Scores

বরাবরই বিশ্বকাপে চোখ বিজয়ের

টানা তিন ম্যাচে সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন প্রাইম ব্যাংকের অধিনায়ক বিজয়। আজকে ১২৮ বলে ১০২ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। তার ইনিংসে ছিল ৫টি চার ও ২টি ছয়ের মার। আগের দুই ইনিংসে করেন যথাক্রমে ১০০ রান ও ১০১ রান। ম্যাচ শেষে কথা বলেছেন নিজের ইনিংস ও বিশ্বকাপের স্বপ্ন নিয়ে।

এনামুল হক বিজয়

টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই বিজয়ের লক্ষ্য ছিল ভালো কিছু করার। বিপিএলে নিজের মতো করে খেলতে না পারারও আফসোস আছে তার, ‘আসলে টুর্নামেন্টের শুরুতেই নিজের মধ্যে একটা চ্যালেঞ্জ ছিল যে বিপিএলটা নিজের মতো করে খেলতে পারিনি। তার আগে বিসিএল যে টুর্নামেন্টটা ছিল ওটা বেষ্ট ব্যাটসম্যান (সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক) হিসেবে ছিলাম। দুইটা দ্বিশতক ছিল। খুব ভালো বিসিএল গেছে।’

Also Read - ‘ব্যাচেলর’ থেকে ‘বিবাহিত’ মুস্তাফিজ


বরাবরই আসন্ন ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ খেলার জন্য স্বপ্ন দেখছেন বলে জানান তিনি, ‘আসলে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে যখন চোটে পড়ে ফিরে আসি তখন থেকেই ইচ্ছা ছিল, এইবার পারলাম কিন্তু ২০১৯ বিশ্বকাপে সেটা করবো। গত তিন-চার বছর ধরেই ওই স্বপ্ন নিজের মধ্যে ছিল এবং আছে। যদি আমি সেঞ্চুরি নাও করতাম তাও স্বপ্ন দেখতাম। বিশ্বকাপ দলে থাকবো এবং বিশ্বকাপে খেলবো।’

আগের থেকে বেশকিছু পরিবর্তন দেখা যায় এখন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের। কোচদের সহায়তা ও নিজের কঠোর পরিশ্রমেরই ফল এটা বলে মনে করেন তিনি, ‘আবার প্রিমিয়ার লিগে খুব ফোকাস ছিলাম। অনেক প্রাকটিস করেছি, জিম সেশন বলেন, রানিং সেশন বলেন কঠোর পরিশ্রম করেছি। তো এই ব্যাপারটাই আমি চেষ্টা করেছিলাম। মনে প্রাণে চাচ্ছিলাম যেন প্রত্যাশিত ফলফলটা আসে। তো সেটারই আমি মনে করি ফল। আল্লাহর কাছে অনেক কৃতজ্ঞতা। এটা অনেক বড় একটা প্রাপ্তি। আমি প্রতি ম্যাচ বাই ম্যাচ চেষ্টা করেছি। এজন্য প্রতি ম্যাচেই রান পেয়েছি। এভাবেই চেষ্টা করবো রান করার। আর দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার।’

তিনি আরো বলেন, ‘টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ক্ষেত্রে বাউন্ডারি বেশি হয় একরানের থেকে। একটা সময় যখন ছোট ছিলাম মনে করতাম এটা চার-ছয়েরই খেলা। আস্তে আস্তে যখন অভিজ্ঞতা বাড়ছে তখন বুঝছি সেটা আসলে না। এটা দিন দিন উন্নতি করার চেষ্টা করছি। স্যারদের সাথে যোগাযোগ করেছি যে এই সেট আপটা কখন কীভাবে করলে ভালো হয়। আমি মনে করি, এই অনেক কিছু চেষ্টার ফলে এখন সফলতা পাচ্ছি।’

বিশ্বকাপ দল নির্বাচনে টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্তই সর্বোচ্চ মানেন তিনি। নিজেও সর্বদা দেশের জন্য মাঠে নামতে প্রস্তুত বলে জানান বিজয়, ‘তাছাড়া টিম ম্যানেজমেন্টের ব্যাপার। বাংলাদেশ দলের জন্য কোন ক্রিকেটারকে নেয়া প্রয়োজন। অবশ্যই বাংলাদেশ দল সবার আগে। সেটা কোনো ব্যক্তির সাথে যাবে না। আমার মনে হয় দেশের জন্য যেকোনো খেলোয়াড় যেকোনো সময় খেলতে পারে। দেশকে প্রতিনিধিত্ব করার জন্য আমি শতভাগ প্রস্তুত আছি।’

Related Articles

এক নজরে ২০১৯ বিশ্বকাপ

আয়ারল্যান্ডে বিশ্বকাপের মতো উইকেট চান মাশরাফি

বিশ্বকাপের আম্পায়ারদের তালিকা প্রকাশ

নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন কায়েস

বিশ্বকাপ দলে নেই তাসকিন, চমক আবু জায়েদ