Scores

ফ্রাইলিঙ্ককে কৃতিত্ব দিচ্ছেন মুশফিক

বিপিএল ষষ্ঠ আসরের ১১তম ম্যাচে প্রথমবারের মতো বিপিএল ইতিহাসে সুপার ওভারে গড়াল কোন ম্যাচ। আর সেই ম্যাচে নাটকীয় ভাবেই শেষ বলে ম্যাচ জিতে নিয়েছে চিটাগং ভাইকিংস। তাই জয়ী দলের অধিনায়ক এই জয়ের কৃতিত্ব দিচ্ছেন ম্যাচসেরা রবি ফ্রাইলিঙ্ককে।

ফ্রাইলিঙ্ককে কৃতিত্ব দিচ্ছেন মুশফিক

এক ওভারে ১৯ রানের প্রয়োজন চিটাগং ভাইকিংসের। সেখান থেকে ম্যাচটি গড়াল সুপার ওভারে। চিটাগংয়ের আগের ম্যাচটিই গড়াতে পারত সুপার ওভারে। সেবারও ক্রিজে ছিলেন ফ্রাইলিঙ্ক। শেষ বলে ৭ রানের প্রয়োজন হলে সেটি নিতে ব্যর্থ হন ফ্রাইলিঙ্ক। তবে এবার আর ব্যর্থ হননি। নাইম হাসান ছয় মেরে আউট হলে পরের দুই বলে দুইটি ছয় হাঁকান ফ্রাইলিঙ্ক। যদিও দ্বিতীয় ছয় মারার বল নিয়ে রয়েছে প্রশ্ন।

ফ্রাইলিঙ্ক ‘নো বল’ চেক করার জন্য আম্পায়ারের কাছে আবেদন করলেও সাড়া দেননি তাতে। শেষ বলে একরান নিতে ব্যর্থ হন ফ্রাইলিঙ্ক। ম্যাচটি গড়ায়ও সুপার ওভারে। সুপার ওভারে আগে ব্যাট করতে নেমে ১১ রান সংগ্রহ করে চিটাগং ভাইকিংস। সেই সুপার ওভারেও শেষ বলে তিন রানের প্রয়োজন হলে সেটি নিতে ব্যর্থ হয় স্টার্লিং। সুপার ওভারেও বল হাতে ছিলেন ফ্রাইলিঙ্ক। তাই তো দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম জয়ের কৃতিত্ব দিয়েছেন ফ্রাইলিঙ্ককে।

Also Read - নাটকীয় ম্যাচে সুপার ওভারে জয় চিটাগংয়ের


“দারুণ একটি ম্যাচ হয়েছে। এই ম্যাচ জয়ের কৃতিত্ব ফ্রাইলিঙ্ককে দিতেই হবে। চাপ ভালোভাবেই সামলিয়েছে ফ্রাইলিঙ্ক। এছাড়াও ইয়াসীর আলীও ভালো খেলেছে। দারুণ ক্যারিয়ার পড়ে আছে ভবিষ্যতে তার। আশা করছি সামনের ম্যাচগুলোতে বড় রান পাবে সে।”

সুপার ওভারে চিটাগং ভাইকিংস বোলিংয়ে যাওয়ার আগে মুশফিক ফ্রাইলিঙ্ককে উৎসাহিত করলেও তিনি বেছে নিতেন শেষ বলে একরানকেই। এছাড়াও সুপার ওভারে জুনায়েদের করা বোলিংয়ের তার কাজে দিয়েছে জানিয়েছেন ফ্রাইলিঙ্ক।

“আমি সুপার ওভার থেকে শেষ বলে একরানকেই বেছে নিবো। জুনায়েদ খান বেশ ভালো বোলিং করেছে যা কিনা আমার কাজে এসেছে। এছাড়াও আমাদেরকে সমর্থন দেওয়ার জন্য দর্শকদের জানাই।”

আরও পড়ুনঃ নাটকীয় ম্যাচে সুপার ওভারে জয় চিটাগংয়ের

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


Related Articles

টি-টোয়েন্টির জন্য নির্বাচকদের ভাবনায় রাব্বি!

খালেদের বোলিং দেখে মুগ্ধ মরিসন

সুযোগ পেয়েও ব্যর্থ আশরাফুল

নিজেকে নিয়ে ‘গবেষণা’ করেন না মুশফিক

“দলের মালিকেরও খারাপ লাগবে”