ফের পিএসএল ভারতীয় চ্যানেলে, দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন

ভারতের পুলওয়ামাতে জঙ্গী হামলার পর ভারত ও পাকিস্তান দুই দেশের সম্পর্ক বেশ খারাপ হয়ে যায় সম্প্রতি। জঙ্গী হামলার প্রভাব পড়ে দুই দেশের ক্রিকেট সম্পর্কেও। ভারতীয় চ্যানেল ডি স্পোর্টস বন্ধ করে দেয় পিএসএল সম্প্রচার। ভারতীয় প্রেডিকশন ওয়েবসাইট ড্রিম ১১ তাদের এপ থেকে পিএসএলের সকল ম্যাচ সরিয়ে ফেলে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ক্রিকবাজও একই কাজ করে, তারাও পিএসএলের ধারাভাষ্য তাদের ওয়েবসাইট থেকে সরিয়ে ফেলে দর্শকদের তুমুল প্রতিবাদের ফলে। তবে গত ১১ তারিখ হঠাৎ করেই উল্টো পথে চলা শুরু করে ভারতীয় চ্যানেল ডি স্পোর্টস।

ফের পিএসএল ভারতীয় চ্যানেলে, দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন

Advertisment

 

গত ১১ই মার্চ থেকে পুনরায় পিএসএলের ম্যাচ সম্প্রচার করা শুরু করে ডি স্পোর্টস। পিএসএলের ম্যাচ গুলো এখন করাচিতে হচ্ছে। করাচিতে ১১ তারিখ গ্রুপ পর্বের শেষ দিনের ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। ডি স্পোর্টস উভয় ম্যাচই সম্প্রচার করে।

অথচ এর আগে হামলার পর যখন তারা পিএসএল সম্প্রচার বন্ধ করে দেয় তখন তাদের গলায় ছিলো ভিন্ন সুর।তখন তারা জানায় দেশের জনগণের আবেগের প্রতি তাদের সম্মান আছে। তাই তারা পিএসএল সম্প্রচার বন্ধ করবে আপাতত। তবে ফের পরিস্থিতি শান্ত হওয়ায় পুনরায় পিএসএল সম্প্রচার করায় তাদের উপর ভারতীয় ভক্তরা চরম হতাশ।

অনেকেই টুইটারে তাদের দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে এবং জানতে চেয়েছে তাদের দেশপ্রেম কি এতই ঠুনকো যে পরিস্থিতি শান্ত হয়ে যাওয়ায় এখন তারা কিছু টাকার জন্য পুনরায় পিএসএল সম্প্রচার শুরু করেছে?। তাদের উপর ক্ষুব্ধ দর্শকেরা আবারো দাবি তুলেছে টুইটারে তাদের বয়কট করার পুনরায় পিএসএল প্রচারের অপরাধে।

আবার অনেকের মন্তব্য পিএসএলকে বিভিন্নভাবে বয়কট করা সাময়িক পদক্ষেপ ছিলো বিভিন্ন মিডিয়ার পরিস্থিতি গরম হওয়াতে, এখন পরিস্থিতি ঠান্ডা তাই তারা সেই সুযোগ পিএসএল প্রচার করছে। এমনকি পাকিস্তানকে বিশ্বকাপে নিষিদ্ধের দাবিও সময়ের সাথে হারিয়ে গিয়েছে। অন্যদিকে পাকিস্তানি ভক্তরা এটিকে ভারতীয়দের দেশপ্রেম টাকার কাছে বিক্রি হয়ে গিয়েছে বলে দাবি করছে। দেখে নিন ভক্তদের কিছু টুইট এই ব্যাপারে।

https://twitter.com/DSportINLive/status/1105041040673632257?s=19

https://twitter.com/sarcasmistani/status/1105074702849064961?s=19

https://twitter.com/s_sumitkr/status/1105099087295074305?s=19