Scores

ফিল্ডারহীন মাঠের ২২ গজে ‘বিরতিহীন’ দৌড়

মাঠে কোনো ফিল্ডার নেই, ক্রিজে অবস্থানরত ব্যাটসম্যান যুগল খেটে নিলেন দু’রান; যা অফিশিয়ালি গ্র‍্যান্টেড। কি, অদ্ভুতুড়ে মনে হছে? সে যাই মনে আসুক না কেন, এমন এক প্রহসনেরই সাক্ষী হয়ে রয়েছে ইংলিশ কাউন্টি ক্লাব ওরেস্টারশায়ার ঘরের মাঠ নিউ রোড গ্রাউন্ড। প্রহসনের সময়কাল ১৮ আগষ্ট, ১৯২৪। স্বাগতিক ব্যাটসম্যান হাম্পফ্রে গিলবার্ট জন্ম দেন এক অভূতপূর্ব, অত্যাশ্চর্য ঘটনার।

ফিল্ডারহীন মাঠের ২২ গজে 'বিরতিহীন' দৌড়

নিউ রোড স্টেডিয়ামের মাহাত্ম্যকথার তালিকা বেশ সমৃদ্ধ। স্যার ডন ব্র‍্যাডম্যানে লাগাতার চার ইনিংসে চার শতক কিংবা ইংলিশ গ্রেট ট্রেড আর্নোল্ড থেকে বর্তমান মঈন আলীদের বেড়ে ওঠা এই সবুজ গালিচার মাঝেই। উক্ত মৌসুমে ওরেস্টারের পরিস্থিতি ছিলো একাবারেই নাজুক, ১৪ ম্যাচে কুড়িয়ে-কাড়িয়ে মোটে ৪ জয়। পয়েন্ট টেবিলে অবস্থান ১৪-তে। আতিথ্যগ্রহণকারী প্রতিপক্ষ নর্দানপোটনশায়ারের অবস্থাও হা-ভাতে, সাকুল্যে জয় ২টি আর তাতে ১৮ দলের টূর্নামেন্টে তাদের জায়গা হয়েছে ১৬ নম্বরে। কার্যত নিয়মরক্ষার ম্যাচে দু’দুল মুখোমুখি হলেও নিজেদের অস্তিত্বের লড়াইয়ে একচুলও ছাড় দিতে নারাজ উভয়দল।

Also Read - আর্চারের তাচ্ছিল্যের জবাব দিয়েও ক্ষমা চাইলেন বেস্ট






আগষ্ট মাসের মধ্যবর্তীতে আসমানের কান্না যেন থামার নাম নেই, বৃষ্টির জিম্মায় চলে যায় ম্যাচের দুইদিন। বৃষ্টিস্নাত তৃতীয় দিনে অতিথিদের পেস জুটিতে (আলবার্ট থমাস এবং ভ্যালেন্স জ্যাপ) লণ্ডভণ্ড স্বাগতিকদের ব্যাটিং লাইনআপ। ক্লেফ উইলসনকে সঙ্গ দিতে অন্তীম ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে ভারতীয় বংশোদ্ভূত হাম্পফ্রে গিলবার্ট। ৩৫ বছরে কাউন্টিতে অভিষিক্ত গিলবার্ট বোলিংয়ে তার বৈচিত্রের জন্য বেশ পরিচিত ছিলেন। মিডিয়াম পেসের সাথে অফ কাটারের মিশ্রণ, যাকে বলে একের ভেতর দুই!

সেই মৌসুমে এই ম্যাচই ছিলো তার একমাত্র অংশ নেয়া ম্যাচ, আগামী তিন মৌসুম তাকে আর বিবেচনায় রাখেনি ক্লাবটি। তবে, হাল ছাড়েননি প্রত্যয়ী গিলবার্ট। ৪২ বছর  বয়সেও ঠিকই ফিরেছেন দলে, টানা খেলেছেন আরো দুটো মৌসুম। ক্যারিয়ারে প্রাপ্ত উইকেটের সংখ্যা ৪৭৬, গড় ২৪ এর ঘরে। তার ব্যাটিং এভারেজ মোটে ৭ যা অকপটে বলে দিচ্ছে সে ছিলো একজন প্রকৃত, জাত টেল এন্ডার।






গিলবার্ট উইকেটে আসামাত্রই পুনরায় গুড়িগুড়ি বৃষ্টি আরম্ভ হয়, ক্রমে তার পরিমাণ বাড়তে থাকে। লেগ স্ট্যাম্পের একটি বল সে অন সাইডে ঠেলে দৌঁড়াতে শুরু করে, এমতাবস্থায় সেই দূর্লভ মুহূর্তের সাথে একাত্ম হয়ে পড়ে নিউ রোড গ্রাউন্ড। মাথা বাঁচাতে নর্দানপোটনশায়ারের ফিল্ডাররা প্যাভিলিয়নের দিকে ছুট লাগান আর আর এই সুবর্ণ  সুযোগে গিলবার্ট এবং তার সঙ্গী উইকেটে পাশ বদলে মত্ত। আম্পায়ার স্ট্যাম্পের বেল ফেলা অব্দি তারা কতবার এপাশ ওপাশ করেছেন তার হিসেব নেই। বৃষ্টি অন্তে পুনরায় খেলা শুরু হলে গিলবার্টের নামের পাশে দুইরান যোগের নির্দেশ দেন আম্পায়ারদ্বয়। ৬ রানে থামতে হয় তাকে, ম্যাচের ফলাফল দাঁড়ায় ড্র-তে।

এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার আবারো দেখা মিলে ৭৫ এর ওয়ানাডে বিশ্বকাপে অষ্ট্রেলিয়া এবং ওয়েস্ট-ইন্ডিজের মধ্যকার ফাইনালে। অজি ব্যাটসম্যান জেফ থমসনের বাতাসে ভাসানো শর্ট ক্যারিবীয় ফিল্ডার রয় ফ্রেড্রিক্স তালুবন্দী করতে উদ্যত, এমন সময় শেষ উইকেট হওয়ায় মাঠে প্রবেশ করে উৎসুক দর্শক। ব্যস ঠেলাঠেলিতে বলের দিশা হারিয়ে বসেন ফ্রেড্রিক্স। সুযোগ সন্ধানী ব্যাটসম্যানদ্বয় থমসন এবং ডেনিস লিলি উইকেটে পার্শ্ব বদলে তখন ব্যস্ত। লিলির ভাষ্যে তারা ১৭ বার এপাশ ওপাশ করেছিলেন। কিন্তু, আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে চার রান যোগ হয় থমসনের রানের খাতায়।

লেখক : বিপ্রতীপ দাস

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

Related Articles

বোলিংয়ে নতুন অস্ত্র যোগ করছেন রশিদ

৬টি কেক কেটে যুবরাজের ‘৬ ছক্কা’র বর্ষপূর্তি উদযাপন

জম্মু-কাশ্মিরে দশটি স্কুল ও ক্রিকেট একাডেমি বানাবেন রায়না

সীমান্ত খুললেও দক্ষিণ আফ্রিকায় ফিরছে না আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

জার্গেনসেনের চুক্তি বাড়ল দুই বছর