Scores

বলের আঘাতে ভেঙে গেছে মার্শের অণ্ডকোষ

ক্রিকেট মাঠেই বড় ধরনের আঘাত পেয়েছেন অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার মিচেল মার্শ। নেটে অনুশীলন করার সময় পাওয়া আঘাতে শুক্রাশয় (অণ্ডকোষ) ভেঙে গেছে ২৭ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডারের।

বলের আঘাতে ভেঙে গেছে মার্শের অণ্ডকোষ

অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া টুর্নামেন্ট শেফিল্ড শিল্ডে খেলার জন্য প্রস্তুতিকালে এই আঘাত পান মার্শ। জাতীয় দলের ওয়ানডে ও টেস্ট দুই দল থেকেই বাদ পড়ার পর শেফিল্ড শিল্ড ছিল মার্শের জন্য নিজেকে প্রমাণের মঞ্চ। বিশ্বকাপ ও অ্যাশেজের আগে বড় ধরনের এই চোট তার ক্যারিয়ারের জন্য তাই বড় এক ধাক্কাও।

Also Read - মাহমুদউল্লাহ-সৌম্যর সেঞ্চুরির পরও ইনিংস ব্যবধানে হারল বাংলাদেশ


মার্শ আঘাত পাওয়ার পরই চিকিৎসকরা ধারণা করেছিলেন, বলের আঘাতে শুক্রাশয়ের কোনো একটি ভেঙে গেছে তার। পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রতিবেদনেও ধরা পড়েছে সেটি।

মার্শ বলেন, ‘ফ্লিকার ব্যবহারের সময় আমাদের এক কোচের ছুঁড়ে দেওয়া বলে আমি এই জায়গায় আঘাত পাই। সাধারণত অণ্ডথলীতে আঘাত পেলে এটি বড়োজোর কয়েক মিনিট ব্যথা অনুভব করায় এবং একসময় ব্যথা মিলিয়ে যায়। কিন্তু আধঘণ্টা পরও আমি ঠিক একই পরিমাণ ব্যথা অনুভব করছিলাম।’

আঘাত পাওয়ার পর মার্শকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা অনুমান করেছিলেন ঘোরতর বিপদটিকেই। দ্বিতীয়বার নিরীক্ষার জন্যই নিয়ে যাওয়া হয় চিকিৎসালয়ে। স্ক্যান করার পর প্রতিবেদনে জানা যায়- মার্শের এক পাশের শুক্রাশয় ভেঙে বা ফেটে গেছে।

তিনি বলেন, ‘দ্বিতীয়বার পরীক্ষা করার জন্য আমাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তারা ভাবছিলো আমার একটি টেস্টিকেল (শুক্রাশয়) ভেঙে গেছে। ঐ জায়গাতে স্ক্যান করা হয়। স্ক্যান করার সময় ঐ জায়গা থেকে অনেক রক্তপাত হতে থাকে। এটি করুণ এক দৃশ্য ছিল। আঘাতপ্রাপ্ত জায়গা কয়েকদিন কালশিটে হয়ে ছিল।’

তবে এখন সুস্থ আছেন জানিয়ে মার্শের ভাষ্য, ‘দুটো শুক্রাশয়ই ঠিকঠাক কাজ করছে, তাই আশা করি সব ঠিকই আছে।’

গুরুতর এই চোট কাটিয়ে শেফিল্ড শিল্ডের আগামী রাউন্ডে ফেরার পরিকল্পনা করছেন মার্শ। অভিজ্ঞ এই অলরাউন্ডার ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলে থাকেন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ওয়েডের ‘মাথার খুলি উড়িয়ে দিতে চেয়েছিল’ আর্চার!

একাধিক রেকর্ড দিয়ে অ্যাশেজ শেষ করলেন স্মিথ

সমতায় শেষ হলো অ্যাশেজ, ট্রফি গেল অস্ট্রেলিয়ায়

অস্ট্রেলিয়ার অধিকাংশ সমর্থকই আমাকে ঘৃণা করে: মার্শ

নেতৃত্বে ফিরবেন স্মিথ!