরুর সময় থাকলেও ৫ দিন পিছিয়ে আগামী ১০ অক্টোবর দেশের চার ভেন্যুতে মাঠে গড়াতে যাচ্ছে জাতীয় ক্রিকেট লিগের ২১তম আসর। যার জন্য আজ (১ অক্টোবর) ক্রিকেটারদের ফিটনেস টেস্টের মধ্য দিয়ে যেতে হলো। যেখানে গতবার বিপ টেস্টের পাস মার্ক ছিল ৯, এবার তা বাড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে ১১ তে।

Also Read - বৈধতা ফিরে পেলেন ব্র্যাথওয়েট


মিরপুর স্টেডিয়ামের ইনডোরে বিসিবির ট্রেনার তুষার কান্তি হাওলাদারের তত্ত্বাবধানে চলে এই বিপ টেস্ট। যেখানে পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছেন বেশিরভাগ ক্রিকেটার।

ক্রিকেটারদের বিপ টেস্ট শেষে স্বস্তি প্রকাশ করে বিসিবির নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন বলেন, ‘খেলোয়াড়রা কিন্তু এটি খুব ইতিবাচকভাবে নিয়েছে। এটা খেলোয়াড়দের জন্যই ভালো। বিষয়টা সবাই উপলব্ধি করতে পেরেছে। এই কারণে আমি খুবই খুশি। যতদূর দেখলাম ঢাকাতে এখন পর্যন্ত প্রায় ৯৬ ভাগ পাস করে গেছে। যে লক্ষ্যটা দেয়া হয়েছিল সেটা পূরণ করতে পেরেছে।’

তবে তরুণ ক্রিকেটার আবু হায়দার রনি, কামরুল ইসলাম রাব্বি, জুবায়ের হোসেন লিখন, সৈকত আলীরা খুব ভালোভাবে পাস মার্ক উৎরিয়ে গেলেও ব্যর্থ হয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুল, তুষার ইমরান, আব্দুর রাজ্জার, ইলিয়াস সানিদের মত সিনিয়র ক্রিকেটাররা। আজকের ফিটনেস টেস্টে যারা ফেল করেছেন, তাদের ক্ষেত্রে বোর্ডের ভাবনার কথা জানতে চাওয়া হলে বাশার দিয়েছেন তার উত্তর।

তিনি জানান, ‘আমরা কিন্তু এটা বলেছি যে যদি কেউ পূরণ করতে না পারে (পাস মার্ক) আমরা দ্বিতীয়বার, তৃতীয়বার নেব, চতুর্থবার নেব। সুযোগ থাকবে সবার জন্যই। আমরা একটা স্ট্যান্ডার্ড অনুসরণ করার চেষ্টা করছি, সংস্কৃতি তৈরি করার চেষ্টা করছি। আমি আশা করছি সবাই এটা বুঝতে পারবে।’

Related Articles

নাসিরের ফিফটি; শুভাগতর স্পিন জাদু

পেসারদের বোলিং নৈপুণ্যে জয় পেল চট্টগ্রাম

সিলেটকে উড়িয়ে খুলনার শুভসূচনা

এনসিএলে চ্যালেঞ্জিং উইকেট; পারফর্ম পর্যবেক্ষণ করবেন নির্বাচকরা

২০২১-এ এনসিএলের দুইটি আসর; হবে বিসিএলও