ফেসবুক পোস্ট থেকে বোর্ডে গড়ালো থিসারা ও মালিঙ্গা-পত্নীর ঝগড়া

একটি ফেসবুক পোস্ট থেকে ঘটনার সূত্রপাত। অতঃপর লঙ্কান ক্রিকেটার থিসারা পেরেরার সাথে আরেক ক্রিকেটার লাসিথ মালিঙ্গার স্ত্রী তানিয়া পেরেরার ঝগড়া আর এ নিয়ে তুমুল আলোচনা-বিতর্ক। শেষপর্যন্ত ঘটনাটি গড়িয়েছে শ্রীলঙ্কান বোর্ড পর্যন্ত।

ফেসবুক পোস্ট থেকে বোর্ডে গড়ালো থিসারা ও মালিঙ্গা-পত্নীর ঝগড়া
এমন ঘটনায় মালিঙ্গা ও থিসারার সম্পর্কও হয়ে উঠতে পারে শীতল! ফাইল ছবি

অদ্ভুত এই ব্যাপারটি নিদারুণ সব সমস্যায় ভোগা শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটকে আরও অস্থিতিশীল করে তুলেছে। তানিয়া ও থিসারার সেই ঝগড়ার কারণে বেশ অস্বস্তিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে এশিয়ার দেশটির ক্রিকেট অঙ্গনে।

সম্প্রতি থিসারা অভিযোগ করেছেন, মালিঙ্গা-পত্নী তানিয়া নাকি তাকে দেশবাসীর কাছে হাসির খোঁড়াকে পরিণত করেছেন। এমন অভিযোগ জানিয়ে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটকে (এসএলসি) চিঠিও দিয়েছেন পেরেরা।

পেরেরার অভিযোগ, সম্প্রতি একটি ফেসবুক পোস্টে তানিয়া থিসারার দিকে ইঙ্গিত করে বলেছেন- তিনি জাতীয় দলে জায়গা পোক্ত করার জন্য দেশটির ক্রীড়ামন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করেছেন। সেই পোস্টের সূত্র ধরে পরস্পরকে খোঁচা মেরে আরও একাধিক পোস্টের জন্ম হয়।

Also Read - মাঠ থেকে মোসাদ্দেককে কেন বের করে দিলেন মুশফিক?


এ বিষয়ে অভিযোগ জানিয়ে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের সিইওকে পাঠানো চিঠিতে থিসারা বলেন, ‘যখন খোদ বর্তমান অধিনায়কের স্ত্রীই সামাজিক মাধ্যমে এ ধরনের অভিযোগ করে লেখেন, তখন আমজনতার এগুলোকে সত্যি বলে ভাবা আর সেটিকে কেন্দ্র আমার নামে নানা কুৎসা রটানো থেকে বিরত রাখা তো কঠিন।’

তার দাবি, তানিয়ার ফেসবুক পোস্টের পর ড্রেসিংরুমেও পড়েছে এর প্রভাব। থিসারার ভাষ্য, ‘এই ফেসবুক পোস্টের পর থেকে ড্রেসিংরুমেও একটা অস্বস্তিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সত্যি বলতে কি, দলের দুই সিনিয়র খেলোয়াড়ের মধ্যে যখন সৌহার্দ্য থাকে না, সেটি দলের তরুণদের বরং বেশি করে অস্বস্তিতে ফেলে।’

বিশ্বকাপের আগমুহূর্তে দলের এমন পরিস্থিতি ক্ষতিকারক বলেও মনে করেন থিসারা, তাই চান বিষয়টির সুন্দর সমাধান। তিনি বলেন, বিশ্বকাপ দুয়ারেসামাজিক মাধ্যমে অর্থহীন বিষয় নিয়ে ঝগড়াঝাঁটি না করে আমাদের মনোযোগ পুরোপুরি থাকা উচিত খেলায়দলে এখন সুস্থির নেতৃত্ব, নির্দেশনা ও একতাবদ্ধ পরিবেশের ভীষণ প্রয়োজনবিশ্বকাপের আগেই এই বিষয়টির তাই সুরাহা প্রয়োজনদলের নেতৃত্ব ও সিনিয়র খেলোয়াড়দের অবশ্যই এর জন্য উদাহরণ তৈরি করতে হবে।’

আরও পড়ুন: রংপুর রাইডার্সের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ— ‘ক্রিকেট ফর ক্যান্সার’